The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

ভাল্বওয়ালা মাস্ক পরায় নিষেধ সিডিসির

ভাইরাসটি ছড়িয়ে পড়ার শুরু থেকেই বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে বিশেষজ্ঞরা মানুষকে মাস্ক ব্যবহারের পরামর্শ দিয়ে আসছেন

Asian man wearing the face mask due to air pollution - Young adult on park with Pollution mask - person protecting from air contamination by wearing mask (Asian man wearing the face mask due to air pollution - Young adult on park with Pollution mask -

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রোগতত্ব ও রোগ নিয়ন্ত্রণ দফতর সেন্টার ফর ডিসিজ কন্ট্রোল (সিডিসি) করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে ব্যবহৃত মাস্কের নতুন এক নীতিমালা প্রকাশ করেছে। ভাল্ব রয়েছে এমন মাস্ক পরিধান হতে বিরত থাকার নির্দেশনা দিয়েছে ওই সংস্থাটি।

ভাল্বওয়ালা মাস্ক পরায় নিষেধ সিডিসির 1

ভাইরাসটি ছড়িয়ে পড়ার শুরু থেকেই বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে বিশেষজ্ঞরা মানুষকে মাস্ক ব্যবহারের পরামর্শ দিয়ে আসছেন। তাদের ধারণা মতে, ক্ষুদ্র এই প্রচেষ্টাই এই প্রাণঘাতি ভাইরাসটির প্রাদুর্ভাব কমিয়ে আনতে সক্ষম।

এ সম্পর্কে সিডিসি বলেছে, মাস্ক ব্যবহারের মূল কারণ হলো, হাঁচি-কাশির মাধ্যমে বের হওয়া ড্রপলেটে ছড়িয়ে পড়া থামানো। যেসব মাস্কে ভাল্ব (ফিল্টার) রয়েছে সেগুলো সাধারণত হাঁচি-কাশির ড্রপলেট ভাল্বের ফুটোর মাধ্যমে বের করে দিতে পারে। এতে করে কার্যকরভাবে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ করা যাবে না। কারণ একজন করোনা আক্রান্ত রোগী এসব মাস্ক পরে কোনোমতেই সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়া আটকাতে পারবেন না।

করোনার এই ক্রান্তিলগ্নে বিশ্ববাসী বিভিন্ন ধরনের মাস্কের সঙ্গে পরিচিত। কাদের কোন মাস্ক ব্যবহার করতে হবে, সিডিসির পক্ষ হতে সেই সম্পর্কিত নির্দেশনাও দেওয়া হয়েছে। এপ্রিলের দিকে তারা বলেছিলেন, হাসপাতাল ও চিকিৎসাক্ষেত্রের সঙ্গে জড়িত নয়, এমন ব্যক্তিরা কাপড়ের মাস্কও ব্যবহার করতে পারেন। সেইসঙ্গে সবাইকে সামাজিক দূরত্বও অবশ্যই বজায় রাখতে হবে।

সিডিসির ধারণা মতে, সাধারণ কাপড়ের তৈরি মাস্কের ব্যবহারেও করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ধীরগতির করা সম্ভব। তবে এ ক্ষেত্রে শর্ত হলো সবাইকে মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। যদি আমরা সবাই মাস্ক ব্যবহারের বিষয়টি নিশ্চিত করতে পারি, তাহলে অবশ্যই ভাইরাসটির সংক্রমণের হার উল্লেখযোগ্য হারে কমিয়ে আনা সম্ভবপর হবে।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...