The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

নিজ হাতে ৩০ বছর ধরে খাল কেটে আলোচনায় কৃষক লঙ্গি ভুইঁঞা!

পাহাড় বেয়ে পড়া বৃষ্টির পানি গ্রামে আনতে তাইতো তিনি ৩০ বছর ধরে তিন কিলোমিটার লম্বা খাল কেটেছেন

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ ভারতের গয়া জেলা হতে পাহাড়ের কোল ঘেষে অবস্থিত একটি ছোট্ট গ্রাম। পুরো গ্রামে পানির খুব অভাব। প্রশাসনেরও নজর নেই এই গ্রামের দিকে। তাই নিজ হাতে ৩০ বছর ধরে খাল কেটে আলোচনায় কৃষক লঙ্গি ভুইঁঞা!

নিজ হাতে ৩০ বছর ধরে খাল কেটে আলোচনায় কৃষক লঙ্গি ভুইঁঞা! 1

পাহাড় বেয়ে পড়া বৃষ্টির পানি গ্রামে আনতে তাইতো তিনি ৩০ বছর ধরে তিন কিলোমিটার লম্বা খাল কেটেছেন দেশটির বিহারের লাথুয়া এলাকার কোঠিওয়ালা গ্রামের বাসিন্দা লঙ্গি ভুইঁঞা। এবার সেই বৃদ্ধের পাশে দাঁড়ালেন মাহিন্দ্রা গ্রুপের চেয়ারম্যান আনন্দ মাহিন্দ্রা।

ওই ব্যক্তির এই অনন্য কাজ দেখে খুশি হয়েছেন আনন্দ মাহিন্দ্রা। ঠিক করেন তিনি লঙ্গির পাশে দাঁড়াবেন। এরপরই মাহিন্দ্রা ট্রাক্টর্সের তরফ হতে তাকে একটি ট্রাক্টর উপহার দেওয়া হয়। টুইট করে এই খবরটি দিয়েছেন মাহিন্দ্রা নিজেই।

জানা যায়, গয়া জেলা হতে ৮০ কিলোমিটার দূরের ওই গ্রামটি অবস্থিত পাহাড়ের একেবারে কোল ঘেষে। চারিদিকে একেবারে ঘন জঙ্গল। পানি পাওয়া যায় না এখানে। বর্ষাকালে বৃষ্টির পানি পাহাড়ের গা বেয়ে নদীতে গিয়ে মিশে যায়। এই বিষয়টি নজরে আসে লঙ্গির। তখনই তিনি ভাবেন যে, পাহাড় বেয়ে নামা পানিকে কীভাবে গ্রামে নিয়ে আসা যাবে। এরপরই খাল কাটার কথা মাথায় আসে তার। শুরু করে দেন লড়াই। যা থেমেছে দীর্ঘ ৩০ বছর পর!

গ্রামের অন্য বাসিন্দারা যখন রুটি–রুজির সন্ধানে বাইরে যেতেন, তখন ওই খাল কাটার কাজেই মনোনিবেশ করতেন লঙ্গি। দীর্ঘদিনের একক প্রচেষ্টায় ৩ কিলোমিটার লম্বা খালটি খনন করেছেন তিনি। যে কারণে বর্ষার পানি পাহাড়ের গা বেয়ে নেমে খালের সাহায্যে গ্রামের পুকুরে এসে পড়ছে। এতে করে গ্রামবাসীর পানির সমস্যা অনেকাংশে মিটে গেছে।

তথ্যসূত্র: জি নিউজ

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...