The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

দেশকে করোনামুক্ত ঘোষণা দেওয়া সেই নেপালি মন্ত্রী এখন করোনায় আক্রান্ত

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এক ঘোষণা দিয়ে তিনি নিজেই বিষয়টি জানিয়েছেন

Interview with Nepal Communist Party (NCP) lawmaker Yogesh Bhattarai, in Kathmandu, on Thursday, January 10, 2019. Photo: Naresh Krishna Shrestha/THT

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ যিনি ঘোষণা দিয়েছিলেন, নেপাল করোনামুক্ত বলে দেশটির সেই পর্যটন বিষয়ক মন্ত্রী যোগেশ ভাট্টারিও মহামারি কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত হয়েছেন।

দেশকে করোনামুক্ত ঘোষণা দেওয়া সেই নেপালি মন্ত্রী এখন করোনায় আক্রান্ত 1

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এক ঘোষণা দিয়ে তিনি নিজেই বিষয়টি জানিয়েছেন। ৮ মাস আগে নেপালকে করোনামুক্ত ঘোষণা করেন ৫৪ বছর বয়সী এই মন্ত্রী যোগেশ ভাট্টারি। পর্যটনের সঙ্গে তিনি সংস্কৃতি এবং বেসামরিক বিমান চলাচল মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বেও রয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী কে পি শর্মা ওলির মন্ত্রিসভার সদস্য হিসেবে তিনি প্রথম করোনায় সংক্রমিত হলেন। হিমালয়ের এই দেশটিতে প্রথম দিকে সংক্রমণ তেমন না থাকলেও সম্প্রতি মোট সংক্রমণের সংখ্যা লাখ ছাড়িয়ে গেছে। ফেসবুক পোস্টে তিনি তার সংস্পর্শে যারা এসেছেন তাদের সবাইকে সতর্ক থাকার অনুরোধ করেছেন।

তিনি লিখেছেন যে, ‘গত সোমবারের করোনা পরীক্ষাতেও আমি নেগেটিভ ছিলাম। ওই সময় আমি কাঠমান্ডুর বাইরে কিছু অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহণ করি। তবে শুক্রবার নিজ বাসভবনে ফেরার পর শরীরে তাপ রয়েছে বুঝতে পারি। তারপর শনিবার আবার নমুনা পরীক্ষা করি। এইমাত্র জানতে পারলাম যে আমি কোভিড-১৯ পজিটিভ হিসেবে শনাক্ত হয়েছি। হালকা জ্বর ছাড়া আমার তেমন কোনো অসুস্থতা নেই।’

ফেব্রুয়ারিতে যোগেশ বলেছিলেন, ‘বিশ্বের এটা জানা উচিত যে করোনা ভাইরাসের কালো থাবা থেকে মুক্ত নেপাল। তিনি নেপালকে নিরাপদ পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে প্রচারণা চালানোর জন্য সরকারি সংস্থাগুলোকেও নির্দেশ দেন।’

যোগেন ভাট্টারি ছাড়াও তার আরও চারজন ঘনিষ্ঠ মিত্রও আক্রান্ত হয়েছেন করোনা ভাইরাসে। এদিকে একজন ঘনিষ্ঠ আক্রান্ত হওয়ায় প্রধানমন্ত্রী কে পি শর্মা ওলিও সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা।

দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দেওয়া হিসাব অনুযায়ী, নতুন করে একদিনে দুই হাজারের বেশি মানুষের দেহে সংক্রমণ শনাক্ত হওয়ার পর গত শুক্রবার নেপালে মোট আক্রান্তের সংখ্যা লাখ ছাড়িয়ে গেছে।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...