The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

শীতে খুশকি দূর করতে করণীয় জেনে নিন

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ অন্য সময়ের থেকে শীতের সময় বাড়ে খুশকির সমস্যা। চুল ঝরা, রুক্ষ চুল, বিভিন্ন ধরনের স্ক্যাল্প ইনফেকশনই মূলত খুশকি সমস্যার কারণ হয়ে থাকে।

শীতে খুশকি দূর করতে করণীয় জেনে নিন 1

শীতকাল এবং মাত্রাতিরিক্ত দূষণের কারণে চুল পড়া এবং খুশকির সমস্যা অন্য সময়ের চেয়ে একটু বেশিই দেখা দেয়। তাই ঠাণ্ডার সময় চুলের জন্য বাড়তি যত্ন নিতে হবে।

খুশকি সচরাচর তিন ধরনের হয় যেমন:

১। বড় ধরনের খুশকি
২। ছোট ধরনের খুশকি
৩। রক্তদানার মতো এক ধরনের খুশকি

কিছু প্রাকৃতিক উপাদান ব্যবহার করেও খুশকি সমস্যার সমাধান করা যায়। খুশকি তাড়াতে রয়েছে বেশ কিছু ঘরোয়া উপায়।

আজ জেনে নিই চুলের খুশকি তাড়ানোর ঘরোয়া কয়েকটি উপায়সমূহ:

# নারিকেল তেলই হলো খুশকির প্রকোপ। চুলের গোড়া ময়েশ্চারাইজ করে খুশকি ও স্ক্যাল্প ইনফেকশন কমাতে পারে। সপ্তাহে দুবার চুলের গোড়ায় নারিকেল তেলের মালিশ করলে আপনি দ্রুত উপকার পাবেন।

# আপনার খুশকিযুক্ত চুলে পেঁয়াজের রস ব্যবহার করতে পারেন। দুটো পেঁয়াজ ভালো করে বেটে এক মগ পানি মিশিয়ে নিয়ে মাথায় এই রস ভালো করে লাগিয়ে তাতে মালিশ করুন। কিছুক্ষণ পর আবার ধুয়ে ফেলুন। এভাবে সপ্তাহে দুবার পেঁয়াজের রস মাথায় মাখলে খুশকি দূর হয়ে যাবে।

# খুশকির সমস্যায় আরেকটি জিনিস হলো টকদই। আপনি টকদই ব্যবহার করতে পারেন। টকদই মাথার ত্বকে ভালোভাবে ম্যাসাজ করতে হবে। ১০ মিনিট রেখে তা ধুয়ে ফেলুন।

# দুই টেবিল-চামচ লেবুর রস অল্প পরিমাণ পানির সঙ্গে মিশিয়ে মাথার ত্বকে ভালোভাবে ম্যাসাজ করুন। ২-৫ মিনিট ম্যাসাজ করার পরই চুল ধুয়ে ফেলুন।

# কিছু পরিমাণ মেথি সারারাত পানিতে ভিজিয়ে সকালে ছেঁকে সেটি ভালো করে বেটে নিন। ছেঁকে নেওয়া পানিও ফেলে দেবেন না। এবার বেটে নেওয়া মেথি চুলের গোঁড়ায় মাথার ত্বকে ভালো করে লাগিয়ে নিতে হবে। ঘণ্টাখানেক রেখেই চুল ভালো করে ধুয়ে নিন। এতেও বেশ ফল পাবেন।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...