The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

কিউআর কোড ব্যবহারে যে বিষয়ে আপনাকে সাবধান হতে হবে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ ইন্টারনেট ব্যবহার যতো বাড়ছে নিরাপত্তার প্রশ্নটাও ততোই বড় হয়ে দেখা দিচ্ছে! বড় ও সুক্ষ্ম হ্যাকিংদের জালে নিজের অজান্তেই অনেক সময় চলে যাচ্ছে নিজের গুরুপ্তপূর্ণ তথ্য।

কিউআর কোড ব্যবহারে যে বিষয়ে আপনাকে সাবধান হতে হবে 1

ইন্টারনেটেও অন্য বিষয়গুলো বিশেষ করে এতোদিন কিউআর কোডের উপর বিশ্বাস থাকলেও এখন আর বিশ্বান রাখা যাচ্ছে না। এবার ব্যবহারকারীদের ভাবতে হবে কিউআর কোডের নিরাপত্তা এবং ব্যবহার নিয়ে!

যাকে বলা হয়, কুইক রেসপন্স কোড (QR Code) নিয়ে বর্তমানে অনেক জালিয়াতির ঘটনাও ঘটছে। যেমন- অনেক সময় হয়তো আপনাকে হোয়াটসঅ্যাপে বলা হলো যে, এই কোডটি স্ক্যান করুন। আপনি সেটি করলেন, এর মধ্যেই হ্যাকিং কিংবা তথ্য চুরি যে করতে চাইছে তার কাছে চলে যাবে আপনার সকল তথ্য। আপনি তখন বুঝতেও পারবেন না। এর মাধ্যমে আপনার অ্যাকাউন্টের টাকা ওই জালিয়াতদের অ্যাকাউন্টে গিয়ে ঢুকলেও আপনার তখন অবাক হবার কিছুই থাকবে না!

এই ধরনের ফাঁদে পা না দিতে চাইলে, আপনাকে অবশ্যই কাওকে আপনার কার্ড নাম্বার, তার এক্সপায়ারি ডেট, পিআইএন (PIN), ওটিপি (OTP) ইত্যাদি কখনই জানাবেন না। মনে করুন আপনাকে একটি মেসেজ বা ই-মেল মারফত একটি বার্তা পাঠানো হলো (যেটি আপনি মোটেই ভুয়ো ভাবছেন না)। সেখানে আপনাকে বলা হলো, আপনি ১০ হাজার টাকার লটারি জিতেছেন। সেটি পাওয়ার জন্য আপনার ইউপিআই পিআইএন (UPI pin) বলুন। এরপরই আপনার অ্যাকাউন্টে টাকাটা চলে যাবে। এবার ওই ইউপিআই পিআইএন নিয়ে আপনার কিউআর কোড স্ক্যান করা হবে। এটি করার পর আপনি ভাবলেন যে, মনে হয় এর ফলে ওই টাকা আপনার অ্যাকাউন্টে চলে এসেছে।

তবে যখনই আপনি আপনার পিআইএন দিলেন তখনি টাকা আপনার অ্যাকাউন্টে ঢোকার বদলে আপনার ওই টাকাই ওদের অ্যাকাউন্টে চলে গেলো। তাই সাবধান হোন। কিউআর কোড যতোটা কম ব্যবহার করা যাবে ততোই মঙ্গল হবে।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...