The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

হাসিমুখে ভিডিও রেকর্ড করার পর নদীতে ঝাঁপ দিয়ে তরুণী গৃহবধুর আত্মহত্যা! [ভিডিও]

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ ২৩ বছর বয়সী বিবাহিত তরুণী গৃহবধু আয়েশা। হাসিমুখে ভিডিও রেকর্ড করার পর ভারতের গুজরাটের আমদাবাদের সবরমতী নদীতে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন।

হাসিমুখে ভিডিও রেকর্ড করার পর নদীতে ঝাঁপ দিয়ে তরুণী গৃহবধুর আত্মহত্যা! [ভিডিও] 1

নদীতে ঝাঁপ দেওয়ার পূর্বে ওই তরুণী গৃহবধু হাসিমুখে বিশ্ববাসীর জন্য একটি শেষ বার্তা, একটি ভিডিও রেকর্ড করেন। সেটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে গেছে।

ভিডিও থেকে জানা যায়, ওই তরুণী গৃহবধুর নাম আয়েশা। ভিডিওটিতে তিনি জানিয়েছেন যে, তিনি নিজের ইচ্ছাতেই জীবন শেষ করছেন। যদিও তার বাবার অভিযোগ, পণের জন্য শ্বশুরবাড়ির নিরন্তর ঝামেলার কারণেই আত্মহত্যা করেছেন আয়েশা।

সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া আয়েশার রেকর্ড করা প্রায় দু’মিনিটের ভিডিওতেও শোনা যায় তার মনের কষ্টের কথা। তাকে বলতে শোনা গেছে, ‘যে সিদ্ধান্ত আমি নিতে চলেছি, এর জন্য কেও আমাকে চাপ দেয়নি। বুঝলাম আল্লাহ আমাকে ছোট্ট জীবনই দিয়েছেন। বাবা, তুমি আর কতো লড়বে? মামলা তুলে নাও। যে স্বাধীনতা চায় তাকে মুক্ত করে দাও।’

তারপর হাসিমুখে আয়েশা আরও বক্তব্য দেন, ‘আমি আমার জীবন শেষ করতে যাচ্ছি। আল্লাহর সঙ্গে দেখা হবে ভেবে আমি সত্যিই খুশি। দেখা হলে তাঁকে জিজ্ঞাসা করবো, কী ভুল আমি করেছি? আমার কী দোষ?’

আয়েশার শেষ মূহূর্তের উক্তি, ‘এমন সুন্দর একলা নদীর কাছে আমার অনুরোধ হলো, আমাকে যেনো এই নদী নিজের মধ্যে প্রবেশ করতে দেয়। আমি হাওয়ার মতো উড়ে যেতে চাই, ভেসে যেতে চাই।’

এই ঘটনা নিয়ে পুলিশ ইতিমধ্যেই তদন্ত শুরু করেছে। নদীতট থেকে আয়েশার দেহও উদ্ধার করা হয়। মেয়ের মৃত্যু নিয়ে আয়েশার বাবা লিয়াকত আলি জানিয়েছেন যে, রাজস্থানের জালোরের বাসিন্দা আরিফ খানের সঙ্গে তার মেয়ের বিয়ে হয় ২০১৮ সালের জুলাই মাসে।

তিনি বলেছেন যে, ‘‘বিয়ের পর হতেই পণের জন্য চাপ দিতে থাকে শ্বশুরবাড়ির লোকেরা। আমি কিছু টাকা দিয়েছি। তবে তাদের লোভ এতে আরও বেড়ে গিয়েছিল। কিছু মাস পূর্বে আয়েশার সঙ্গে ঝামেলা হয় আরিফের। তারপর আয়েশা এখানে ফিরেও আসে। তখনও ফোনে কথা হতো না ওঁদের মধ্যে।’’

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...