The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

‘মিস্টার বিন’–এর বায়োপিক আসছে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ তিনি পড়ালেখা করেছেন প্রকৌশলে। তবে তরুণ বয়সে রোয়ান অ্যাটকিনসনের (মিস্টার বিন) শখ ছিল ক্যামেরায় নিজের ভিডিও করা। কে জানতো যে একদিন তিনি হবেন পৃথিবীসেরা একজন কমেডিয়ান!

‘মিস্টার বিন’–এর বায়োপিক আসছে 1

এবার তাঁর বায়োপিক বানাতে তারুণ্যের নির্বাক সেই ভিডিওগুলোই ব্যবহার করা হবে! তবে বাস্তবতা এটিই। জনপ্রিয় চরিত্র মিস্টার বিন চরিত্রে রূপদানকারী রোয়ান অ্যাটকিনসনের বায়োপিক আসতে চলেছে রূপালি পর্দায়।

আত্মজীবনীমূলক এই ছবিতে ৬৬ বছর আগের সেই ফুটেজগুলোও ব্যবহার করা হবে। মিস্টার বিন অর্থই হলো হাসির ছড়াছড়ি। তবে বাস্তবের ‘মিস্টার বিন’ মানেই রোয়ান অ্যাটকিনসন খুবই গম্ভীর একজন মানুষ। বেশি কথা বলা তার একেবারেই পছন্দ নয়। মিস্টার বিন হয়ে ওঠা তার জন্য খুবই বিরক্তিকর একটা অভিজ্ঞতাও ছিল। ১৯৯০ সালে প্রথম তিনি এই চরিত্রে ছোট পর্দায় উঠে আসেন। এই শো প্রথম প্রচারিত হয় ১৯৯০ সালের জানুয়ারি হতে ১৯৯৫ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত। চরিত্রটিতে অভিনয়ের সময় রোয়ান কেবলই ভাবতেন যে, ‘কবে শেষ হবে তার এই যন্ত্রণা?’

যুক্তরাজ্যের নিউক্যাসল বিশ্ববিদ্যালয় হতে তড়িৎ প্রকৌশলে পড়াশোনা শেষ করে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে দ্য কুইনস কলেজ হতে একই বিষয়ে পিএইচডি করেন রোয়ান অ্যাটকিনসন। তাঁর জীবনের নানা অজানা অধ্যায় উঠে আসবে এই সিনেমাটিতে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে তার একজন কাছের বন্ধু মাইকেল ফেন্টন স্টিভেনস বলেছেন, ‘ক্যারিয়ারের একেবারে শুরু হতেই রোয়ান সবকিছু ভিডিও করে রেখেছেন। সেগুলোতে কোনোই কথা নেই। এই রকম অসংখ্য ফুটেজ রয়েছে তার কাছে। সেগুলো এবার কাজে লাগানো যাবে সিনেমায়। তার জীবন নিয়ে সিনেমা তৈরির প্রস্তুতিও চলছে।’ এসশোবিজ, দ্য মিরর, মাই লন্ডন, ভিআইপিসহ একাধিক গণমাধ্যমে বলা হয় যে, ছবিটিও হবে নির্বাক।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...