The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

পাকিস্তানী সিরিয়ালে আব্দুল আলীমের গান ভাইরাল [ভিডিও]

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ মাঝে মধ্যেই বাংলাদেশ ও ভারতের গান পাকিস্তানী সিরিয়ালে স্থান পাচ্ছে। যেমন কিছুদিন আগে ভারতীয় শিল্পীর গাওয়া গান দেওয়া হয়েছিলো। এবার বাংলাদেশের আব্দুল আলীমের গান ভাইরাল হলো।

পাকিস্তানী সিরিয়ালে আব্দুল আলীমের গান ভাইরাল [ভিডিও] 1

কিছুদিন আগেও ভাইরাল হয়েছিলো একটি ভিডিও। সেখানে দেখা যায় যে, পাকিস্তানের একটি সিরিয়ালে রবীন্দ্রসংগীত ‘আমারো পরান যাহা চায়’ গাইছেন একজন অভিনেত্রী। কোলকাতার এক শিল্পীর কণ্ঠের গানটি ব্যবহার করে বাংলা ভাষার দর্শকের নজর কেড়ে নিয়েছিলো সেই সিরিয়ালটি।

হঠাৎ করেই পাকিস্তানী সিরিয়ালে বাংলা গান ব্যবহারের বিষয়টি নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দেয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে।

অনেকেই পাকিস্তানী সেই সিরিয়ালের টিমকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন বাংলা ভাষার গান ব্যবহার করার জন্য। আসলে শিল্প সংস্কৃতির কোনো নির্দিষ্ট গন্ডি নেই, আসলে তার কোনো মানচিত্রও নেই। শিল্প সংস্কৃতির হাত ধরে পৃথিবীটা একটা পরিবার হিসেবেই হয়ে উঠতে পারে।

অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন, বাংলা ভাষা বিরোধী পাকিস্তানের শোবিজের মানুষরা কী বাংলার দর্শককে আকৃষ্ট করতেই এই কৌশল অবলম্বন করেছেন?

অনেকেই মনে করিয়ে দিয়েছেন, সিরিয়ালে পাকিস্তানীরা বাংলা ভাষার গান ব্যবহার করলেও তারাই ১৯৫২ সালে বাংলাদেশের মানুষের রক্ত ঝড়িয়েছিলো এই বাংলা ভাষাকে দমিয়ে রাখতে; এটা তাদের ভুলে গেলে চলবে না।

সাইফ হাসান পরিচালিত ‘সাঙ্গ এ মর মর’ ধারাবাহিকে বাংলাদেশের কিংবদন্তি সংগীতশিল্পী আব্দুল আলীমের গাওয়া ও আর এক কিংবদন্তি সংগীতব্যক্তিত্ব আব্দুল লতিফের লেখা ‘পরের জায়গা পরের জমি’ গানটি এক মহিলাকণ্ঠে ব্যবহার করা হয়। সেখানে দেখা যায়, ধারাবাহিকের একটি নারী চরিত্র সেই গানের তালে তালে বৃষ্টিতে নাচও করছেন।

আদিল হোসাইন নামে এক ভারতীয় ওই গানের ভিডিওটি টুইট করেছেন। সেই টুইটের মন্তব্য বাক্সেই বেশ কিছু নেটাগরিক জানিয়েছেন যে, তাদের মতে, পাকিস্তানী ধারাবাহিকে বাংলাদেশী দর্শক টানতেই এই কৌশল।

জানা যায়, ‘সাঙ্গ এ মর মর’ ধারাবাহিকটি ২০১৬ থেকে ২০১৭-এর মধ্যে সম্প্রচারিত হয়। সে ক্ষেত্রে সাম্প্রতিক সময় বাংলাদেশী দর্শক টানার প্রশ্নই আসে না।

দেখুন ভিডিওটি

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...