The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

পেটের রোগ এড়াতে উড্ডীয়ান মুদ্রা

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ পেটে অনেক ধরনের রোগই হয়ে থাকে। কিছু কিছু রোগ আছে খুবই ভয়ঙ্কর। এসব রোগ থেকে বাঁচার জন্য মুদ্রা ব্যায়ামের মতো খুবই কার্যকরী কিছু ব্যায়াম রয়েছে। এর মধ্যে একটা উড্ডীয়ান মুদ্রা।

uddiyan

এই ব্যায়ামের নিয়ম হলো, দম সম্পূর্ণ ছেড়ে বুকের পাঁজর ও ডায়াফ্রাম উপরদিকে তুলে ধরে এবং পেটের পেশি ভেতরের দিকে টেনে নিলে পেটের মধ্যে যে গর্ত হয়, তাকে উড্ডীয়ান বলে। এ জন্যই মুদ্রাটির নাম উড্ডীয়ান মুদ্রা। মুদ্রাটি বসে এবং দাঁড়িয়ে দুইভাবে করা যায়।

এই ব্যায়াম করার জন্য প্রথমে পদ্মাসনে বা সহজ আসনে বসুন। এবার দুই হাত দিয়ে দুই হাঁটু মাটির সঙ্গে চেপে ধরুন অথবা পা দুটো প্রায় দেড় ফুট ফাঁক করে দাঁড়ান। এখন একটু সামনের দিকে ঝুঁকে হাঁটু সামান্য ভেঙে হাত দুটো উরুর উপর রাখুন। ঘাড় ও কাঁধের মাংসপেশি দৃঢ় করে দেহের মধ্য অংশের মাংসপেশি শিথিল করে দিন। এবার ধীরে ধীরে দম ছেড়ে দিয়ে পেট একেবারে খালি করে দিন এবং দম বন্ধ রেখে পেটের উপরিভাগ যতটা সম্ভব ভেতরের দিকে টেনে মেরুদণ্ডের সঙ্গে লাগাতে চেষ্টা করুন। বুকের পাঁজর ও ডায়াফ্রাম উপরে উঠে আসবে এবং তলপেট সঙ্কুচিত হবে। যতক্ষণ সম্ভব এ অবস্থায় থাকুন। এরপর ঘাড় ও কাঁধের মাংসপেশি শিথিল করে ধীরে ধীরে দমভরে শ্বাস নিন। সোজা হয়ে দাঁড়িয়ে সামান্য বিশ্রাম নিয়ে মুদ্রাটি আবার করুন। এভাবে ১০/১২ বার মুদ্রাটি অভ্যাস করুন এবং প্রয়োজন মতো শবাসনে বিশ্রাম নিন। পদ্মাসনে বসে মুদ্রাটি একইভাবে করতে হয়। তবে এ ক্ষেত্রে পা বদল করে মুদ্রাটি অভ্যাস করতে হবে। অবশ্যই এ মুদ্রা খালিপেটে করা উচিৎ।

উড্ডীয়ান তলপেট ও বুকের ডায়াফ্রামের জন্য একটি উত্তম ব্যায়াম। এতে প্যানক্রিয়াস ও অ্যাড্রিনাল গ্রন্থিরও খুব ভালো ব্যায়াম হয়। মুদ্রাটি অভ্যাস রাখলে কোষ্ঠবদ্ধতা, অজীর্ণ, অম্লশূল, পিত্তশূল, অন্ত্রক্ষত প্রভৃতি রোগ সহজে হতে পারে না। উড্ডীয়ানে পেটের রেকটাস নামক পেশিদ্বয় সতেজ ও দৃঢ় থাকে এবং তলপেটের দেহযন্ত্রগুলো সবল ও সক্রিয় থাকে।

এতে ক্ষুদ্র ও বৃহদন্ত্র সঙ্কুচিত হয় বলে অজীর্ণ ও সঞ্চিত খাদ্যাংশ ও মল সব মলনাড়িতে চলে যায়। ফলে সহজে কোষ্ঠবদ্ধতা দূর হয়ে যায়।

পেটে দূষিত বায়ু জমতে পারে না। এ মুদ্রা অভ্যাসে ডায়াফ্রাম বিশেষভাবে ওঠা-নামা করে বলে ফুসফুস ও হৃৎপিণ্ডের কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি পায় এবং সহজে কোনো ব্যাধি হতে পারে না।

তবে এই মুদ্রা করার ক্ষেত্রে বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। বিশেষ করে যাদের হৃদরোগ, হার্নিয়া, হাইড্রোসিল, একশিরা, অ্যাপেন্ডিসাইটিস, অন্ত্রক্ষত প্রভৃতি রোগ আছে অথবা যাদের প্লিহা ও যকৃত অস্বাভাবিক বড়, তাদের রোগ নিরাময় না হওয়া পর্যন্ত মুদ্রাটি অভ্যাস করা উচিত নয়। ১২ বছরের কম বয়সী ছেলেমেয়েদের জন্যও মুদ্রাটি অভ্যাস করা ঠিক হবে না। এই মুদ্রাটির মাধ্যমে আপনার শরীর রাখতে পারেন সতেজ। সকলেই এই উড্ডীয়ান মুদ্রার নিয়ম মেনে চললে তাদের দেহের অনেক ধরনের সমস্যা দূর হবে। তথ্যসূত্র: অনলাইন

Loading...