The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

ডেটলাইন ২৯ ডিসেম্বর: ঢাকামুখী সবধরণের যান চলাচল বন্ধ

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে রাজধানী অভিমুখে কোন দূরপাল্লার বাস চলছে না। অর্থাৎ আবারও অবরোধ শুরু হয়েছে। তবে এবার ১৮ দলের অবরোধ নয়।


28-12-13

বিএনপি নেতৃত্বাধীন ১৮ দলীয় জোটের নতুন কর্মসূচি ‘মার্চ ফর ডেমোক্রেসি’ আগামীকাল ২৯ ডিসেম্বর। এই কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে ইতিমধ্যেই ১৮ দল ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে। কিন্তু গতকাল থেকেই রাজধানী অভিমুখী দূরপাল্লার কোন বাস চলাচল করছে না। ঢাকা মেট্রো পলিটান পুলিশ ইতিমধ্যেই নয়াপল্টনে সমাবেশের অনুমতি না দেওয়ার কথা জানিয়ে দিয়েছে। নিরাপত্তার ব্যাঘাত ঘটতে পারে এমন আশংকায় সমাবেশের অনুমতি দেয়নি ডিএমপি।

গণতন্ত্র রক্ষায় বিরোধী দল বিএনপি ও জোট দলগুলোর ২৯ ডিসেম্বরের ‘মার্চ ফর ডেমোক্রেসি’ গণজমায়েত ঠেকাতে ঢাকাগামী বাস ও লঞ্চ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। খুলনা, বরিশাল, রাজশাহী ও রংপুর বিভাগ থেকে ঢাকামুখী ইতিমধ্যে সবধরণের যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। ফলে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে রাজধানী। সাধারণ মানুষ অনেকেই ঢাকায় আসতে গিয়ে আটকে গেছেন ওই সমস্ত স্থানে। বাসস্ট্যান্ডে এসে ঘণ্টার পর ঘণ্টা বসে থেকে কোন বাস পাচ্ছেন না।

উল্লেখ্য, ৫ জানুয়ারি দশম জাতীয় নির্বাচন প্রতিহত করতে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ১৮ দলীয় জোটের ২৯ ডিসেম্বর ‘গণতন্ত্রের অভিযাত্রা’ কর্মসূচিকে ঠেকাতেই সরকারের নির্দেশেই পরিবহন মালিকরা যান চলাচল বন্ধ করে দিয়েছেন বলে প্রচার করা হলেও বাস মালিকরা অবশ্য এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তারা বলছেন, সহিংসতা হলে তাদের গাড়ির ক্ষতি হতে পারে এমন আশংকায় তারা বাস বন্ধ রেখেছেন।

এরই মধ্যে বরিশাল, খুলনা ও রাজশাহী বিভাগের বেশিরভাগ জেলার বাসগুলোর ঢাকা যাত্রা বাতিল করা হয়েছে। রংপুর-ঢাকা সড়কের সব যান চলাচলও বন্ধ করা হয়েছে। বরিশাল থেকে ঢাকাগামী সব লঞ্চের যাত্রাও বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে।

১৮দলীয় জোটের ডাকা রোববারের ‘মার্চ ফর ডেমোক্রেসি’ কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে রাজশাহী-ঢাকা রুটে বাস চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে পরিবহণ মালিকরা বাস চলাচল বন্ধ করে দেন। অনেক বাস মালিক টিকিটও বিক্রি করেছিলেন সন্ধ্যার পরের যেসব টিকিট বিক্রি হয়েছিলো তা পরে ফেরত দেয়া হয়।

রাজশাহী মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি কামাল হোসেন সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন, ফেডারেশনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী শুক্রবার সন্ধ্যা থেকে শুধুমাত্র রাজশাহী-ঢাকা রুটে বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। তিনি বলেন, রোববার সন্ধ্যা পর্যন্ত বন্ধ থাকবে।
তিনি আরও বলেন, রোববারের কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে সহিংসতার আশঙ্কায় শুক্রবার সন্ধ্যা থেকে রাজশাহী-ঢাকা রুটে বাস চলাচল বন্ধের সদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

চুয়াডাঙ্গা থেকে ঢাকা অভিমুখী বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। অপরদিকে বরিশাল থেকে ঢাকামুখী বাস ও লঞ্চ চলাচল বন্ধ রেখেছেন পরিবহন মালিকরা। ঢাকায় মার্চ ফর ডেমোক্রেসি কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে রংপুর থেকে ঢাকাগামী সব যাত্রীবাহী কোচ চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। কোনো পূর্বঘোষণা ছাড়াই এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বাস মালিকরা। রোববার রাত পর্যন্ত রংপুর থেকে কোনো গাড়ি ঢাকায় যাবে না বলে জানানো হয়েছে।

রাজধানী ঢাকায় প্রধান বিরোধীদল বিএনপির ‘গণতন্ত্রের জন্য ঢাকামুখী অভিযাত্রা’ কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে ভোলা থেকে ঢাকা যাওয়ার যোগাযোগের সব পথ বন্ধ হয়ে গেছে। বিএনপি অভিযোগ করেছে দলীয় নেতা-কর্মীরা যাতে ঢাকার গণজমায়েতে যোগ দিতে না পারে সেজন্য সরকার সব পথ বন্ধ করে দিয়েছে।

খালেদা জিয়ার ভিডিও বার্তা

গণতন্ত্র রক্ষার আন্দোলনে সব বাধা উপেক্ষা করে আগামী রোববার নয়াপল্টনে হাজির হতে দেশবাসীর প্রতি আহ্‌বান জানিয়েছেন বিরোধী দলীয় নেতা বেগম খালেদা জিয়া। কোনো কারণে তিনি পাশে থাকতে না পারলেও সরকার পতন না হওয়া পর্যন্ত নেতাকর্মীদের আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। ১ মিনিট ৫৮ সেকেণ্ডের ওই ভিডিও বার্তায় তিনি এ আহ্বান জানান।

ভিডিও বার্তায় নেতাকর্মী ও জনগণের উদ্দেশে খালেদা জিয়া আরও বলেন, গণজমায়েতে কোনো কারণে পাশে থাকতে না পারলেও আন্দোলন চালিয়ে যান। এই সরকারের পতন না হওয়া পর্যন্ত মাঠে থাকবেন। বহু রক্তের বিনিময়ে গণতন্ত্র এনেছি আমরা, এদেশের গণতন্ত্র আমরাই রক্ষা করবো।

উল্লেখ্য, ৫ জানুয়ারির দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন প্রতিহত করতে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ১৮ দলীয় জোটের পক্ষ থেকে বেগম খালেদা জিয়া সাংবাদিক সম্মেলন করে ২৯ ডিসেম্বর ‘গণতন্ত্রের অভিযাত্রা’ কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...