সিঙ্গাপুরে জনসংখ্যা বাড়ানোর জন্য নতুন মন্ত্রণালয়!

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ জনসংখ্যা বৃদ্ধি রোধের জন্য বিশ্বের অন্যান্য দেশ যখন নানা কর্মসূচি নিয়ে এগিয়ে চলেছে, তখন সিঙ্গাপুরে জনসংখ্যা বাড়ানোর জন্য নতুন মন্ত্রণালয় করার চিন্তা-ভাবনা করছে বলে খবর বেরিয়েছে।

অনলাইন নিউজে বলা হয়েছে, সিঙ্গাপুরের তরুণ-তরুণীরা বিয়ে করতে এবং সন্তান নিতে অনিচ্ছুক। ফলে বেশ চিন্তিত দেশটির সরকার। সমস্যার সমাধানে নতুন একটি মন্ত্রণালয় খোলার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। নভেম্বর থেকে কাজ শুরু করবে এই মন্ত্রণালয়। খবর ডয়েচে ভেলের। সামপ্রতিক এক জরিপে দেখা গেছে, সিঙ্গাপুরে ৩০ থেকে ৩৪ বছর বয়সী তরুণদের ৪৪ শতাংশ এখনো বিয়ে করেনি। মেয়েদের মধ্যে এই হার ৩১ শতাংশ। ৩২ বছর বয়সী তরুণী মেরি চ্যান বলেন, আমি আমার সমস্ত শক্তি ক্ষয় করে লেখাপড়া শিখে ভাল একটা চাকরিতে ঢুকেছি। দামি জুতা আর হাতব্যাগ কেনা আমার শখ। সন্তান থাকলে সেই শখ পূরণ সম্ভব নয়। এই যে সমস্যা তার কথা কিন্তু শোনা যাচ্ছে অনেকদিন ধরেই। ফলে তরুণরা যেন বিয়ে করতে এবং সন্তান নিতে আগ্রহী হয় সেজন্য সরকারের পক্ষ থেকে আগেও চেষ্টা করা হয়েছে। যেমন ঘটক প্রতিষ্ঠানগুলোকে সহায়তা, মাতৃকালীন ছুটির সময়সীমা বৃদ্ধি, সন্তান নেয়ার জন্য আর্থিক সহায়তা প্রদান ইত্যাদি। কোনো দম্পতি যদি প্রথম সন্তান নেয় তাহলে বোনাস হিসেবে তাদেরকে সরকারের পক্ষ থেকে প্রায় সাড়ে ছয় লাখ টাকা পর্যন্ত দেয়া হয়। পরবর্তীতে আবারও সন্তান নিলে আবারও বোনাস দেয় সরকার। কিন্তু এসব সুযোগ-সুবিধার পরও কেন তরুণরা আগ্রহী হচ্ছে না তার কারণ খুঁজতে এখন ব্যস্ত সরকার। তবে সিঙ্গাপুরের ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক তান এরনসের মনে করেন, বর্তমান যুগে সন্তান লালন-পালন বেশ ব্যয়বহুল একটা ব্যাপার হয়ে উঠেছে। ফলে তরুণরা সেদিকে আগ্রহী হচ্ছে না। তার এই মন্তব্যের সমর্থন পাওয়া যায় দুই সন্তানের মা জেনেভিভে লির কথায়।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...