শিম্পাঞ্জি মানুষের সঙ্গে কথা বলতে পারে!

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ মানুষ মানুষের সঙ্গে কথা বলে এটাই স্বাভাবিক নিয়ম কিন্তু যদি কখনও শোনা যায় কোন পশু মানুষের সঙ্গে কথা বলছেন তখন সেটি শুনতে কতটা অদ্ভুত লাগবে একবার ভাবুন! এমনই একটি ঘটনার খবর পাওয়া গেছে বনোবো প্রজাতির এক শিম্পাঞ্জি কম্পিউটার ব্যবহার করে মানুষের সঙ্গে কথা বলতে সক্ষম হয়েছে।


বিজ্ঞান সাময়িকী “নেচার” জানিয়েছে, দুই বছর বয়সের এই বনোবো একটি পাতলা ফলক ও বিশেষ সফটওয়্যার ব্যবহার করে মানুষের সঙ্গে কথা বলতে পেরেছে। ‘তাকো’ নামের এই বনোবো তার জন্য বিশেষভাবে নির্মিত এই সফটওয়্যার ব্যবহার করে কয়েক হাজার শব্দ তৈরি করতে সক্ষম হয়েছে। মজার
ব্যাপার হল, সে এইসব শব্দমালাকে একের পর এক সাজিয়ে বাক্য রচনা ও কিছু সরল প্রশ্নও তৈরি করেছে। এমনকি ওই সফটওয়্যার ব্যবহার করে তাকো কৌতুক বর্ণনা করতে পারে।

বনোবোদের দেখতে শিম্পাঞ্জির মত মনে হলেও এদের শারীরিক বৈশিষ্ট্য ও আচরণ ভিন্ন ধরনের। এরা শিম্পাঞ্জির চেয়ে বেশি সামাজিক এবং মানুষের ভাষার সঙ্গে মানিয়ে চলার ব্যাপক ক্ষমতা রয়েছে বুদ্ধিমান এই প্রাণীর। দুর্লভ প্রজাতির এই শিম্পাঞ্জির মুখ কালো এবং এর রয়েছে কালো চুল। আফ্রিকার কঙ্গো গণতান্ত্রিক প্রজাতন্ত্রের জায়ারের গভীর বনে দেখা যায় এ জাতীয় শিম্পাঞ্জি। এদের সংখ্যা দশ থেকে ৫০ হাজার।

বানর জাতীয় জন্তুকে নিয়ে এ ধরনের গবেষণার ফলাফল প্রাথমিক যুগের জীবজন্তুর আচার-আচরণ এবং হোমোসেপিয়ান্স প্রজাতিগুলোর সামাজিকতা, ভাষা ও সংস্কৃতির উতস সম্পর্কে নানা তথ্য উদঘাটনে সহায়তা করবে বলে একদল বিজ্ঞানী মনে করছেন।

Advertisements
Loading...