The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

redporn sex videos porn movies black cock girl in blue bikini blowjobs in pov and wanks off.

বিশ্বকাপ ফাইনালে আর্জেন্টিনার পরাজয়ের কারণ ম্যাচ ফিক্সিং ছিলোনা [টুইট রহস্য উম্মচিত]

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ ম্যাচ গড়াপেটার অভিযোগ উঠল বিশ্বকাপে, তাও আবার আর্জেন্টিনা জার্মানির ফাইনাল ম্যাচে! কিন্তু ফিফার নাকের ডগা থেকে এমন সাহসও দেখাতে পারে কেউ? অন্তত একটি টুইটার অ্যাকাউন্ট এমনটিই দাবি করেছে।


BsdRRx0CIAA8A4F.jpg large

বিশ্বকাপের ম্যাচ পাতানো হয়েছে এমন খবর কোন আন্তর্জাতিক তদন্ত সংস্থা দেয়নি, দিয়েছে একটি সাধারণ টুইটার একাউন্ট। নির্ভরযোগ্য তেমন কোনো সংবাদমাধ্যমে এ খবর প্রকাশিত হয়নি। তথ্যটি এসেছে একটি টুইটার অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে। ফিফার দুর্নীতি (ফিফা করাপশন) নামে ওই টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে দাবি করা হয়, ফিফা নিজেই ফাইনাল ফিক্সিংয়ের সাথে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত। টুইটার অ্যাকাউন্টটির নামও তারা এজন্য বেশ সতর্কতার সাথেই রেখেছে।

১২ জুলাই, বাংলাদেশ সময় রাত ১০টা ১৮ মিনিটে ফিফা করাপশন একাউন্ট থেকে টুইট করা হয়, ‘ফিফা দুর্নীতিগ্রস্ত, প্রমাণ দেয়া হচ্ছে।’ এরপর রাত ১০টা ১৯ মিনিটে টুইট করা হয়, ‘আগামিকাল জার্মানি ১-০ গোলে জয়লাভ করবে।’ রাত ১০টা ২৪ মিনিটে জানানো হয়, ‘জার্মানি অতিরিক্ত সময়ে জয়লাভ করবে’। এরপর ১০টা ২৫ মিনিটেই টুইট করা হয় যে, ‘জার্মানির পক্ষে গোতজে গোল করবে’। রাত ১০টা ২৮ মিনিটে ওই একাউন্ট থেকে শেষ টুইট করা হয়। সেটাতে বলা হয়, ‘খেলার অতিরিক্ত সময়ের দ্বিতীয়ভাগে জয়সূচক গোলটি করা হবে।’

সন্দেহ ভাজন এই টুইটার একাউন্ট থেকে দেয়া টুইট অনুযায়ী দেখা গেছে খেলার ফলাফল এবং গোল হয়েছে, তাহলে প্রশ্ন হচ্ছে এটি কি সত্যি ছিলো? ফিফা কি আগে থেকেই ফল ঠিক করে দিয়েছিলো?

২৪ ঘণ্টা কাটতেই এই টুইট নিয়ে বিশ্ব জুড়ে আলোড়ন পড়ে গেছে। এমন অক্ষরে অক্ষরে কি করে মেলে টুইট! সবাই ধন্ধে। খেলা শেষ হওয়ার সময়ও টুইট অ্যাকাউন্টটির ফলোয়ারের সংখ্যা ছিল মাত্র ১ হাজার। এখন ৫০ হাজারের কাছাকাছি পৌঁছে গেছে। এর আগেও ফিফা স্বীকৃত বিভিন্ন দেশের ফুটবল লীগে বহুবার ম্যাচ ফিক্সিংয়ের অভিযোগ উঠেছে। কিছু ক্ষেত্রে তা প্রমাণিতও হয়েছে।

ফিফা অবশ্য এমন কান্ড আমলেই নিচ্ছেনা, তারা একে স্রেফ কাকতালিও বলেই বলেই উড়িয়ে দিচ্ছে। সংস্থাটির মুখপাত্রের দাবি, এটি কারও আবেগের বহিঃপ্রকাশ মাত্র। এর আগেও একটি ম্যাচ নিয়ে এমন একটি খবর চাউর হয়েছিল। পরবর্তীকালে ফিফার তদন্তে অভিযোগটি মিথ্যা প্রমাণিত হয়।

আপডেট-

অবশেষে রহস্য জনক এই টুইটার অ্যাকাউন্ট রহস্য উম্মচিত হয়েছে। ফিফার দুর্নীতি (ফিফা করাপশন) নামে ওই টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে এমন ভাবে টুইট গুলো করা হয়েছিল যেখানে ফাইনালের সকল খেলোয়াড়ের নামে গোল স্কোর এবং সব ধরণের অগ্রীম ভবিষ্যৎ বানী ছিলো। তবে ম্যাচ শেষে খুব সূক্ষ্ম ভাবেই ম্যাচের ফলাফল, গোল স্কোরের সময় এবং যে গোল করেছে তা রেখে বাকি টুইট গুলো মুছে দেয়া হয়।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...
sex không che
mms desi
wwwxxx