The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

অ্যাপল-স্যামসাং চুক্তিঃ মামলা চলবে কেবল যুক্তরাষ্ট্রে

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ অ্যাপল আর স্যামসাং এর মধ্যে দীর্ঘদিন যাবত চলা রেষারেষির একটা দফারফা হতে যাচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্র ব্যতীত অন্যান্য সকল দেশে চলমান সব মামলার মিটমাট করতে যাচ্ছে তারা। এজন্য একটি যৌথ চুক্তিতেও স্বাক্ষর করতে সম্মত হয়েছে এই দুই বৃহৎ প্রযুক্তি পণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠান।


AppleSamsungRuling_610x426

এই দুই জায়ান্টের রেষারেষির গল্পের শুরু ২০১১ সালে। অ্যাপল যুক্তরাষ্ট্রের আদালতে স্যামসাংয়ের বিরুদ্ধে পেটেন্ট ভঙ্গের অভিযোগে মামলা করে। মামলায় অভিযোগ করা হয়, আইফোন ও আইপ্যাড থেকে নকল করে গ্যালাক্সি সিরিজের পণ্য তৈরি করছে স্যামসাং। এছাড়া ‘স্লাইড টু আনলক’ ফিচারও নকল করছে তারা। অ্যাপলের মামলার পর স্যামসাংও বিভিন্ন দেশের আদালতে পেটেন্ট ভঙ্গের অভিযোগে অ্যাপলের বিরুদ্ধে মামলা করে। তাদের অভিযোগ- ফটো সিনক্রোনাইজেশন, বিভিন্ন পণ্যের মধ্যে মিউজিক ও ভিডিও ফাইল স্থানান্তর ফিচার নকল করছে অ্যাপল। পাল্টাপাল্টি মামলার ফলে তখন থেকেই দুটি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শত্রুতা শুরু হয়।

Apple-vs.-Samsung

বিশ্বের নয়টি দেশে মামলা চললেও যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন আদালতে করা মামলাগুলোই প্রধান। এখন পর্যন্ত চলা মামলাগুলোর মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে দুটি মামলার রায় অ্যাপলের পক্ষে গেছে। চলতি বছরের মে মাসে একটি মামলার রায়ে অ্যাপলের দুটি পেটেন্ট ভঙ্গের দায়ে স্যামসাংকে ১১ কোটি ৯৬ লাখ ডলার জরিমানা করা হয়। এই মামলায় ২২০ কোটি মার্কিন ডলার ক্ষতিপূরণ দাবি করেছিল অ্যাপল। উক্ত রায়ে আদালত স্যামসাংয়ের একটি পেটেন্ট লঙ্ঘনের অভিযোগে অভিযুক্ত করেছে অ্যাপলকে। এজন্য অ্যাপলকে এক লাখ ৫৮ হাজার ডলার জরিমানা করা হয়। আরো দুটি পেটেন্ট অ্যাপল লঙ্ঘন করেছে এ অভিযোগে ৬০ লাখ ডলার ক্ষতিপূরণ দাবি করেছে স্যামসাং। ২০১২ সালে অপর একটি মামলায় আদালত অ্যাপলকে জয়ী ঘোষণা করে ১০৫ কোটি ডলার জরিমানা করে স্যামসাংকে। মামলাটি এখনও চালিয়ে যাচ্ছে স্যামসাং।

বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের বাইরে যুক্তরাজ্য, দক্ষিণ কোরিয়া, জাপান ও জার্মানিসহ নয়টি দেশে পেটেন্ট ভঙ্গের অভিযোগে অ্যাপল ও স্যামসাং পরস্পরের বিরুদ্ধে মামলা চালিয়ে যাচ্ছে। মামলায় কোনো দেশে অ্যাপল জিতেছে তো কোনো দেশে স্যামসাং। কিন্তু পরিষ্কারভাবে জয়ী হয়নি কেওই। তিন বছরেরও বেশি সময় ধরে মামলাগুলো চলছে। কিন্তু কোন রকম স্থায়ী সমাধান আসেনি।

অবশেষে রফা হতে চলেছে। শুধু যুক্তরাষ্ট্রে মামলা চলবে। এর বাইরে বিশ্বের অন্যান্য দেশে পরস্পরের বিরুদ্ধে সব মামলার মিটমাট হবে। এজন্য একটি যৌথ চুক্তিতেও স্বাক্ষর করতে সম্মত হয়েছে তারা।

বর্তমানে স্মার্টফোন ও ট্যাবলেটের বাজারে পরস্পরের প্রতিদ্বন্দ্বী মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠান অ্যাপল আর দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিষ্ঠান স্যামসাং। বাজার দখলে উভয় প্রতিষ্ঠান নিজেদের অবস্থান পরিষ্কার করতেই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

তথ্যসূত্রঃ businessinsider

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...