গুগল ম্যাপ লেভেলক্রসিংয়ে দুর্ঘটনা কমাতে সাহায্য করবে!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ তথ্য প্রযুক্তি দুনিয়ার সব কিছুকেই সহজ করে তুলছে। গুগল ম্যাপ লেভেলক্রসিংয়ে দুর্ঘটনা কমাতে সাহায্য করবে। চলন্ত গাড়ির চালককে সামনে থাকা লেভেলক্রসিংগুলোর ব্যাপারে আগেই সতর্ক করবে গুগল ম্যাপের এক নতুন ফিচার।

Google Map will help reduce accidents

সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, তথ্য প্রযুক্তি দুনিয়ার সব কিছুকেই সহজ করে তুলছে। গুগল ম্যাপ লেভেলক্রসিংয়ে দুর্ঘটনা কমাতে সাহায্য করবে। চলন্ত গাড়ির চালককে সামনে থাকা লেভেলক্রসিংগুলোর ব্যাপারে আগেই সতর্ক করবে গুগল ম্যাপের এক নতুন ফিচার। রেলপথের ক্রসিংগুলোতে দুর্ঘটনা কমানোর জন্য যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রেইল রোড অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফআরএ) শরণাপন্ন হলো গুগল ম্যাপের। রাস্তায় চলন্ত গাড়ির চালককে সামনে থাকা লেভেলক্রসিংগুলোর ব্যাপারে আগে থেকেই সতর্ক করবে গুগল ম্যাপের এই নতুন ফিচারটি। দ্য নিউইয়র্ক টাইমসের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিটি লেভেলক্রসিংই দৃশ্যমান হবে গুগল ম্যাপে। কোনো গাড়ি যদি ক্রসিংগুলোর কোনো একটির দিকে এগোতে থাকে, তখন সঙ্গে সঙ্গেই গুগল ম্যাপ চালককে সতর্ক করে দেবে। অডিও ও ভিজ্যুয়াল দুই ধরনের নোটিফিকেশনই চালকের নিটক তাৎক্ষণাত পৌঁছাবে।

এই ফিচারের মাধ্যমে গাড়িচালকরা আরও সতর্ক হবেন লেভেল ক্রসিংগুলোর ব্যাপারে এমনটিই আশা করা হচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্রের ক্রসিংগুলোতে প্রায় ৯৪% দুর্ঘটনার মুল কারণ হচ্ছে গাড়ি চালানোর সময় চালকদের অমনোযোগী থাকা। যুক্তরাষ্ট্রের ওই সংস্থা এফআরএ জানায়, বেশির ভাগ দুর্ঘটনা ঘটে থাকে চালকের ট্রেনকে ক্রস করার প্রবণতা বা কখন ট্রেন আসছে তার সময় সম্পর্কে ধারণা না থাকার জন্য। গুগল ম্যাপের নতুন ফিচারের মাধ্যমে এই সমস্যাগুলো উল্লেখযোগ্য হারে কমে আসবে এবং দুর্ঘটনার পরিমাণ অনেক কমবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

এএফআর আরও জানিয়েছে, অ্যাপলসহ অন্যান্য ম্যাপ মেকারদের সঙ্গেও এই ফিচারের ব্যাপারে কথা হয়েছে। তবে এখনও অ্যাপল হতে কোনো জবাব পাওয়া যায়নি এ বিষয়ে। এফআরএ এবং যুক্তরাষ্ট্রের ডিপার্টমেন্ট অব ট্রান্সপোর্টেশন বেশ কয়েকদিন ধরেই রেভেলক্রসিংয়ে দুর্ঘটনা কমানোর জন্য চেষ্টা চালিয়ে আসছে।

উল্লেখ্য, যুক্তরাষ্ট্রে ২০১২ সালে লেভেলক্রসিংয়ে দুর্ঘটনার সংখ্যা ছিল ২ হাজারেরও অনেক কম। কিন্তু ২০১৪ সালে সেটি বেড়ে দাঁড়ায় ২ হাজার ৩০০টিরও বেশি। এই প্রযুক্তিটি যুক্তরাষ্ট্রে সফল হলে বাংলাদেশসহ বিশ্বের অন্যান্য দেশও এটি ব্যবহার করতে পারবে।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...