আপডেট নিউজ: প্রাথমিক সমাপনী ও জেএসসির ফল প্রকাশিত

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ প্রাথমিক সমাপনী ও জেএসসির ফল প্রকাশিত হয়েছে। পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণীর সমাপনী পরীক্ষার শিক্ষার্থীর ফল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে তুলে দিয়েছেন দুই মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীরা।

initial closing of JSC published

আজ বৃহস্পতিবার সকালে গণভবনে এক অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এবারের জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) এবং জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষার ফলের অনুলিপি প্রধানমন্ত্রীর হাতে তুলে দিয়েছেন। শিক্ষামন্ত্রীর পর ৮টি শিক্ষা বোর্ড ও মাদ্রাসা বোর্ডের চেয়ারম্যানরা যার যার বোর্ডের ফলের অনুলিপি তুলে দেন প্রধানমন্ত্রীর হাতে। এখন পুরো ফলের অপেক্ষায় রয়েছেন ৫৬ লাখ শিক্ষার্থী।

অপরদিকে জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) এবং জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষায় ফলাফলের অনুলিপি প্রধানমন্ত্রীর কাছে হস্তান্তর করেছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার। পরে ১৭ জন শিক্ষার্থীর হাতে নতুন বই তুলে দিয়ে এবারের পাঠ্যপুস্তক উৎসবের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী।

পাসের হার ও জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা অন্যবছর গণভবনের অনুষ্ঠানেই জানিয়ে দেওয়া হলেও এবার তা এখনও করা হয়নি।

সচিবালয়ে বেলা সাড়ে ১২টায় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী এবং বেলা দেড়টায় শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে ফলাফলের বিভিন্ন দিক তুলে ধরবেন বলে জানানো হয়েছে। ওই সংবাদ সম্মেলনের পরেই মূলত শিক্ষার্থীরা ফলাফল জানতে পারবেন।

গত ১ হতে ১৮ নভেম্বর জেএসসি-জেডিসিতে অংশ নেন ২৩ লাখ ২৫ হাজার ৯৩৩ জন শিক্ষার্থী। এরপর ২২ হতে ৩০ নভেম্বর ৩২ লাখ ৫৪ হাজার ৫১৪ জন শিক্ষার্থী প্রাথমিক এবং ইবতেদায়ী সমাপনী পরীক্ষায় অংশ নেয়।

ফলাফল মোবাইলে জানা যাবে

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর (www.dpe.gov.bd) ও টেলিটকের ওয়েবসাইট (http://dpe.teletalk.com.bd) হতে প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী সমাপনীর ফলাফল জানা যাবে।

এছাড়া যেকোনো মোবাইল ফোন হতে DPE লিখে স্পেস দিয়ে থানা/উপজেলার কোড নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে তারপর স্পেস দিয়ে ২০১৫ লিখে ১৬২২২ নম্বরে এসএমএস পাঠিয়েও ফলাফল জানতে পারবেন শিক্ষার্থীরা।

অপরদিকে ইবতেদায়ীর ফলাফলের জন্য EBT লিখে স্পেস দিয়ে থানা/উপজেলার কোড নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে তারপর স্পেস দিয়ে ২০১৫ লিখে ১৬২২২ নম্বরে এসএমএস পাঠালে ফলাফল জানা যাবে।

এই এসএমএস লেখার সময় সরকারি কিংবা রেজিস্টার্ড বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের EMIS কোড নম্বরের প্রথম ৫ সংখ্যা উপজেলা/থানা কোড হিসেবে ব্যবহার করতে হবে; যেটি প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের ওয়েবসাইট, সংশ্লিষ্ট জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস, উপজেলা/থানা শিক্ষা অফিস এবং প্রাথমিক বিদ্যালয় হতেও জানা যাবে।

আর শিক্ষাবোর্ডগুলোর ওয়েবসাইট www.educationboardresults.gov.bd ছাড়াও সংশ্লিষ্ট বোর্ডের ওয়েবসাইট হতে জেএসসি-জেডিসির ফলাফল জানতে পারবেন শিক্ষার্থীরা।

আবার যেকোনো মোবাইল হতে JSC/JDC লিখে স্পেস দিয়ে নিজ বোর্ডের নামের প্রথম ৩ অক্ষর লিখে স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে তারপর স্পেস দিয়ে ২০১৫ লিখে এসএমএস করলেও ফিরতি এসএমএসে ফলাফল জানিয়ে দেওয়া হবে বলে সংবাদ মাধ্যম সূত্রে জানা যায়।

প্রাথমিক সমাপনীতে (পিইসি) এবছর পাসের হার ৯৮.৫২ শতাংশ।
ঢাকা বিভাগে এবার পাসের হার ৯৮.৭৪ শতাংশ
রাজশাহী বিভাগে এবার পাসের হার ৯৯ শতাংশ
খুলনা বিভাগে এবার পাসের হার ৯৮.৯৭ শতাংশ
চট্টগ্রাম বিভাগে এবার পাসের হার ৯৮.৪১ শতাংশ
বরিশাল বিভাগে এবার পাসের হার ৯৮.৩০ শতাংশ
সিলেট বিভাগে এবার পাসের হার ৯৬.৭৯ শতাংশ
রংপুর বিভাগে এবার পাসের হার ৯৮.৫৬ শতাংশ।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...