The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

চরম বিতর্কিত ব্যক্তি জেমস ম্যাটিসকে প্রতিরক্ষামন্ত্রী করছেন ট্রাম্প!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ মার্কিন মুলুকের চরম বিতর্কিত ব্যক্তি অবসরপ্রাপ্ত মেরিন জেনারেল জেমস ম্যাটিস যিনি ‘পাগলা কুকুর’ বলেই বেশি পরিচিত তাকে প্রতিরক্ষামন্ত্রী করছেন ট্রাম্প!

controversial-person-james-mytis-defense-minister

যুক্তরাষ্ট্রের পরবর্তী প্রতিরক্ষামন্ত্রী হিসেবে অবসরপ্রাপ্ত মেরিন জেনারেল জেমস ম্যাটিসকে নিয়োগ দিতে চলেছেন নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

গতকাল (বৃহস্পতিবার) জেমস ম্যাটিসের নাম ঘোষণার মাধ্যমে রিপাবলিকান নেতা ট্রাম্প তার প্রশাসনের প্রায় সব শীর্ষ পদের নিয়োগ সম্পন্ন করলেন। জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টার পদটি সিনেট অনুমোদন দিলেই প্রশাসনের পূর্ণতা পাবে।

ডোনাল্ড ট্রাম্প ওহাইও’র এক কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে বলেন, ‘এই পদে সেই (জেমস ম্যাটিস) আমাদের কাছে সেরা।’

পেন্টাগনের ইতিহাসে ৬৬ বছর বয়সী এই জেনারেল ম্যাটিস ‘পাগলা কুকুর’ বলেই অধিক পরিচিত। বারাক ওবামার মধ্যপ্রাচ্য বিশেষ করে ইরান নীতি নিয়ে সমালোচনায় সরব ছিলেন জেনারেল ম্যাটিস।

কারণ হলো জেনারেল ম্যাটিস মনে করেন যে, একমাত্র ইরানের কারণেই মধ্যপ্রাচ্যে সব রকমের অস্থিতিশীল পরিস্থিতি ও শান্তি বিনষ্ট হচ্ছে।

সমর্থকদের উদ্দেশে ট্রাম্প বলেছেন, ‘আমরা আমাদের ‘পাগলা কুকুর’ ম্যাটিসকে প্রতিরক্ষামন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দিতে যাচ্ছি। তিনি দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের কমান্ডার জেনারেল জর্জ প্যাটনকে খুব কাছ হতে দেখেছেন। তিনিই প্রকৃতপক্ষে সত্যিকারের জেনারেলদের জেনারেল।’

১৯৯১ সালে জেনারেল ম্যাটিস গ্রালফ যুদ্ধ প্রথম নেতৃত্ব দেন। তারপর ২০০১ সালে দক্ষিণ আফগানিস্তানে যুক্তরাষ্ট্র বাহিনীর নেতৃত্বে ছিলেন।

এছাড়াও তিনি ২০০৩ সালে ইরাকের বিরুদ্ধে যুদ্ধে অংশ নেন। সেখানে এক বছর পর ফালুজা যুদ্ধে তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।

২০১৩ সালে জেনারেল ম্যাটিস যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় কমান্ডার হিসেবে অবসরে যান। সংবাদদাতারা মনে করছেন, যুক্তরাষ্ট্রের বাহিনীতে জনপ্রিয় হিসেবে নিয়োগ পেতে চলেছেন জেনারেল ম্যাটিস। তবে তাকে নিতে ট্রাম্পকে আইনিভাবে বেগ পেতে হতে পারে।

এর কারণ হলো, যুক্তরাষ্ট্রের আইন অনুযায়ী, অবসরের ৭ বছর পূর্ণ না হওয়া পর্যন্ত কারও প্রতিরক্ষা বিভাগের ইউনিফর্ম পরা সম্ভব না।

কিন্তু প্রতিনিধি পরিষদ এবং কনগ্রেসে সংখ্যাগরিষ্ট থাকায় রিপাবলিকানরা এই আইন সংশোধন করে জেমস ম্যাটিসের নিয়োগের বৈধতা দিতে পারবেন বলে ধারণা করা যাচ্ছে।

উল্লেখ্য, ২০০৫ সালে জেমস ম্যাটিস চরম সমালোচিত হন। কারণ হলো তিনি সে সময় মজা করতে গিয়ে বেশ কয়েকজনকে গুলি করেছিলেন!

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...