ভারতের কাছে খেলায় হারের ভয়ে খাঁচার মধ্যে টেলিভিশন!

দুই ফরম্যাটে বিশ্বকাপের মঞ্চে মোট ১১ বার মুখোমুখি হয়েছে ভারত-পাকিস্তান

Baghdad Iraq- March 11 2009 TV set in a metal cage at the Rashad mental hospital. There are 1300 patients at the Rashad mental hospital near Sadr City 400 of which are women. It is the only such facility in Iraq one the biggest remaining asylums in the world. It was bombed by the americans and looted in the aftermath of the invasion. Last year two of its female patients blew themselves up in two crowded markets in Baghdad.

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ ভারত-পাকিস্তানের খেলা মানেই যেনো এক যুদ্ধ যুদ্ধ অবস্থা। ক্রিকেট সমর্থকরাও থাকে ঠিক যেনো যুদ্ধের মেজাজে। জিতলে যেমন আনন্দ মিছিল করে, তেমনি হারলে ভাঙচুরের ঘটনাও ঘটে। এমন হিংস্র সমর্থকদের থেকে টিভিকে বাঁচতে এবার পাকিস্তানে নেওয়া হয়েছিল আগাম এমন ব্যবস্থা!

দুই ফরম্যাটে বিশ্বকাপের মঞ্চে মোট ১১ বার মুখোমুখি হয়েছে ভারত-পাকিস্তান। এই সাক্ষাতের প্রতিবারই হেরেছে পাকিস্তান আর জিতেছে ভারত। তবে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ৩ বারের সাক্ষাতে দুই জয়েই এগিয়ে পাকিস্তান। সর্বশেষ ২০১৫ বিশ্বকাপ ও গত বছর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পাকিস্তানি সমর্থকরা ভারতের কাছে হারের ক্ষোভ মিটিয়েছিল টেলিভিশনের উপর।

ম্যাচ শেষে পুরো পাকিস্তান জুড়ে বেশ কিছু হোটেল এবং রেস্টুরেন্টের টেলিভিশন ভাঙচুর করে এসব সমর্থকরা। তাই এবার
সমর্থকের হাত হতে টেলিভিশন বাঁচাতে তা খাঁচায় বন্দি করে রেখেছেন অনেক হোটেল এবং রেস্টুরেন্ট মালিকরা। গত রবিবারের এজবাস্টনে ভারত-পাকিস্তান মহারণের পূর্বে টেলিভিশনের উপর হামলা হতে পারে, এই আশঙ্কায় সর্তক ছিলো করাচি, পেশোয়ারের হোটেল মালিকরা। তারা দেরি না করে খাঁচার মধ্যে ভরে সেগুলোতে তালাও লাগিয়ে দেন। যাতে করে তাদের টিভির উপর কোনো ক্ষোভ এসে না পড়ে।

৪ জুনের ওই ম্যাচে ১২৪ রানের বিশাল ব্যবধানে জয় পায় ভারত। অনেক পাকিস্তানী সাবেক ক্রিকেটাররাও অবশ্য আগেই ভারতের পক্ষেই মত দিয়েছিলেন।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...