ঈদের শপিং টিপস্‌

সারা দিন রোজা রেখে শপিং করা খুব কঠিন হয়ে পড়ে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ ঈদের শপিং করা যেমন আনন্দের তেমনই ঝামেলার। সারা দিন রোজা রেখে নিজের বা পরিবারের অন্য সদস্যদের জন্য শপিং করা খুবই কঠিন হয়ে পড়ে।

তাছাড়া এই সময় বাজার বা শপিং মলগুলিতে থাকে উপচে পড়া মানুষের ভীড়। এর সাথে জিনিসপত্রের বাড়তি দামের সমস্যাতো আছেই। সব মিলিয়ে ঈদের শপিং করাটা যেনো একটা দুর্ভোগের নাম।

তবে কিছু কিছু ব্যাপারে একটু সচেতন হলে আপনি শপিং-এর ঝামেলা অনেকটা কমিয়ে আনতে পারবেন। এমনই কিছু বিষয় আজ উল্লেখ করা হল:

লিস্ট তৈরি করুন

একটি লিস্ট তৈরি করে কার জন্য কী কিনবেন তা লিখে রাখুন। অনেক সময় ইচ্ছা থাকলেও ভুলে যাওয়ার কারণে অনেক জিনিস কেনা হয়ে ওঠে না। লিস্ট আপনার এই সমস্যা দূর করবে। তাছাড়া বাজারে যাওয়ার সময় লিস্ট সাথে থাকলে আপনি শপিং দ্রুত করতে পারবেন।

শপিং-এর সময় নির্ধারণ করুন

রোজা রেখে দিনের বেলাতে শপিং করতে যাওয়া বেশ কষ্টের। আবার ইফতারির পরপর বাজার বা শপিং মলগুলোতে ভীড় বেশি থাকে। তাই ইফতারির পরপর না বেরিয়ে একটু দেরি করে বের হতে পারেন। এছাড়া কোন মার্কেটে কখন ভীড় কম থাকে তা আগে থেকে জেনে নিতে পারেন।

পরিবার বা বন্ধুদের সাথে শপিং করুন

শপিং-এ যাবার সময় বন্ধু বা পরিবারের সদস্যদের সাথে নিয়ে যান। একা একা কোনো কিছু কেনার চেয়ে অন্যদের পরামর্শ নিয়ে কেনা ভালো। তাছাড়া অনেকে মিলে শপিং করলে সময়ও কম লাগে।

বাজেট ঠিক করুন

ঈদ শপিং-এর জন্য বাজেট ঠিক করাটা অত্যন্ত জরুরী। আপনার বাজেট ঠিক না থাকলে খরচ অহেতুক বেড়ে যেতে পারে। এছাড়া এই কারণে অনেক সময় অপ্রয়োজনীয় জিনিসের পিছনে খরচ হয়ে যেতে পারে। খরচ কমাতে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ঈদ ডিসকাউন্ট সম্পর্কে জেনে নিন।

দরদাম করুন

শপিং-এর সময় দরদাম করতে সঙ্কোচ বোধ করবেন না। কোনো দোকানে একটি জিনিসের দাম আপনার কাছে উপযুক্ত মনে না হলে আপনি অন্য দোকানে যেতে পারেন। তাছাড়া একটু আগে থেকে শপিং শুরু করলে আপনি অনেক দোকান ঘুরে দেখার সময় পাবেন।

তাড়াহুড়া করে কিছু কিনবেন না

শপিং করতে করতে ক্লান্ত হয়ে গেলে আমরা অনেকেই তাড়াহুড়া করে কিছু জিনিস কিনে ফেলি। কিন্তু এতে করে বেশি দাম দিয়ে জিনিস কেনার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। তাই হাতে সময় নিয়ে শপিং করতে বের হোন, এবং ক্লান্ত হয়ে পড়লে শপিং করা বাদ দিয়ে দিন।

অনলাইন শপিং

সময় বাঁচাতে চাইলে আপনি অনলাইনে শপিং করতে পারেন। তবে এই ক্ষেত্রে খেয়াল রাখুন আপনি ভালো ব্র্যান্ডের দ্রব্য কিনছেন কিনা। এছাড়া দ্রব্যের দাম ও ডেলাভারি টাইম সম্পর্কেও ভালোভাবে জেনে নিন।

ইফতারি বা সেহরির খাবার তৈরি করে শপিং-এ যান

রমজান মাস অত্যন্ত ব্যস্ততার মাস। দীর্ঘ সময় ধরে শপিং-এ থাকলে ইফতারি বা সেহরির খাবার তৈরির জন্য আপনি যথেষ্ট পরিমাণ সময় নাও পেতে পারেন। তাই শপিং-এ যাওয়ার পূর্বে খাবার সম্পূর্ণ বা কিছুটা প্রস্তুত করে যাওয়াই ভালো।

Advertisements
Loading...