The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

স্বামীকে ‘জমা রাখা’ সার্ভিসে রেখে নিশ্চিন্তে শপিং করতে পারবেন চীনা স্ত্রীরা!

স্বামীরা এক 'পডে' (বুথে) বসে গেম খেলতে পারবেন!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ যতো দিন গড়াচ্ছে ততোই মানুষের আচার-আচরণও পাল্টে যাচ্ছে। সেইসঙ্গে পাল্টাচ্ছে বৈবাহিক সম্পর্কের নিয়মটিও। আগের মতো স্ত্রীরা এখন আর স্বামীদের কথা মতো চলতে চান না। যেমন চীনের স্ত্রীরা এবার এমনই এক স্বামীকে ‘জমা রাখা’ সার্ভিসের সাহায্যে কর্তৃত্ব ফলাতে চলেছেন!

স্বামীকে 'জমা রাখা' সার্ভিসে রেখে নিশ্চিন্তে শপিং করতে পারবেন চীনা স্ত্রীরা! 1

স্ত্রীরা সব সময় চান তারা শান্তিতে শপিং করতে। আর সেজন্য চীনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো অভিনব এক স্বামীকে ‘জমা রাখা’ সার্ভিস চালু করেছে। স্ত্রীরা যখন শপিং করবেন, স্বামীরা তখন এক ‘পডে’ (বুথে) বসে গেম খেলতে পারবেন! আর স্ত্রীরা সেই সুবাদে শান্তিতে তাদের কেনাকাটা করবেন।

চীনের সংবাদপত্র ‘দ্য পেপার’ এক প্রতিবেদনে বলেছে, সাংহাই এর গ্লোবাল হার্বার শপিং মলে বেশ কিছু গ্লাস পড অর্থাৎ কাঁচের ছোট ছোট রুম তৈরি করা হয়েছে, মূলত এটিকে বলা হচ্ছে স্বামীকে ‘জমা রাখা’ সার্ভিস, যেখানে মহিলারা তাদের স্বামীদের জমা রেখে শপিং করতে যেতে পারবেন। যে কারণে স্ত্রীরা যখন শপিং করবেন, তখন ওই স্বামীদেরকে আর পেছন পেছন ঘণ্টার পর ঘণ্টা ঘুরতে হবে না!

ওই স্বামীকে ‘জমা রাখা’ সার্ভিস এর ‘গ্লাস পডে’ স্বামীদের জন্য নানা বিনোদনের ব্যবস্থাও রয়েছে। সেখানে তারা বসে বসে সময় কাটানোর জন্য গেম খেলতে পারবেন।

প্রতিটি গ্লাস পডের ভেতরে রয়েছে একটি চেয়ার, মনিটর, কম্পিউটার ও গেম প্যাড। সেখানে বসে স্বামীরা নব্বুই দশকের সেইসব পুরোনো গেমগুলোও খেলতে পারবেন। তবে শপিং মল কর্তৃপক্ষ বলেছেন, আপাতত এই সার্ভিসটি ফ্রি প্রদান করা হবে। পরবর্তীতে ফি চালু করার চিন্তা-ভাবনা রয়েছে তাদের।

এই সার্ভিস ব্যবহারকারীদের কয়েকজন স্বামী সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন, তারা বিষয়টি পছন্দ করেছেন।
ইয়াং নামে জনৈক বলেছেন, “আমি এইমাত্র টেকেন-থ্রী গেমটি খেললাম। আমার মনে হলো যে, আমি যেনো মাত্র স্কুল হতে ফিরে এসেছি।” এই টেকেন-থ্রী গেম হচ্ছে নব্বুই এর দশকের একটি জনপ্রিয় গেম।

কারও কারও কাছে এই স্বামীকে ‘জমা রাখা’ সার্ভিস জনপ্রিয় মনে হলেও চীনা সোশ্যাল মিডিয়ায় অবশ্য শপিং মলটির এই সার্ভিস নিয়ে ব্যাপক সমালেচনাও করেছেন।

উল্লেখ্য, এই সার্ভিস স্বামীদের শপিং এ যেতে উৎসাহ যোগাবে সেটি ঠিক। তবে শপিং এর খরচ তাদের পকেট থেকেই যাবে তাতে সন্দেহ নেই!

তথ্যসূত্র: বিবিসি বাংলা

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...