The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

একটি শিক্ষণীয় গল্প ‘গাধা কিন্তু প্রকৃতই গাধা নয়’

হাজার প্রতিকূলতার মধ্যে দিয়েই আপনাকে এগিয়ে যেতে হবে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ একটি শিক্ষণীয় গল্প। এই গল্পের মধ্যে আমাদের সবার জন্য শিক্ষা রয়েছে। তাহলে চলুন গল্পের শিক্ষাটি অর্জন করি। একটি গ্রামে এক গরিব কৃষক বাস করত। কৃষকের একটি গাধা ছিল। গাধাটি একদিন এলাকার একটি পুরনো এবং পরিত্যক্ত অগভীর কুয়ায় পড়লো।

একটি শিক্ষণীয় গল্প 'গাধা কিন্তু প্রকৃতই গাধা নয়' 1

কিন্তু কুয়াটির গভীরতা গাধার উচ্চতা থেকে বেশি হওয়াতে অবলা প্রাণীটি উঠে আসতে পারছিল না। গাধাটির চিৎকারে কৃষক এবং আশপাশের মানুষ কূয়োর কাছে ছুটে আসল। কৃষক এবং অন্যান্যরা অনেকক্ষণ ধরে গাধাটিকে কূয়া থেকে উদ্ধার করার চেষ্টা করলো কিন্তু তারা পারলো না। কৃষক তখন চিন্তা করল,যেহেতু কুয়াটি আগে থেকেই বিপজ্জনক। বেশ কয়েকটি বাচ্চা কুয়াতে পড়ে বারবার আহত হয়েছে। তার উপর গাধাটা অনেক বুড়ো এবং দুর্বল হয়ে গেছে। তাই কৃষক সিদ্ধান্ত নিল গাধাসহ কুয়াটি ভরাট করে ফেলবে। কৃষক সবাইকে ডেকে গাধা সহ কূয়াটি ভরাট করার জন্য তাকে সাহায্য করতে বলল। সবাই হাতে বেলচা এবং কোদাল নিয়ে পাশ থেকে মাটি কেটে কুয়াতে ফেলতে লাগল। ওদের মাটি ফেলা দেখে গাধাটি বুঝতে পারল কি ঘটতে চলেছে, সে ভয়ে-দুঃখে নিরবে কাঁদতে লাগল। কারণ তার আপনজন অর্থাৎ মালিক নিজেও তার উপর মাটি ফেলে তাকে সহ কূয়াটি ভরাট করছে। তার মালিককে সে কত কাজে সাহায্য করেছে অথচ এখন তার গায়ে আর তেমন কাজ করার শক্তি নেই বলে মালিক নিজেও তাকে বাঁচাতে চাচ্ছে না।

কিছুক্ষণ মাটি ফেলার পরে সবাই হঠাৎ চমকে গেল, কারণ গাধাটি ইতিমধ্যে অনেকটা উপরে উঠে এসেছে। সবাই যখন গাধার উপরে মাটি ফেলছে, গাধাটি তখন গা-ঝাড়া দিয়ে মাটি নিচে ফেলে দিচ্ছে এবং এক-পা, এক- পা করে ভরাট হওয়া জায়গাতে অবস্থান নিচ্ছে।আসল ব্যাপারটি সবায় না বুঝতে পারায়, গাধার মালিক সহ সবাই দ্রুত গাধার উপরে মাটি ফেলতে শুরু করল যেন গাধাটি দ্রুত মাটিতে চাপা পরে যায়। এদিকে যত দ্রুত মাটি ফেলছে গাধাটিও তত দ্রুত মাটি গায়ের ওপর থেকে ঝেড়েফেলে ভরাট হওয়া জায়গাতে এসে দাঁড়াচ্ছে। ।

এভাবে কিছুক্ষণ মাটি ফেলার পর সবাই অবাক হয়ে লক্ষ্য করল কুয়াটি প্রায় ভর্তি হয়ে গেছে, নামে গাধা হলেও কাজে কিন্তু জ্ঞানীর পরিচয় দিয়ে অবশেষে গাধা কুয়া থেকে বেরিয়ে আসল। জীবনে চলার পথে এমন অসংখ্য কুয়াতে আপনিও পড়বেন, যা থেকে উঠে আসার মতো সক্ষমতা হয়তো আপনার থাকবে না। এমন সময় আপনার কিছু আপনজন এবং আশপাশের মানুষগুলো আপনাকে টেনে তোলার পরিবর্তে আরো ডুবিয়ে দিতে চাইবে। কিন্তু এ অবস্থা থেকে পরিত্রাণ পেতে হলে নিরব না থেকে আপনাকে ওই গাধা টির মতই গা-থেকে আবর্জনাগুলো একটু একটু করে ঝাড়া দিয়ে ফেলতে হবে যতক্ষণ না ওই আবর্জনাতে কুয়াটা পূর্ণ হয়ে যায়।

সবাই আপনাকে ডুবিয়ে দেওয়ার জন্য আপনার উপর যতবার আবর্জনা নিক্ষেপ করবে আপনিও প্রতিবার একটু একটু করে ঝাড়া দিয়ে আবর্জনাগুলো সরিয়ে দিবেন। তারপর ওই আবর্জনার স্তুপের উপরে গিয়ে দাঁড়াবেন। প্রতিটি সমস্যা-ই আবর্জনার মতো। আপনি থেমে থাকলে আবর্জনার পাহাড় এসে আপনাকে জীবন্ত কবর দিয়ে দেবে। তাই এভাবেই আস্তে আস্তে মাথা উচু করে দাঁড়াতে শিখুন। মনে রাখবেন অনেকেই আপনার ক্ষতি করতে চাই। কিন্তু তারা এটা বুঝতে পারে না, আপনার মধ্যে সেই ক্ষতি গুলোকে কাজে লাগিয়ে আরো উচুতে উঠার মত ক্ষমতা রয়েছে।

Loading...