শাউমি মি এ২ রিভিউ

উন্নত ক্যামেরা, নতুন স্ন্যাপড্রাগন প্রসেসর সহ আরও অনেক কিছু যোগ করা হয়েছে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ শাউমি মি এ২ নতুন এই ফোনটিতে আনা হয়েছে নতুন সেন্সরসহ ডুয়েল এআই ক্যামেরা, নতুন কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন প্রসেসর, ৫.৯৯ ইঞ্চি ডিসপ্লে, পাতলা ডিজাইনসহ আরও কিছু।

শাউমি মি এ১ এর পর তারা বাজারে আনল শাউমি মি এ২। এটি মূলত গুগল এর এন্ড্রএড ওয়ানের আওতাভুক্ত। এন্ড্রএড ওয়ানের মাধ্যমে গুগল থেকে সর্বশেষ সংস্করণ এবং সিকুরিটি আপডেট পাওয়া যাবে। এজন্য তারা শাউমির মিউআই(MiUi) ওএসের ফিচারগুলি পাবেন না। যারা গুগলের স্টক এন্ড্রএড পছন্দ করেন তারা নিঃসন্দেহে কিনতে পারেন। নতুন এই ফোনটিটে আনা হয়েছে নতুন সেন্সর সহ ডুয়েল এআই ক্যামেরা, নতুন কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন প্রসেসর, ৫.৯৯ ইঞ্চি ডিসপ্লে, পাতলা ডিজাইন সহ আরও কিছু।

ডিজাইন

এই ফোনটিতে প্রথমেই যেই দিকটি চোখে পরে সেটি হল এটির ডিজাইন। আগের চেয়ে অনেক বেশি পাতলা এবং চিকন করা হয়েছে। তাই এটিকে দেখতে আরও বেশি আকর্ষণীয় লাগবে। এটির থিকনেসস প্রায় ৭.৩ মিলিমিটার। এই ফোন টিকে চিকন করতে গিয়ে তারা মূল্যবান দুটি জিনিশ বাদ দিয়ে দিয়েছে। একটি হল ৩.৫৫ মিলিমিটার অডিও জ্যাক এবং এক্সটারনাল মেমোরি কার্ড স্লট। এজন্য গান শুনতে গেলে আপনাকে অবশ্যই ইউএসবি টাইপ-সি এডাপ্টার ব্যবহার করতে হবে যেটি আপনাকে কেনার সময় ফ্রি তে দেয়া হবে।

ক্যামেরা

শাউমি মি এ১ এর থেকে শাউমি মি এ২ তে ক্যামেরাতে ব্যাপক পরিবর্তন আনা হয়েছে। রেয়ার ক্যামেরাতে দেয়া হয়েছে ২০ এবং ১২ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা যার সেন্সর যথাক্রমে “SONY IMX376” এবং “SONY IMX486“। আর এপেচার যথাক্রমে “f/1.75” এবং “f/1.75“। এজন্য অল্প আলোতে অনেক ভালো এবং উজ্জ্বল ছবি তোলা যাবে এই ফোনর মাধ্যমে।

আবার সামনের সেলফি ক্যামেরাতে ব্যবহার করা হয়েছে ২০ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা। এই ক্যামেরা তেও আপনি অনেক ভালো ছবি তুলতে পারবেন। সামনের এবং পিছনের ক্যামেরা দুটিতে ব্যবহার করা হয়েছে একটি নতুন ইমেজ প্রসেসিং সিস্টেম যার নাম “4-in-1 pixel binning technique“। এর মাধ্যমে ছবিতে নইস অনেক ক্ষেত্রে কমে আসবে।

সামনের ক্যামেরা দিয়ে আপনি 4K ভিডিও রেকর্ড করতে পারবেন 30fps এ। অন্য দিকে EIS থাকার কারণে ভিডিওকে স্টেবল রাখতে পারবেন। এতে করে ভিডিও কাঁপবে না। এই ফিচারটি শুধু মাত্র 1080p তে কাজ করবে।

ডিসপ্লে

শাউমি মি এ২ তে ব্যবহার করা হয়েছে ২১৬০x১০৮০ রেজুলেশনের আইপিএস ডিসপ্লে। ডিসপ্লে রেশিও ১৮ঃ৯ এবং ২.৫ডি করনিং গরিলা গ্লাস ৫ ব্যবহার করা হয়েছে।

পারফমেন্স

এই ফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে নতুন প্রসেসর কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৬৬০। এই প্রসেসর তুলনামূলক পারফমেন্স অনেক বেশি দেয়। এছাড়া জিপিউ হিশেবে ব্যাবহার করা হয়েছে এন্ড্রিনো ৫১২। আনতুতু স্কোর করেছে ১৩৪২৯২। এজন্য নিঃসন্দেহে বলাই যায় এটি একটি ভালো পারফমেন্স সমৃদ্ধ ফোন। বিভিন্ন ভেরিয়েন্টে এই ফোন রিলিস করা হয়েছে। র‍্যাম এবং রম যথাক্রমে ৪+৩২, ৪+৬৪, ৬+১২৮। বিস্তারিত যানতে এখানে ক্লিক করুন।

ব্যাটারি

ফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে ৩০১০ মিলি অ্যাম্পিয়ারের ব্যাটারি। সঙ্গে দেওয়া হয়েছে ইউএসবি টাইপ-সি যার মাধ্যমে দ্রুত চার্জ করতে পারবেন।

দাম

বাংলাদেশে এটির অফিসিয়াল দামঃ ৪+৬৪ = ২৩,৯৯৯

এছাড়া আপনি আন-অফিসিয়াল ভাবে ১৯,০০০ থেকে ২১,০০০ এর মধ্যে কিনতে পারবেন।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...