The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

২ হাজার কোটি টাকার লটারি জিতলেন এক ট্রাক চালক!

মানুষের ভাগ্যের কখন পরিবর্তন ঘটে তা বলা যায় না

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ কিছুদিন পূর্বেও পেশায় তিনি ছিলেন একজন সামান্য ট্রাক চালক। তবে একটা লটারির টিকিট বদলে দিয়েছে তার পুরো জীবন। কারণ তিনি লটারিতে জিতলেন ২ হাজার কোটি টাকা!

২ হাজার কোটি টাকার লটারি জিতলেন এক ট্রাক চালক! 1

মানুষের ভাগ্যের কখন পরিবর্তন ঘটে তা বলা যায় না। সৃষ্টিকর্তার ইচ্ছা থাকলে কতো কিই না ঘটে যেতে পারে একজন মানুষের জীবনে। যেমনটি ঘটেছে আমেরিকার ডেভিড জনসনের বেলায়। কারণ কিছুদিন পূর্বেও পেশায় তিনি ছিলেন একজন সামান্য ট্রাক চালক। তবে একটা লটারির টিকিট বদলে দিয়েছে তার পুরো জীবন। কারণ তিনি লটারিতে জিতলেন ২ হাজার কোটি টাকা! একবার আপনি নিজেই ভাবুন! ভাগ্য বটে! এমন ভাগ্যই বা কয় জনার হতে পারে?

২৯৮ মিলিয়ন ডলারের লটারির টিকিট জিতে গেছেন এই ট্রাক চালক। টাকার হিসাবে যার পরিমাণ দাড়াচ্ছে ২ হাজার কোটি টাকারও বেশি! তাই এবার নতুন করে জীবন শুরু করতে চাইছেন ৫৬ বছর বয়সী আমেরিকার ডেভিড জনসন।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কের বাসিন্দা ডেভিড গত বছরের ২৬ ডিসেম্বর ট্রাকে গ্যাস ভরতে গিয়ে ৫ ডলার দিয়ে কিছু লটারির টিকিট কেনেন। তবে তারপরেই অসুস্থ হয়ে পড়ায় তার পক্ষে ওই লটারির নম্বর মিলিয়ে দেখাও সম্ভব হয়নি।

কিছুদিন পর তার এক বন্ধু তাকে ফোন করে জানান যে, এবারের লোটোর বিজয়ী টিকিটটি বিক্রি হয়েছে ওই গ্যাস স্টেশন হতেই। তারপরও নিজের ভাগ্যের উপরে অতোটা ভরসা করতে পারেননি জনসন। তাই তিনি মিলিয়েও দেখেননি নিজের টিকিটের নম্বরটি।
তারপর গত ২৫ জানুয়ারি নিজের টিকিটের নম্বর মিলিয়ে দেখার পর তার চোখ কপালে ওঠে। তিনি দেখেন যে, তিনি পাওয়ার বল নামে পরিচিত লটারির জ্যাকপট জিতেছেন। তখনই তিনি ঠিক করেন যে, ট্রাক চালানোর মতো শারীরিক পরিশ্রমের মতো আর কাজ করবেন না। বাড়িতে তার স্ত্রীও প্রথমে তার এই কথা বিশ্বাস করতে পারেনি।

তবে ডেভিড তার আবেগকে বশে রেখেছিলেন । সঙ্গে সঙ্গেই পুরস্কার দাবি করে বসেননি তিনি। বরং লটারির টিকিটটি যত্ন করে রেখে দিয়েছিলেন যাতে সেটি কোনোভাবেই হারিয়ে না যায়। তারপর তিনি যোগাযোগ করেন লটারীর সেই কর্তৃপক্ষের সঙ্গে। লটারী এই টাকায় একটি লাল পোর্শে গাড়ি এবং নিজের স্ত্রী- মেয়ের জন্য নিউইয়র্কে একটি সুন্দর বাড়ি কেনার ইচ্ছা পোষণ করেছেন ডেভিড জনসন।

Loading...