The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

নরেন্দ্র মোদি ‘হারাতঙ্ক’ রোগে ভুগছেন : মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

শনিবার পশ্চিমবঙ্গের নদিয়া জেলার পানিঘাটায় এক নির্বাচনি সমাবেশে ভাষণ দেওয়ার সময় ওই মন্তব্য করেন

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নির্বাচনে পরাজিত হওয়ার ভয়ে ‘হারাতঙ্ক’ রোগে ভুগছেন এবং তাই প্রতিদিন উল্টোপাল্টা বকছেন বলে মন্তব্য করেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

নরেন্দ্র মোদি ‘হারাতঙ্ক’ রোগে ভুগছেন : মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় 1

গতকাল (শনিবার) পশ্চিমবঙ্গের নদিয়া জেলার পানিঘাটায় এক নির্বাচনি সমাবেশে ভাষণ দেওয়ার সময় ওই মন্তব্য করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

মমতা বলেন, ‘আপনারা জানেন তো, পাগলা কুকুর কামড়ালে জলাতঙ্ক রোগ হয়। নরেন্দ্র মোদি হারবে বলে ভয়ে তার চোখমুখ শুকিয়ে গেছে। তাই হারাতঙ্ক রোগে ভুগছেন। সেজন্যই ওনার এখন হারাতঙ্ক হয়েছে। উনি এখন হারাতঙ্ক রোগে ভুগছেন। আর তাই রোজ উল্টোপাল্টা বকে যাচ্ছেন।’

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘বিজেপি নেতাদের দুঃসাহস হয়েছে। সাহস থাকা ভালো তবে দুঃসাহস থাকা ভালো না।’ তিনি প্রধানমন্ত্রীকে টার্গেট করে বলেন, ‘উনি বলছেন মমতা ব্যানার্জি কিচ্ছুই করেনি। আমি জিজ্ঞেস করি মমতা ব্যানার্জি যদি কিছু করে না থাকে তার জবাব জনগণ দেবে। আপনি আগে বলুন ৫ বছরে দিল্লিতে আপনি কী করেছেন? তার জবাব আগে দিন।

আপনি ৫ বছরের মধ্যে সাড়ে ৪ বছর বিদেশে ঘুরে বেড়িয়েছেন। মানুষের মুণ্ডু কেটে ফুটবল খেলা হয়েছে। গণপিটুনি, গো-রক্ষকের নামে মানুষ হত্যা, সংখ্যালঘুদের উপরে অত্যাচার-নির্যাতন, দলিত, আদিবাসী, সাধারণ মানুষের উপরে অত্যাচার হয়েছে।’

অসমে জাতীয় নাগরিকপঞ্জির (এনআরসি) কথা উল্লেখ করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘আসামে দেখুন ২২ লাখ হিন্দু বাঙালির নাম বাদ গেছে। ওরা বলছে যে বাংলায় এনআরসি করবে। আমি বলেছি আগে আসামকে ঠেকাও তারপরে বাংলার দিকে তাকাও। আগে দিল্লি সামলাও, তারপরে বাংলার দিকে তাকাও।’

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তীব্র কটাক্ষের সুরে বলেন, ‘দিল্লির চেয়ার করছে টলমল, বিজেপি টলমল, বিজেপির ক্যাডাররা গদা ও তলোয়ার নিয়ে ঘুরছে। ৫ বছরে বেকারদের চাকরি হলো না কেনো? আপনিতো বছরে দুই কোটি বেকারের চাকরি দেওয়ার কথা বলেছিলেন।’

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপি ও প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে বলেন, ‘মিথ্যে কথা বলতে বলতে ওদের জিভে পোকা পড়ে গেছে। রোজ মিথ্যে কথা বলছে, রোজ কুৎসা করছে, রোজ অত্যাচার করছে, রোজ সন্ত্রাস করছে। গায়ের জোরে বলছে আমি হিন্দু, আর সবাই বাদ। উনি একা দেশপ্রেমিক আর সকলেই বাদ। আগে বলতো মিত্র, এখন বলছে শত্রু। উনি একা মিত্র আর সকলেই শত্রু। এই হয়ে গেছে ওনার অবস্থা।’

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...