The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

অনুমতি ছাড়া আসামে যেতে পারবে না বিদেশী কোনো সাংবাদিক

জম্মু ও কাশ্মীরের পর দেশটির দ্বিতীয় বড় রাজ্য হিসেবে ‘প্রোটেক্টেড এরিয়া’ ক্যাটেগরিতে আসলো আসাম রাজ্য

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ আসামকে ‘প্রোটেক্টেড এরিয়া’ হিসেবে উল্লেখ করে সেখানে কোনো বিদেশী সাংবাদিক অনুমতি ছাড়া যেতে পারবে না বলে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ হতে প্রদত্ত এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে।

অনুমতি ছাড়া আসামে যেতে পারবে না বিদেশী কোনো সাংবাদিক 1

সংবাদ মাধ্যমের খবরে জানা যায়, ভারতের আসাম রাজ্যে চূড়ান্ত জাতীয় নাগরিকপঞ্জি (এনআরসি) প্রকাশের পর হতে বিতর্ক যেনো বিজেপি সরকারের নিত্যদিনের ঘটনা হয়েছে দাঁড়িয়েছে। এনআরসি ইস্যুতে বিরোধীদের কড়া আক্রমণের মুখে পড়তে হয় মোদি সরকারকে। বিতর্ক এড়াতে কড়া পদক্ষেপ নিয়েছে ভারত সরকার। এবার আসামকে ‘প্রোটেক্টেড এরিয়া’ ক্যাটাগরির আওতায় আনলো মোদি সরকার। দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ হতে প্রদত্ত এক বিবৃতিতে একথা জানানো হয়েছে।

যে কারণে জম্মু ও কাশ্মীরের পর দেশটির দ্বিতীয় বড় রাজ্য হিসেবে ‘প্রোটেক্টেড এরিয়া’ ক্যাটেগরিতে আসলো আসাম রাজ্য। অর্থাৎ সেখানে এখন থেকে বিনা অনুমতিতে কোনো বিদেশী সাংবাদিক প্রবেশ করতে পারবে না।

উত্তর-পূর্বের কয়েকটি রাজ্য এই ক্যাটাগরির আওতায় থাকলেও আসামের মতো সেখানে এতো কড়াকড়ি করা হয় নি কখনও।

প্রোটেক্টেড এরিয়া ক্যাটাগরির আওতায় থাকা এলাকায় সংবাদমাধ্যমের বিচরণে বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। বিদেশ থেকে আসা কোনো সাংবাদিক বিনা অনুমতিতে এই এলাকায় প্রবেশ করতে পারবেন না। যেসব বিদেশী সাংবাদিক ইতিমধ্যেই আসামে রয়েছেন তাদের সেখান থেকে বেরিয়ে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

অপরদিকে এনআরসির তালিকা প্রকাশের পর হতেই আসামে উত্তেজনা বিরাজ করছে। বিক্ষোভ রুখতে কড়া পদক্ষেপ নিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। গোটা আসাম এলাকায় বিপুল নিরাপত্তারক্ষী মোতায়েন করা হয়েছে।

জানা যায়, এনআরসির প্রতিবাদে আসামে আগামী ৬ সেপ্টেম্বর ১২ ঘণ্টার বনধের ডাক দিয়েছে একাধিক ছাত্র সংগঠন এবং রাজনৈতিক দল। নেতৃত্ব দিচ্ছে অল আসাম স্টুডেন্ট ইউনিয়ন।

উল্লেখ্য যে, সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশনা অনুযায়ী গত ৩১ আগস্ট আসামে জাতীয় নাগরিকপঞ্জির চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ হয়েছে। ওই তালিকায় নাম বাদ পড়েছে ওই এলাকায় দীর্ঘদিন যাবত বসবাসকারী ১৯ লাখ ৬ হাজার ৬৫৭ জনের।

ভারত সরকার অবশ্য আগেই বলেছিলো, যাদের নাম চূড়ান্ত নাগরিক তালিকায় স্থান হয়নি সমস্ত আইনি পদক্ষেপ শেষ না হওয়া পর্যন্ত তাদের এখনই বিদেশী হিসেবে ঘোষণা করা যাবে না। এনআরসির বাইরে থাকা প্রতিটি ব্যক্তি বিদেশী ট্রাইব্যুনালে আবেদন করতে পারবেন। আবেদন করার সময়সীমা ৬০ হতে বাড়িয়ে ১২০ দিন করা হয়েছে।

দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক বলেছে, যাদের নাম তালিকা হতে বাদ গেছে তাদের পক্ষে যুক্তি শোনার জন্য পর্যায়ক্রমে কমপক্ষে ১ হাজার ট্রাইব্যুনাল গঠন করা হবে। যার মধ্যে ১০০টি ট্রাইব্যুনাল ইতিমধ্যেই খুলে দেওয়া হয়েছে এবং আরও ২০০টি ট্রাইব্যুনাল আগামী সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহেই স্থাপন করা হবে। ট্রাইব্যুনালে কেও মামলায় হারলেও তারা উচ্চ আদালত এবং তারপর তারা সুপ্রিম কোর্টের কাছে আবেদন করতে পারবেন বলে জানানো হয়েছে।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...