The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

চুলেও কী বেঁচে থাকতে পারে করোনা ভাইরাস?

এই ভাইরাসটি কাপড় ও স্টেইনলেস স্টিলে একদিন এবং প্লাস্টিকের উপর চারদিনও থাকতে পারে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাস নিয়ে বিশ্বজুড়ে গবেষণা এগিয়ে চলেছে। ভাইরাসটি কীভাবে আচরণ করে তা নিয়ে নানা গবেষণা করা হচ্ছে। চুলেও কী বেঁচে থাকতে পারে করোনা ভাইরাস? সেই বিষযেও বলেছেন তারা।

চুলেও কী বেঁচে থাকতে পারে করোনা ভাইরাস? 1

এটি কীভাবে সংক্রমিত হয় ও এর প্রাথমিক লক্ষণগুলো সম্পর্কে আমরা কিছুটা জানি। এটি বিভিন্ন পৃষ্ঠে কতোক্ষণ স্থায়ী হতে পারে সে সম্পর্কে এখনও রয়েছে উদ্বেগজনক প্রশ্ন। আমাদের সর্বোত্তম স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করা সত্ত্বেও কিছু জিনিস আমাদের ভাইরাসে আক্রান্তও করতে পারে।

দ্য ল্যানসেটে প্রকাশিত একটি সমীক্ষায় দেখানো হয়েছে, এই ভাইরাসটি কাপড় ও স্টেইনলেস স্টিলে একদিন এবং প্লাস্টিকের উপর চারদিনও থাকতে পারে। প্রয়োজনে বাইরে বের হলেই এটি ভাইরাসের সংস্পর্শে আসার ঝুঁকিও বাড়িয়ে দেয়। ভাইরাসটি উপশম করার জন্য আমরা সবাই যথাসাধ্য চেষ্টাও করছি। তবে যদি এটি আপনার চুলে থাকে তবে কী হবে? এটি আমাদের চুলে কতক্ষণই বা বেঁচে থাকতে পারে? এই সংক্রমণের ঝুঁকি কমাতে আমরা কী-ই বা করতে পারি?

চুলের উপর করোনা ভাইরাস কতোক্ষণ থাকতে পারে, সেটি নিয়ে এখনও গবেষণা হয়নি। সুতরাং, আপনার চুল বা দাড়িতে ভাইরাস কতোক্ষণ থাকতে পারে বা বেঁচে থাকতে পারে সেই বিষয়টি এখনও পরিষ্কার নয়। তবে এটি কয়েক দিন বা কমপক্ষে কয়েক ঘণ্টা থাকতে পারে এমন সম্ভাবনাও রয়েছে। এর অর্থ এই নয় যে প্রতিবার বাইরের ট্রিপ থেকে ফিরে আসার পর আপনার চুল ধোয়া দরকার। এটি করা অযৌক্তিক হবে ও আপনার চুলের স্বাস্থ্যের ক্ষতিও করতে পারে।

বিশেষজ্ঞদের মতে, আপনি যদি সামাজিক দূরত্ব ঠিকভাবে বজায় রেখে চলতে পারেন তাহলে আপনার চুল নিয়ে চিন্তা করার কোনোই প্রয়োজন নেই। এমনকি যদি কেও আপনার চুলের পেছনে হাঁচিও দেয় তবু খুব কম সম্ভাবনাই রয়েছে সংক্রমিত হওয়ার। কারণ হলো আমরা প্রয়োজন ছাড়াই আমাদের চুলে স্পর্শ করি না। তাই ভাইরাসের সংস্পর্শে আসার সম্ভাবনাও কম।

তবে কিছু কাজ আপনার সংক্রমণের ঝুঁকি আরও বাড়িয়ে তুলতে পারে- আপনি হয়তো বাইরে গিয়ে পাবলিক সারফেসগুলো স্পর্শও করতে পারেন, ভাবতে পারেন ঘরে পৌঁছে হাত-মুখ ধুয়ে ফেললেই হবে। তবে আপনি যদি তার পূর্বেই অপরিষ্কার হাত দিয়ে বারবার চুল স্পর্শ করেন তবে আপনার ঝুঁকি বেড়ে যেতে পারে।

বাইরে বেরোনোর পর চুলটি স্পর্শ না করার চেষ্টা করতে হবে। এমনকি এটি যদি জায়গা থেকে বাইরে থাকে তবে এটি ছেড়ে দিন ও এটি ঠিকও করবেন না। আপনার হাত দিয়ে আপনার চুল বারবার স্ট্রোক করার মাধ্যমে আপনার হাতে উপস্থিত সমস্ত ভাইরাস আপনার চুলে আটকেও যেতে পারে।

আপনার চুলগুলো সাধারণভাবে সুরক্ষিত ও এটি সংক্রমণও সৃষ্টি করতে পারে না। তবে সেজন্য আপনাকে অবশ্যই সামাজিক দূরত্বের নিয়মগুলো অনুসরণ করতে হবে এবং অপরিষ্কার হাতে কখনও চুল স্পর্শ করা যাবে না।। যদি কেও আপনার মাথার পেছনের অংশে হাঁচি দেয় তাহলে গোসল করে চুল সঠিকভাবে পরিষ্কার করা নেওয়াই হবে ভালো।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...