The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

মৌমাছি গায়ে নিয়ে করলেন গিনেস রেকর্ড!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ মৌমাছির সঙ্গে বন্ধুত্ব গড়ে গিনেস বুকে নাম তুলেছেন নেচার এমএস নামে জনৈক তরুণ। ওই ব্যক্তি ভারতের কেরালার বাসিন্দা।

মৌমাছি গায়ে নিয়ে করলেন গিনেস রেকর্ড! 1

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি তাদের এক প্রতিবেদনে বলেছে যে, মৌমাছির পালকে চার ঘণ্টা মাথায় এবং মুখে নিয়ে বসে ছিলেন ওই তরুণ নেচার এমএস। গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস’র কর্মকর্তারা মোট ৪ ঘণ্টা ১০ মিনিট ৫ সেকেন্ডস সময় নির্দিষ্ট করার পর ওই ব্যক্তিকে রেকর্ডধারী হিসেবে ঘোষণা করেছেন।

এ ছাড়াও ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইলকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ভারতীয় তরুণ নেচার এমএস বলেন, ‘মৌমাছি আমার অত্যন্ত প্রিয় বন্ধু। আমার ইচ্ছা হলো অন্যরাও তাদের বন্ধু বানাক। বাবার সঙ্গে থেকেই মৌমাছির সঙ্গে ঘর করার কৌশল রপ্ত করেছি আমি। ৭ বছর বয়স হতে তাদের মুখ এবং মাথায় নিয়ে ঘুরে বেড়িয়েছি। এখন অনায়াসে ৬০ হাজার মৌমাছিকে শরীরে বসতেও দিতে পারি।’

নেচারের দাবি সমাজের বাস্তুতন্ত্র ঠিক রাখতে মৌমাছির ভূমিকা এক অসামান্য। মৌমাছিরা সমাজবদ্ধ জীবও বটে। তাই তাদের সঙ্গে বন্ধুত্ব রেখে চললে মানুষের লাভ।

নেচারের বাবা সূর্যকুমার একজন পুরস্কারপ্রাপ্ত মধু চাষী। ২ বছর পূর্বেও একইভাবে মৌমাছি সংরক্ষণ এবং মধু চাষে সচেতনতা বাড়িয়ে বিশ্বরেকর্ড গড়েন নেচার এমএস।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...