The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম বাবুলের ইন্তেকাল

আগামীকাল (মঙ্গলবার) যমুনা ফিউচার পার্কের সামনে স্বল্প পরিসরে নামাজে জানাজা শেষে বনানী কবরস্থানে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় তাঁকে দাফন করা হবে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ দেশের বিশিষ্ট শিল্পপতি, যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম বাবুল ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম বাবুলের ইন্তেকাল 1

আজ সোমবার (১৩ জুলাই) রাজধানীর এভার কেয়ার হাসপাতালে (সাবেক অ্যাপোলো) চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মৃত্যুবরণ করেছেন। তাঁর মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ শোক জানিয়েছেন।

মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৪ বছর। তিনি স্ত্রী সংসদ সদস্য সালমা ইসলাম, এক ছেলে এবং তিন মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

১৪ জুন নুরুল ইসলাম বাবুলের করোনা পজিটিভ ধরা পড়ে। তারপরই তাকে এভার কেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। করোনার কারণে তার কিডনি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। বিশিষ্ট এই শিল্পোদোক্তার চিকিৎসায় এভার কেয়ারের ডাক্তার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) মাহবুদের নেতৃত্বে ১০ সদস্য বিশিষ্ট মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছিলো।

এর বাইরেও চীনের ৪ জন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক এবং সিঙ্গাপুরের মাউন্ড এলিজাবেথ হাসাপাতালের ২ জন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক টেলিকনফারেন্সের মাধ্যমে পরামর্শও দিয়েছেন।

নুরুল ইসলাম বাবুল দৈনিক যুগান্তর এবং যমুনা টেলিভিশনের প্রতিষ্ঠাতা। যমুনা গ্রুপের অধীনে গড়ে তুলেছিলেন অন্তত ৩৮টি শিল্পপ্রতিষ্ঠান, কর্মসংস্থান তৈরি করেন হাজার হাজার মানুষের জন্য।

জাতীয় দৈনিক যুগান্তর ও যমুনা টেলিভিশনের মালিকানাসহ বস্ত্র, রাসায়নিক, চামড়া, মোটরসাইকেল, ইলেকট্রনিক্স, বেভারেজ, টয়লেট্রিজের ব্যবসাও রয়েছে যমুনা গ্রুপের।

যমুনা গ্রুপ বাংলাদেশের বৃহৎ একটি শিল্পগ্রুপ। ১৯৭৪ সালে নুরুল ইসলাম বাবুল এই গ্রুপটি প্রতিষ্ঠা করেন। মেধা, দক্ষতা, পরিশ্রম এবং সাহসিকতার মাধ্যমে একে একে শিল্প ও সেবাখাতে গড়ে তোলেন তিনি এসব প্রতিষ্ঠানগুলো। এছাড়াও এশিয়ার সবচেয়ে বড় শপিংমল যমুনা ফিউচার পার্ক, যমুনা নির্মাণাধীন মেরিয়টস হোটেলসহ শিল্প এবং সেবাখাতে শীর্ষ স্থান ধরে রাখতে সক্ষম হয়েছে এই গ্রুপটি।

আগামীকাল (মঙ্গলবার) যমুনা ফিউচার পার্কের সামনে স্বল্প পরিসরে নামাজে জানাজা শেষে বনানী কবরস্থানে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় তাঁকে দাফন করা হবে।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...