The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

কোমরের ব্যথা থেকে বাঁচতে যা করবেন

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ করোনা মহামারির কারণে বাইরে বের হওয়া কমে গেছে। যে কারণে ঘরে বসে ঘণ্টার পর ঘণ্টা কম্পিউটারের সামনে বসে কাজ করায় কোমরের ব্যথা দেখা দিচ্ছে। কোমরের ব্যথা থেকে বাঁচতে করণীয় জেনে নিন।

কোমরের ব্যথা থেকে বাঁচতে যা করবেন 1

যাদের বয়স চল্লিশের আশপাশে বা তার বেশি তাদের মধ্যেও বাড়ছে কোমর ব্যথার প্রবণতা। কিছু বিষয় মাথায় রাখলেই এই কোমর ব্যথা থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে।

# এক জায়গায় বেশিক্ষণ বসে থাকবেন না।

# জায়গা ছেড়ে মাঝে মধ্যেই উঠে পড়ুন এবং হাঁটাচলা করুন।

# কোমর ভাঁজ করে কিছু সময় শরীর চর্চা করুন। কখনও মাটিতে বসে কাজ করবেন না।

# নরম মেট্রেস বা ফোমের বিছানায় কখনই শোবেন না। শক্ত বিছানায় শোবেন।

এমন সমস্যা দেখা দিলে চিকিৎসকের পরামর্শ না নিয়ে কখনই ব্যথার ওষুধ খাবেন না। এই বিষয়গুলো মেনে চলার সঙ্গে মাথায় রাখতে হবে আরও কিছু টোটকা।

সেঁক: কোমরের যে জায়গায় ব্যথা সেখানে সেঁক দিলে যন্ত্রণা হতে কিছুটা হলেও মুক্তি পাবেন।

আদা: আদাতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে পটাশিয়াম। এই পটাশিয়ামের অভাবের কারণে নার্ভের সমস্যাও দেখা দিতে পারে। সে জন্য প্রতিদিন নিয়মিত আদা খেলে কোমরের যন্ত্রণা হতে মুক্তি পেতে পারেন।

হলুদ-দুধ: দুধের সঙ্গে হলুদ মিশিয়ে খেলে কোমরের ব্যথা কমে যেতে পারে। এটি অনেক আদি পদ্ধতি।

মেথিবীজ: মেথি বীজ গুঁড়া দুধের সঙ্গে মিশিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরি করুন। ব্যথার জায়গায় এই মিশ্রণ লাগালে বেশ উপকার পাবেন।

লেবুর শরবত খান: লেবুতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ‘সি’ থাকে। ভিটামিন ‘সি’ ব্যথা উপশমে খুবই কার্যকর একটি পদ্ধতি।

অ্যালোভেরা: প্রতিদিন নিয়মতভাবে অ্যালোভেরা শরবত খান। এতে করে আপনার কোমরের ব্যথা অনেকাংশে কমে যাবে।

কোমরের ব্যথায় এই ঘরোয়া টোটকাগুলো ব্যবহার করলে ভালো ফল পেতে পারেন।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...