The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

পাকিস্তানী জঙ্গির স্বীকারোক্তি: গাড়িবোমাসহ বিস্ফোরক বানাতে ও প্রশিক্ষণ দিতে এসেছে তারা

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ গোয়েন্দা পুলিশের কাছে ধরাপড়া ৩ পাকিস্তানী জঙ্গি পুলিশের কাছে স্বীকার করেছে তারা গাড়িবোমাসহ বিভিন্ন ধরনের বিস্ফোরক বানাতে ও প্রশিক্ষণ দিতে বাংলাদেশে এসেছিল।


Pakistani militants en

পুলিশের হাতে ধৃত ৩ জনই পাকিস্তানে বাংলাদেশ দূতাবাস বোমা মেরে উড়িয়ে দেওয়ার হুমকিদাতা জঙ্গি সংগঠন ‘তেহরিক-ই-তালেবান অব পাকিস্তান (টিটিপি)’-এর সদস্য। তারা বলেছে, ওই সংগঠনের আরও দুর্র্ধষ জঙ্গিরা এখন ঢাকায়।

সংবাদ মাধ্যম জানিয়েছে, এসব ঝিমিয়ে পড়া বাংলাদেশি জঙ্গিদের সক্রিয় করতে তারা ঢাকাসহ বিভিন্ন জেলায় ঘাঁটি গাড়ছে। প্রশিক্ষণ দিচ্ছে বাংলাদেশের উগ্রপন্থি সংগঠনের জঙ্গি সদস্যদের। হাতেকলমে তাদের কাছ থেকে প্রশিক্ষণ পেয়ে বোমা তৈরি, বোমা হামলা, অত্যাধুনিক সমরাস্ত্র চালনা ও যুদ্ধের কৌশল সম্বন্ধে পারদর্শী হয়ে উঠছে এদেশীয় জঙ্গিরা। তবে বাংলাদেশে ‘টিটিপি’র বড় ধরনের সহিংসতার একটি পরিকল্পনা গোয়েন্দা পুলিশের তৎপরতায় ভেস্তে গেছে। ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ গত রবিবার রাতে রাজধানীর সেগুনবাগিচা থেকে গ্রেফতার করেছে সংগঠনটির ৩ সক্রিয় সদস্যকে। তারা হলো মেহমুদ (২৫), ওসমান (২৩) ও ফকরুল হাসান (৫০)।

সংবাদ মাধ্যমকে পুলিশ বলেছে, তারা প্রত্যেকেই গাড়িবোমাসহ ১২ ধরনের বোমা তৈরিতে পারদর্শী। যুদ্ধক্ষেত্রে ব্যবহৃত আধুনিক অ্যাসল্ট রাইফেল একে-৪৭, এম ১৬, এসএমজি, এলএমজিসহ সব ধরনের আধুনিক অস্ত্র চালানো এবং এর মেকানিক্যাল কাজেও তারা দক্ষ। গাড়িবোমা হামলা চালিয়ে সহিংসতার বড় ধরনের পরিকল্পনা তারা করছিল বলে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে তারা স্বীকারও করেছে। প্রত্যেককে ১৩ দিন করে রিমান্ডে নিয়ে মিন্টো রোডের গোয়েন্দা দফতরে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, পাকিস্তানভিত্তিক নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন ‘তেহরিক-ই-তালেবান অব পাকিস্তান’ টিটিপি’র ওই তিনজন প্রশিক্ষিত জঙ্গি সদস্যকে রাজধানীর সেগুন বাগিচা এলাকা থেকে রবিবার গ্রেফতার করা হয়।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...