The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

নারায়ণগঞ্জ সেভেন মার্ডার: আজ দু’জনের আত্মসমর্পণের সম্ভাবনা

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ আদালতের নির্দেশনা সত্বেও নারায়ণগঞ্জ সেভেন মার্ডার ঘটনার সঙ্গে সম্পৃক্ত র‌্যাবের ৩ কর্মকর্তাকে পুলিশ এখনও গ্রেফতার করতে পারেনি। তবে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেছেন, তারা আদালতে আত্মসমর্পণ করবেন।

Najrul &

বিভিন্ন সূত্র মতে, ওই ৩ র‌্যাব কর্মকর্তার মধ্যে ১ জন পলাতক রয়েছেন। অপর দুই জন আজ বুধবার আদালতে আত্মসমর্পণ করবেন। তবে কখন কিভাবে সে বিষয়ে জানা যায়নি।

সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, আত্মসমর্পণ করতে যাচ্ছেন সেনাবাহিনীর ২ কর্মকর্তা কমান্ডিং অফিসার লে. কর্নেল তারিক সাঈদ মাহমুদ ও মেজর আরিফ। তবে নৌবাহিনীর কর্মকর্তা লে. কমান্ডার এম এম রানার বিষয়ে স্পষ্ট কোন ধারণা নেই। তিনি পলাতক রয়েছেন এমনটাই ধারণা করা হচ্ছে। অথচ আগে শোনা গিয়েছিল ৩ কর্মকর্তা নজরদারিতে আছে। বর্তমানে নৌবাহিনীসহ সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো তার অবস্থানের বিষয়ে কোন তথ্যই দিতে পারেনি।

গত সোমবার উচ্চ আদালতের আদেশের কপি পুলিশ সদর দপ্তর হয়ে নারায়ণগঞ্জ পুলিশ সুপারের কাছে পৌঁছে যায়। পরে পুলিশ সুপারের নির্দেশে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবির পরিদর্শক মামুনুর রশীদ মণ্ডল সাবেক ওই ৩ র‌্যাব কর্মকর্তাকে নিজেদের হেফাজতে নেয়ার জন্য সশস্ত্র বাহিনী বিভাগে একটি চিঠি দেন। এরপর এই বিষয়টি নিয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর শীর্ষ কর্মকর্তাসহ সরকারের শীর্ষ ব্যক্তিদের মাধ্যমে ঊর্ধ্বতন সেনা কর্মকর্তাদের আলোচনা হয়। আলোচনার ভিত্তিতেই অবসরপ্রাপ্ত ৩ কর্মকর্তার আত্মসমর্পণের বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয় বলে ওই সূত্র জানিয়েছে। সার্বিক প্রক্রিয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল সংবাদ মাধ্যমকে বলেছেন, ‘আর্মি অফিসারদের গ্রেফতার করার বিষয়ে কিছু নিয়ম-কানুন আছে। তারা যেহেতু অবসর প্রস্তুতিকালীন সময় পার করছেন, আর তাই একটা প্রক্রিয়ার মধ্যদিয়ে তাদের যেতে হবে। তারা হয়তো আগামীকাল (আজ বুধবার) নিজেরাই আত্মসমর্পণ করবেন। এ খবর দিয়েছে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম।

উল্লেখ্য, গত ২৭ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলাম এবং এডভোকেট চন্দন সরকারসহ ৭ জন অপহৃত হন। এ ঘটনার তিন দিনের মাথায় ৩০ এপ্রিল শীতলক্ষ্যা নদী থেকে ভাসমান অবস্থায় তাদের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এই ঘটনায় র‌্যাব-১১ এর কর্মকর্তারা জড়িত এমন অভিযোগের পর তাদের র‌্যাব থেকে প্রত্যাহার ও পরে নিজ নিজ বাহিনী থেকে দু’জনকে অকালীন অবসর এবং একজনকে বাধ্যতামূলক অবসর দেয়া হয়। পরে হাইকোর্ট তাদের গ্রেফতারের নির্দেশ দেন।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...