The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

যেভাবে আপনি আপনার সময়কে সঠিকভাবে ব্যবহার করবেন

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ কাজের ক্ষেত্রে সময়টা কত বড় ফ্যাক্টর হয়ে দাঁড়ায় তা বোঝা যায় সময় চলে যাওয়ার পর। হয়তো দেখা গেল আপনার কাজটার জন্য যথেষ্ট সময় দেওয়ার পরও সময় মতো কাজটি শেষ করতে পারলেন। এমতবস্থায় হয়তো আপনার মাথার চুল ছিঁড়তে করছে। তবে মাথার চুল না ছিড়ে একটু চিন্তা করে দেখুন আপনার পরিকল্পনার ঘাটতি ছিল। যে কারণে আপনাকে পস্তাতে হয়েছে।


time-management-banner

আসলে প্রতিটি কাজের কিছু পরিকল্পনা থাকা উচিত এতে করে সময়ের কাজ সময়ে শেষ করা যায়। সময় চলে গেলে আপনি যত পরিকল্পনাই করুন না কেন আপনার পক্ষে এই সেই কাজটি ভালভাবে করা সম্ভব নয়। তাই আজ আমরা তুলে ধরবো কিভাবে সময়ের কাজ সময়ে করতে পারবেন তার একটি পরিকল্পনা। আশা করি এটি আপনাকে আপনার কাজের ক্ষেত্রে ভালো সাহায্য করবে। তবে চলুন জেনে নেওয়া যাক-

১। কাজের একটি তালিকা করুনঃ

ভাবছেন এটি সময় নষ্ট। আসলে না এটি আপনার সময় তো নষ্টই করবে না বরং এটি আরো আপনার কাজকে সহজ করবে। আপনার নিত্যদিনের কাজের একটি তালিকা করে তা আপনার চোখের সামনে রাখুন। এমন সব জায়গায় এই তালিকাটি ঝুলিয়ে রাখুন যেন তা সবসময় আপনার চোখে পড়ে। যেমন আপনার বেডরুমের দৃষ্টি যায় এমন স্থানে। কিংবা খাবারের টেবিলের পাশে ফ্রিজের গায়ে। ফলে আপনি অন্য কোন কাজের ফাঁকে এই কাজগুলো দেখলে কাজের তাগাদা অনুভব করবেন। আর আজকাল তো স্মার্টফোনে বিভিন্ন ধরনের আপস রয়েছে যা আপনার কাজের নোটিফিকেশন দিবে। ফলে কাজটির কথা আপনি ভুলতেও পারবেন না।

old-time-clock

২। নিজের জন্য একটি আলাদা স্থান বের করুনঃ

একটি সুন্দর এবং শান্তিপুর্ন স্থান বেঁছে নিন আপনার কাজের জন্য। কাজের পরিবেশটি সুন্দর হয় তবে কাজ করতেও ভাল লাগবে। আপনি যদি আপনার কাজ কিংবা পড়াশোনার দিকটি বিবেচনা করে থাকেন তবে আপনার জন্য ভালো হবে একটি নীরব, শান্তিপূর্ণ পরিবেশ। কেননা আপনার কাজের ক্ষেত্রে পরিবেশটি আপনাকে আরো বেশি মনোযোগ সহকারে কাজে সাহায্য করবে। এইক্ষেত্রে কাজের স্থানটি আরামদায়ক যেমন, চমৎকার একটি চেয়ার, টেবিল রাখুন। তবে কাজের স্থানটি বেশি আরামদায়ক করতে যাবেন না এতে কাজের ক্ষতি হতে পারে।

৩। কাজের উপকরণগুলো সজ্জিত রাখুনঃ

আপনার কাজের উপকরণগুলো সবসময় ভালোভাবে সাজিয়ে রাখুন। এতে করে আপনি কাজের সময় প্রয়োজনীয় জিনিসটি হাতের কাছেই পাবেন। যা আপনার কাজের ক্ষেত্রে আপনাকে বিচ্যুত করবে না। কাজের উপকরণগুলো সাজিয়ে রাখার ক্ষেত্রে অনেকের আলস্য রয়েছে। ফলে কাজের সময় তিনি প্রয়োজনীয় জিনিসটি খুজে পান না ফলে হুড়োহুড়ি লাগিয়ে দেন যা কাজকে আরো ব্যাহত করে। তাই সর্বদাই আপনার কাজের উপকরণগুলো সুন্দরভাবে সাজিয়ে রাখুন।

url

৪। সময়ের কথা মনে রাখুনঃ

কাজের ক্ষেত্রে সময়কে আপনার আশেপাশে রাখুন। আসলে একটি টেবিল ক্লক রাখুন যেন আপনার চোখে সময়টি ধরা পড়ে। এতে করে আপনি কাজের ক্ষেত্রে ফোকাস করতে পারবেন যে, কোন কাজটি কত সময় ধরে করবেন। একটি বিষয় মাথায় রাখুন আপনার সামনের ঘড়িটির তাকিয়ে আপনার কাজ থেকে মনোযোগ অন্য দিকে দিতে যাবেন না যে, সময় আছে করতে পারবো।

৫। কাজের ফাঁকে কিছুটা বিশ্রামঃ

কাজের ক্ষেত্রে কখনোই টানা কাজ করতে যাবেন না, একটি কাজ শেষ হওয়ার পর সামান্য সময়ের জন্য বিশ্রাম নিন। হালকা কিছু খেতে পারেন এই সময়ে চা কিংবা কফি। তারপর আবার কাজ শুরু করুন। দেখবেন কাজের ক্ষেত্রে বেশ ভালো বেগ পাচ্ছেন।

কাজকে সঠিক সময়ে সুন্দরভাবে শেষ করতে উপরের নিয়মগুলো অনুসরণ করুন দেখবেন ভালো ফল পাচ্ছেন। তাছাড়া আরো যা করতে পারেন তা হলো-

[ক] একটি ক্যালেন্ডারে আপনার কাজের শিডিউলটি দাগিয়ে রাখুন। তারপাশে কাজের ছোট একটি টাইটেল লিখে রাখতে পারেন।

[খ] নিজের একটি নোটবুকে কাজের ফ্লোচার্ট রাখতে পারেন যে কোনটির পর কোনটি করবেন।

[গ] অনেকক্ষণ কাজের পর বাইরে থেকে একটু ঘুরে আসুন। দেখবেন মাথা হালকা লাগছে।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...