The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

আমেরিকার প্রেসিডেন্টদের রাষ্ট্রপ্রধান হওয়ার আগের ও পরের চিত্র দেখুন

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর রাষ্ট্র কোনটি এই প্রশ্ন করলে স্বাভাবিকভাবেই উত্তর থাকবে ইউনাইটেড স্টেটস অব আমেরিকা। সেই দেশের রাষ্ট্রপ্রধান বা প্রেসিডেন্ট হওয়ার কাজটি যে খুব সহজ হবে না তা বোঝা স্বাভাবিক। আর এখানে এমন কিছু তুলনামূলক ছবি তুলে ধরা হলো যেখান থেকে বোঝা যাবে এই রাষ্ট্রপ্রধান মানুষগুলো কি পরিমাণ কাজের চাপে থাকেন।

before-and-after-term-us-presidents-7বর্তমান প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা (২০০৮-২০১৪)

একটি ক্ষমতাধর রাষ্ট্রের রাষ্ট্রপ্রধান হওয়া অনেক চাপের কাজ। তার উপর সেটি যদি আমেরিকার মতো দেশের হয়ে থাকে তবে তো কথাই। এই ছবিগুলোতে তাদের রাষ্ট্রপ্রধান হওয়ার আগের চিত্র এবং পরের চিত্র তুলে ধরা হয়েছে। রাষ্ট্রপ্রধান হওয়ার আগে প্রাণোচ্ছল, অনুপ্রেরণাদায়ক এবং চেহারায় একটি বলিষ্ঠ ভাব থাকে যা রাষ্ট্রপ্রধান হওয়ার পর কাজের চাপে অনেকটাই ম্রিয়মাণ হয়ে যায়। প্রতিটি ছবির ক্ষেত্রেই সময়ের পার্থক্য প্রায় আটবছর। অর্থাৎ রাষ্ট্রপ্রধান হওয়ার আগ থেকে রাষ্ট্রপ্রধানের দায়িত্ব শেষ করার পরের চিত্র তুলে ধরা হয়েছে।

before-and-after-term-us-presidents-1জর্জ ডব্লিউ বুশ (২০০১-২০০৮)

ছবিগুলো দেখলেই বুঝতে পারবেন রাষ্ট্রনায়কদের কাজের কি পরিমাণ চাপ থাকে। প্রাণোচ্ছল মানুষগুলো আটবছরের মাথায় অনেক বুড়ো হয়ে গিয়েছেন। উল্লেখ্য যে, এখানে এই সকল প্রেসিডেন্টের মধ্যে আব্রাহাম লিঙ্কন ক্ষমতায় ছিলেন ৪ বছর। কিন্তু আমেরিকার মূল কাঠামো তার শাসনামলেই তৈরি হয়েছিল ফলে তাকে কি পরিমাণ খাটতে হয়েছে তা তার ছবির দিকে তাকালেই বোঝা যাবে। অন্য সকলের চেয়ে তিনি বুড়িয়ে গিয়েছেন তাড়াতাড়ি।

before-and-after-term-us-presidents-5আব্রাহাম লিঙ্কন (১৮৬১-১৮৬৫)

এই রাষ্ট্র তার দেশের নাগরিকদের আশা আকাঙ্ক্ষার প্রতিফলন। আর রাষ্ট্রনায়করা সেই আশা আকাঙ্ক্ষাকে বাস্তবে রূপ দেন। ফলে এই গুরু দায়িত্বটি খুব সহজ বিষয় নয় এই ছবিগুলো আপনাকে তাই বোঝাবে। গ্যালারিতে আরো দেখুন

তথ্যসূত্রঃ বোরপান্ডা

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...