The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

সংক্ষিপ্ত স্বাস্থ্যকথা (১১-২-১৩)

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ স্বাস্থ্য নিয়ে আমরা অনেকেই অজ্ঞ। কিভাবে চললে শরীর-স্বাস্থ্য ভালো থাকে সেদিকে আমাদের খেয়াল রাখা অতি জরুরি। আর তাই মানব স্বাস্থ্যের নানা শর্ট নিউজ নিয়ে আমাদের আয়োজন সংক্ষিপ্ত স্বাস্থ্যকথা। আশা করি ছোট ছোট এসব স্বাস্থ্য ট্রিপস পড়ে সকলেই উপকৃত হবেন।
Book-01
অল্প আলোয় বই পড়লে কি আদৌ চোখ নষ্ট হয়?

অল্প আলোতে বই পড়লে চোখ নষ্ট হওয়ার আশংকা থাকে- এতদিন ধরে এ কথাই প্রচলিত ছিল। কিন্তু আজও এ তথ্যের সপক্ষে কোনও প্রমাণ মেলেনি। বরং অনেক গবেষক বলেছেন, উল্টো কথা। তাদের যুক্তি, বিভিন্ন ধরনের লাইট লেভেল অনুযায়ী আমাদের কীভাবে খাব খাইয়ে নিতে হয়, তা আমাদের চোখ ভালো করেই বোঝে। ফলে কম আলোতে বই পড়লে চোখ নষ্ট হওয়ার প্রশ্নই আসে না। বলা হয়ে থাকে, কম আলোতে পড়াশোনা করে ছেলেমেয়েরা চোখের সমস্যা তৈরি করে, তারপর চশমা পরতে হয়। কিন্তু একটি ব্রিটিশ গবেষণায়, ৮৬ শতাংশ চোখের সমস্যাকে জেনেটিক কারণ হিসেবে ব্যাখ্যা করা হয়েছে। -ডা. আলমগীর মতি, হারবাল গবেষক ও চিকিৎসক

কোলিন শিশুদের মানসিক রোগ থেকে রক্ষা করে

যুক্তরাজ্যের ইউনিভার্সিটিস অব করনেল এবং রচেস্টার মেডিকেল সেন্টারের পুষ্টিবিদরা জানিয়েছেন, গর্ভাবস্থায় মহিলারা যদি নিয়মিত ডিম ও মাংস খান তাহলে তাদের শিশুরা মানসিক রোগ থেকে রক্ষা পেতে পারে। কারণ হিসেবে তারা জানিয়েছেন, ডিম ও মাংসজাতীয় খাবারের জীবন্ত টিস্যুতে প্রচুর পরিমাণে কোলিন থাকে। গর্ভকালে মায়ের খাদ্য তালিকায় যত বেশি কোলিন থাকবে শিশুর মানসিক ভারসাম্যতা ততই ভালো অবস্থায় থাকবে। এই কোলিন উপাদান বিশৃঙ্খল মানসিক অবস্থার বিরুদ্ধে সক্রিয় ভূমিকা রাখে বলে বিজ্ঞানীরা দাবি করেছেন।
কার্যকারিতা : মাথা ঠাণ্ডা রাখে, সুনিদ্র আনয়ন করে, খুশকি দূর করে, চুল পড়া বন্ধ করে, চুল ঘন, কালো ও দীর্ঘ করে চুলের অকালপক্বতা রোধ করে। -ডা. আলমগীর মতি, হারবাল গবেষক ও চিকিৎসক।

কালো জিরার অনেক গুণ

কালোজিরার প্রধান উপাদানের মধ্যে রয়েছে প্রোটিন ২১ শতাংশ, শর্করা ৩৮ শতাংশ, স্নেহ ৩৫ শতাংশ। এছাড়াও রয়েছে ভিটামিন ও খনিজ পদার্থ। প্রতিদিন সকালে এক চিমটি কালোজিরা এক গ্লাস পানির সঙ্গে খেলে ডায়াবেটিস রোগীর রক্তের গ্লুকোজ নিয়ন্ত্রণে থাকে। হাঁপানি রোগীদের শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যায় দীর্ঘদিন কালোজিরা সেবনে উপকার পাওয়া যায়। কালোজিরায় রয়েছে ১৫টি অ্যামাইনো এসিড। আমাদের দেহের জন্য প্রয়োজন ৯টি অ্যাসেনশিয়াল অ্যামাইনো এসিড, যা দেহে তৈরি হয় না, অবশ্যই খাবারের মাধ্যমে এর অভাব পূরণ করতে হয়। প্রসূতি মায়ের দুগ্ধ বাড়াতে ও মাসিকের নিয়মিতকরণে এবং মাসিকের ব্যথা নিবারণে কালোজিরার ভূমিকা রয়েছে। – ডা. আলমগীর মতি, হারবাল গবেষক ও চিকিৎসক

খাওয়ার আগে ফল খান

অধিকাংশ ক্ষেত্রে মানুষ মূল খাবারের পর ফল খেতে অভ্যস্ত। কিন্তু এটা একটা ভুল পদ্ধতি। ফল খেতে হবে খালি পেটে। মনে করুন আপনি প্রথমে দুই টুকরা রুটি খেলেন এবং তারপর এক টুকরা ফল খেলেন। ফলের টুকরা পাকস্থলী হয়ে সরাসরি অন্ত্রে নেমে যেতে প্রস্তুত কিন্তু তা হয় না। আসলে হতে দেয়া হয় না। ইতিমধ্যে আপনার গৃহীত খাবার পাকস্থলীতে এসিড এবং পাচক রসের সংস্পর্শে আসে, আপনার খাওয়া পুরো খাদ্য নষ্ট হতে শুরু করে। এ থেকে পরিত্রাণ পেতে খালি পেটে অথবা মূল খাবারের আগে ফল খান।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...