ওয়াই-ফাইয়ের কারণে শারীরিক যেসব সমস্যা হতে পারে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ আমরা অনেকেই ঘরের মধ্যে ওয়াই-ফাই রেখে ব্যবহার করি। কিন্তু ওয়াই-ফাইয়ের কারণে শারীরিক যেসব সমস্যা হতে পারে সে সম্পর্কে আমরা মোটেও অবগত নই। কী কী সমস্য হতে পারে জেনে নিন।

Wi-fai

আমরা অনেকেই ওয়াই-ফাই প্রযুক্তি ব্যবহার করি। কিন্তু এর ক্ষতিকর দিক সম্পর্কে আমাদের কিছুই জানা নেই। ওয়াই-ফাই এর ক্ষতিকর দিকগুলো আমাদের জানা থাকলে আমরা কিছু নিয়ম মেনে চলতে পারবো। সেক্ষেত্রে ক্ষতির পরিমাণটা কমে আসবে। কারণ বিষয়টি জানা না থাকলে ব্যবহারকারীদের স্বাস্থ্যগত বেশ কিছু সমস্যা তৈরি হতে পারে- এমনটি জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। কারণ হলো আমাদের অনেককেই অফিস বা বাড়িতে ওয়াই-ফাই এর রেডিয়েশনের মধ্যে বসবাস করতে হচ্ছে।

Wi-fai-2

বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, ওয়াই-ফাই প্রযুক্তির ক্ষতিকর রেডিয়েশন মানবদেহের জন্য ক্ষতিকর। বিশেষ করে শিশুদের ওপর এর বিকিরণ সবচেয়ে বেশি প্রভাব ফেলতে পারে। ঘরের মধ্যে থাকা মডেম বা রাউটারগুলো হতে বের হওয়া রেডিয়েশন ঘরের বাতাসকে ক্রমেই দূষিত করে তুলছে। আসুন জেনে নেওয়া যাক এই ওয়াই-ফাই এর বিকিরণ আমাদের কী কী শারীরিক ক্ষতি করতে পারে।

Wi-fai-3

নিদ্রাহীনতা দেখা দিতে পারে

বিশেষজ্ঞরা বলেছেন যে, যারা দিনের বেশিরভাগ সময় ওয়াই-ফাই রেডিয়েশনের মধ্যে থাকেন, তাদের নিদ্রাহীনতার সমস্যা হতে পারে। তাই ঘুমানোর সময় অবশ্যই ওয়াই-ফাই বন্ধ করে ঘুমানো প্রয়োজন।

শিশু বা গর্ভবতী মহিলা

শিশু বা গর্ভবতী মহিলাদের ওয়াই-ফাই সম্পর্কে অত্যন্ত সচেতন হওয়া দরকার। এর বিকিরণ ভয়ঙ্কর প্রভাব ফেলতে পারে গর্ভবতী মহিলাদের ওপর। আবার শিশুদের ক্ষেত্রেও এই ওয়াই-ফাই অনেক ঝুঁকিপূর্ণ। তাই বাড়িতে যদি ছোট শিশু থাকে, তাহলে অবশ্যই ওয়াই-ফাই প্রযুক্তিকে এড়িয়ে চলতে হবে।

মস্তিষ্কের ক্ষমতা হ্রাস পেতে পারে

বিশেষজ্ঞদের মতে, ওয়াই-ফাই বিকিরণের কারণে মস্তিষ্কের ক্ষমতা হ্রাস পেতে পারে। যেমন স্কুলে পড়া বাচ্চাদের ক্ষেত্রে ওয়াই-ফাইয়ের মারাত্মক প্রভাব পড়তে পারে। আর বড়দের ক্ষেত্রে মনসংযোগের অভাব দেখা দেয় অনেক বেশি।

এনার্জি লেভেল ও ওয়াই-ফাই বিকিরণ

য়াই-ফাই বিকিরণ বিশেষ করে মহিলাদের ক্ষেত্রে দেখা গেছে, যারা ওয়াই-ফাই বিকিরণের মধ্যে থাকেন, তাদের এনার্জির মাত্রা অনেক কম যায়।

কোষের বৃদ্ধিতে ব্যাঘাত ঘটতে পারে

কোষের বৃদ্ধিতে প্রতিবন্ধক হয়ে দাঁড়াতে পারে এই ওয়াই-ফাই এর বিকিরণ। অবশ্য মোবাইলের বিকিরণও সমানভাবে ক্ষতি করে থাকে। তাই বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ হলো, যতোটা সম্ভব ততোটা কমানো উচিত প্রযুক্তির ব্যবহার।

অস্বাভাবিক মাথা ব্যথা

অস্বাভাবিক মাথা ব্যথা হতে পারে এই ওয়াই-ফাই এর বিকিরণের কারণে। কারণ হলো মাত্রাতিরিক্ত বিকিরণের মধ্যে থাকলে মাথা ব্যথা হওয়া খুবই স্বাভাবিক ব্যাপার। প্রথমে খুব একটা বোঝা না গেলেও পরবর্তীতে মাথা ব্যথার মাত্রা অনেক বেড়ে যেতে পারে।

প্রজনন অক্ষমতা

বিশেষজ্ঞরা বলেছেন যে, পুরুষদের ওপর এই ওয়াই-ফাই এর প্রভাব পড়ে সবচেয়ে বেশি। শুধু স্পার্ম নয়, ডিএনএ-তেও প্রভাব পড়ে। যে কারণে পুরুষদের প্রজনন ক্ষমতা কমে যেতে পারে।

হৃদকম্পন বৃদ্ধি পেতে পারে

ওয়াই-ফাই এর বিকিরণের কারণে ক্ষতিকর প্রভাব পড়তে পারে হৃদকম্পনের ওপর। এর কারণে অনেকের হৃদকম্পন বেড়ে যেতে পারে। হার্টের দুর্বলতা থাকলে এর প্রভাব আরও বেশি পড়তে পারে বলে বিশেষজ্ঞরা মত দিয়েছেন।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...