এক পাষণ্ড মা: বনশ্রীর দুই সন্তানকে তার মা নিজ হাতে খুন করে!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ এমন মা কি কখনও হতে পারে। মা তার সন্তানের জন্য নিজের জীবন উৎসর্গ করেন, তার নজিরও রয়েছে অনেক। কিন্তু এবার এমন এক পাষণ্ড মা’র খবর সকলকে হতবাক করেছে। বনশ্রীর দুই সন্তানকে তার মা নিজ হাতে খুন করে!

two children & mother

ঢাকার রামপুরার বনশ্রীতে দুই ভাই-বোনকে খুনের ঘটনায় তাদের মায়ের স্বীকারোক্তি সকলকেই হতবাক করেছে। আজ র‌্যাবের পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলন করে বলা হলো, ‘সন্তানদের ভবিষ্যত নিয়ে ‘দুশ্চিন্তার এক পর্যায়ে’ নিজের ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধে ছেলে ও মেয়েকে হত্যা করেন ওই নারী!

প্রথমে খাবারে বিষক্রিয়ায় দুই শিশুর মৃত্যুর কথা বলা হলেও ময়নাতদন্তে হত্যার আলামত পাওয়ার পর ৩ দিন আগের এই ঘটনা নিয়ে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। র‌্যাব দুই শিশুর বাবা, মা ও খালাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করলে বেরিয়ে আসতে থাকে নানা ঘটনা। বিশেষ করে ময়না তদন্ত রিপোর্টে শ্বাসরোধ করে হত্যার কথা উল্লেখ করা হলে বিষয়টি পরিষ্কার হয় তদন্তকারীদের কাছে।

ওই ৩ জনকে ঢাকার র‌্যাব কার্যালয়ে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে দুই শিশুর মা মাহফুজা মালেক জেসমিনের স্বীকারোক্তি আসে বলে র‌্যাবের পক্ষ থেকে জানানো হয়।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, ‘তাদের মা পরিকল্পিতভাবেই সন্তানদের হত্যার কথা জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছেন।’

মাহফুজা কেনো তার সন্তানদের হত্যা করেছেন- এই প্রশ্নে র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক মুফতি মাহমুদ খান বলেছেন, ‘সাধারণত এই জাতীয় হত্যাকাণ্ডের পেছনে পারিবারিক বিরোধ কিংবা মানসিক অশান্তির বিষয় থাকে। এই ঘটনাটি কী কারণে হয়েছে তা সংবাদ সম্মেলনে জানানো হবে।’

অবশ্য র‌্যাবের গণমাধ্যম শাখা থেকে সংবাদকর্মীদের পাঠানো এক এসএমএসে বলা হয়েছে, ‘পারিবারিক জটিলতার জের ধরে ২৯ ফেব্রুয়ারি অনুমানিক বিকাল ৫টার সময় রামপুরার বনশ্রীর বাসায় দুই শিশুকে হত্যা করেন তাদের মা।’

দুপুরে উত্তরার র‌্যাব সদর দপ্তরে সাংবাদিকদের সামনে আসেন মুফতি মাহমুদ খান। তিনি সাংবাদিকদের বলেছেন, জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে দুই শিশুর মা মাহফুজা মালেক জেসমিন তার সন্তানদের ‘নিজেই হত্যা করেছেন’ বলে স্বীকারও করেছেন। হত্যাকাণ্ডের বিবরণও তিনি বিস্তারিতভাবে দেন।

দুই শিশুর মধ্যে ১৪ বছর বয়সী নুসরাত জাহান অরণী ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের ইস্কাটন শাখার সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী ছিল। হলি ক্রিসেন্ট স্কুলের নার্সারিতে পড়তো তার ছোটভাই আলভী আমান (৬)।

উল্লেখ্য, সোমবার রাত ৮টার দিকে রামপুরা বনশ্রীর বাসা হতে অচেতন অবস্থায় তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদেরকে মৃত ঘোষণা করেন। প্রথমে বলা হয়, চাইনিজ রেস্তোরাঁ হতে আনা খাবার খেয়ে শিশু দুটির মৃত্যু হয়েছে বলে সন্দেহের কথা পরিবারের পক্ষ হতে বলা হলেও পরদিন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ময়নাতদন্তে দেখা যায় শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে তাদের।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...