বন্ধুর ভালোবাসা কাকে বলে আজ জানুন!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ ফেসবুকের মাধ্যমে অনেক অপরিচিত ব্যক্তির সঙ্গেই পরিচয় ঘটে। ফেসবুকে যারা থাকেন তাদেরকে ফেসবুকের ভাষায় বন্ধুই বলা হয়। তবে তারা কি প্রকৃত বন্ধু? আজ রয়েছে এক প্রকৃত বন্ধুর গল্প!

love-of-friends

সবার মনে প্রশ্ন আসতে পারে, ফেসবুকের একজন ব্যক্তি তার প্রোফাইলে ৫ হাজার জনকে বন্ধু বানাতে পারেন। তাহলে কী সবাই কি বন্ধু? একজনের কী এতোজন বন্ধু থাকা সম্ভব?

বা অনেকের মনে প্রশ্ন আসতে পারে ফেসবুক বন্ধুরা কি বিপদে পড়লে এগিয়ে আসে? অবশ্যই করে। তার প্রমাণ এবার পাওয়া গেছে। সম্পূর্ণ অপরিচিত এক ফেসবুক বন্ধুকে কিডনি দান করলেন ব্রিটেনের এক নারী!

বিশ্বের ইতিহাসে এই দুই সন্তানের মা লুইস ড্রিউয়েরি প্রথম কোনো ব্রিটিশ নাগরিক, যিনি ফেসবুকের সম্পূর্ণ অপরিচিত একজনকে নিজের কিডনি দান করলেন! স্টেসি হিউইট নামে এক মেয়ের বাবা ফেসবুকে অসহায়ভাবে আবেদন করে লেখেন, কেও কী তার মেয়েকে একটি কিডনি দান করে বাঁচাতে এগিয়ে আসবেন?

দুই সন্তানের মা লুইস ড্রিউয়েরি ফেসবুকে ওই পোস্টটি পড়ার পর এক মুহূর্তও ভাবেননি। আর কি, দু’পক্ষই যখন রাজি, তখন আর সময় নষ্ট করে টেনশনে থাকার কেনো মানে হয় না। নিউক্যাসল কিডনি প্রতিস্থাপন কেন্দ্রে সফল একটি অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে কিডনি দান করলেন লুইস ড্রিউয়েরি। অপারেশনের পর দুজনই সুস্থ রয়েছেন।

কিডনি দানের পর লুইস ড্রিউয়েরি একটু মজা করে বলেছেন, স্ট্রেসির সঙ্গে চিরজীবনের সম্পর্ক তৈরি হয়ে গেলো। গোটা ব্রিটেন তো বটেই, গোটা পৃথিবী শুভেচ্ছা জানিয়েছে লুইস ড্রিউয়েরিকে। সত্যিই তার মতো করে এই পৃথিবীর কজনই বা মানুষের জন্য ভাবেন? মানব কল্যাণে সকলেই যদি এভাবে এগিয়ে আসতেন তাহলে পৃথিবীতে হয়তো দু:খ-কষ্ট মানুষের দ্বারপ্রান্তে ঘেষতে পারতো না।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...