The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

ভিনগ্রহীরা পৃথিবীর সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করছে!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ ভিন গ্রহের প্রাণীদের বলা হয়ে থাকে অ্যালিয়েন। বাস্তবে এখন পর্যন্ত ভিন গ্রহী প্রাণী বা অ্যালিয়েনের দেখা পাওয়া না গেলেও, ধারণা করা হয় যে অ্যালিয়েন রয়েছে। ভিনগ্রহীরা নাকি পৃথিবীর সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করছে!

aliens-are-trying-to-communicate-with-world

ভীনগ্রহীদের ধারণা এবার আরও জোড়ালো করেছে মহাকাশ হতে আগত বেশ কিছু রেডিও সংকেত। তাহলে কী সত্যিই অ্যালিয়েনের অস্তিত্ব রয়েছে?

গবেষকরা সম্প্রতি ৩ বিলিয়ন আলোকবর্ষ দূর হতে আগত ৬টি রেডিও সংকেত পেয়েছেন। যদিও এই সংকেতগুলো এসেছে অনেক অনেক দূর অর্থাৎ ৩ বিলিয়ন আলোকবর্ষ দূর হতে। সেখান থেকেই কী ভিনগ্রহের প্রাণীরা এসব সংকেতের মাধ্যমে পৃথিবীর সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করছে? এমন প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে গবেষকদের মনেও।

ওয়েস্ট ভার্জিনিয়ার মন্ট্রিলের ম্যাক গ্রিল বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক গ্রিন ব্যাংক টেলিস্কোপ ব্যবহার করে এই বেতার তরঙ্গগুলো শণাক্ত করেছেন। এসব বেতার তরঙ্গ মাত্র কয়েক মিলি সেকেন্ড স্থায়ী ছিলো।

এসব তরঙ্গের উৎপত্তিস্থলটা যদিও অজানা, তবে মনে করা হচ্ছে, এর মাধ্যমে অ্যালিয়েনরা পৃথিবীর সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করছেন।

পল স্কল্জ এর নেতৃত্বে গবেষকরা ‘দ্য অ্যাস্ট্রোফিজিক্যাল জার্নাল’ -এ প্রকাশিত তাদের রিসার্চ পেপারে বলেছেন, ‘আমরা ৬টি সিগন্যালের মধ্যে ৫টি শণাক্ত করি গ্রিন ব্যাংক টেলিস্কোপ (২ গিগাহার্জ কম্পাঙ্কে) দিয়ে। অপরটি শণাক্ত করি আরেসিবো অবজারভেটরি দিয়ে (১.৫ গিগাহার্জ কম্পাঙ্কে)। এটা নিয়ে মোট ১৭টি সংকেত পাওয়া গেলো। যার আগের ১১টিও ওই একই লোকেশন হতেই শণাক্ত করা হয়েছিল। ওই স্থানের সাংকেতিক নাম হলো এফআরবি ১২১১০২।

এই সংকেতগুলোকে বিজ্ঞানীরা এফআরবি (FRB- fast radio bursts) বলে অভিহিত করেছেন। যদিও এই সংকেতের নির্দিষ্ট উৎপত্তিস্থল নিয়ে বিজ্ঞানীরা এখনও পুরোপুরিভাবে নিশ্চিত নন।

গবেষকরা বলেছেন, পরিচিত নমুনা এফআরবি ১২১১০২ বর্তমানে একটি অনন্য বিষয় বটে। বহির্জাগতিক এফআরবি সংকেতগুলোর চরিত্রায়ন বোঝার জন্য ফাস্ট এ·ট্রাগ্যালাটিক রেডিও ট্রানসিয়েন্ট বোঝার প্রয়োজন।
পূর্বে যখন ১১টি সংকেত পাওয়া গিয়েছিল, তখন জ্যোতির্বিদগণ এসইটিআই (সার্চ ফর এ·ট্রাটেরেস্ট্রিয়াল ইন্টেলিজেন্স) -এর সাহায্য চেয়েছিল আরও নিবিড় পর্যবেক্ষণের জন্য। তবে এটা এখনও পরিষ্কার না যে, ম্যাক গ্রিলের গবেষকরা সাহায্য চাইবেন কিনা।

অ্যালিয়েনদের সঙ্গে যোগাযোগ করা কী বুদ্ধিমানের কাজ হবে? আমাদের থেকে কোনো বুদ্ধিমান প্রাণী কি আদৌ রয়েছে? এটা নিয়ে জল্পনা কল্পনার শেষ নেই।

এ বিষয়ে স্টিফেন হকিং বলেছেন, আমরা একটি ভয়ংকর খেলায় মেতে উঠেছি, মূলত তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করে। এই পদার্থবিদ মনে করেন যে, যদি অ্যালিয়েনরা পৃথিবী সম্পর্কে জানতে পারে কিংবা আবিষ্কার করতে পারে তবে তারা এটাকে দখল করতে চাইবে। এখানে তাদের স্থায়ী উপনিবেশ স্থাপন করতে চাইবে।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...