The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

ভূমিকম্পে পানিও হয়ে যায় সোনা!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ সাম্প্রতিক সময়ে ভূমিকম্পের মাত্রা বৃদ্ধি পেয়েছে। কিন্তু ভূমিকম্পের পর পানি যে সোনাতে পরিণত হয় এমন খবর এটিই প্রথম। আসলেও কী তাই?

earthquakes-turn-water-into-gold

এই প্রাকৃতিক দুর্যোগের ক্ষতিকর দিক ও রক্ষার উপায় নিয়ে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে আলোচনা করা হয়ে থাকে। তবে এবার জানুন ভূমিকম্পের একটি ব্যতিক্রমী দিক সম্পর্কে। যেখানে বিজ্ঞান প্রমাণ করেছে, ভূমিকম্পের কারণে নাকি পানি হয়ে যায় সোনা!

ভূমিকম্পের এই ব্যতিক্রমী দিকটি তুলে ধরেছে যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাগাজিন লাইভসায়েন্স ডটকম। ম্যাগাজিনের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভূমিকম্পের প্রভাবে পানি সোনায় পরিণত হয়। পৃথিবীর মোট স্বর্ণভাণ্ডারের ৮০ শতাংশই নাকি এভাবেই সৃষ্টি!

অস্ট্রেলিয়ার ইউনিভার্সিটি অব কুইন্সল্যান্ডের ভূপদার্থবিদ অধ্যাপক ডিওন ওয়েদারলি ভূমিকম্পে পানির সোনায় পরিণত হওয়া নিয়ে একটি মডেল তৈরি করেছেন। সেই মডেলে দেখানো হয়েছে, কীভাবে ভূমিকম্পের তীব্র কম্পনে পাথর এবং ধাতু চাপে-তাপে সোনায় রূপান্তরিত হয়ে যায়!

গত বছর নেচার জিওসায়েন্স জার্নালে এই মডেলটি নিয়ে একটি বিশেষ প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়। সেই প্রতিবেদনে ডিওন ওয়েদারলি জানান, ভূমিকম্পের কারণে পানি সোনায় পরিণত হওয়ার একটি প্রাকৃতিক উপায়।

কিন্তু পরীক্ষাগারে কৃত্রিমভাবে পানিকে সোনায় রূপান্তর সম্ভব হলেও স্বাভাবিক ভূমিকম্পে ভূ-পৃষ্ঠের ওপর এই সোনা সৃষ্টি সম্ভব নয় বলে জানান তিনি। ডিওন ওয়েদারলি এই বিষয়টি ব্যাখ্যা করেন তার পানি হতে সোনা তৈরি করার বিশেষ মডেলের সাহায্যে। সেখানে দেখানো হয় যে, ভূমিকম্পে কীভাবে সাগরতলায় বড় ধরনের চ্যুতির সৃষ্টি হয়ে থাকে।

এই চ্যুতির কারণে সৃষ্ট বড় ফাটল সঙ্গে সঙ্গেই পানি দিয়ে ভরে যায়। এই ফাটলগুলো যতো বড় হয়, ততোই এটি ভূ-অভ্যন্তরে লাভার কাছাকাছি পৌঁছে যায়। অতি উচ্চ তাপমাত্রার লাভায় থাকা সিলিকা, কার্বন-ডাইঅক্সাইড, খনিজ স্ফটিক পানির অক্সিজেনের সংমিশ্রণে এসে তা সোনা উৎপন্ন করে।

প্রতিবেদনটিতে অধ্যাপক ডিওন ওয়েদারলি আরও জানিয়েছেন, পুরো বিষয়টি যতো সহজে বলে ফেলা যায়, আদতে বিষয়টি ততোটা সহজ নয়। তাই শত বছর পর কোনো একটি বিশেষ মাত্রার ভূমিকম্পে প্রকৃতিতে বিপুল পরিমাণ সোনা উৎপন্ন হয়ে থাকে।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...