ডেথ জোনে রেসকিউ টিম ॥ মিলেছে খালেদের ব্যাগ ॥ খালেদের মরদেহ বরফে ঢেকে যাওয়ার আশঙ্কা

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ সর্বোচ্চ পর্বত শৃঙ্গ এভারেস্টের চূড়া জয় শেষে নেমে আসার পথে নিহত খালেদের ডেথ জোনে পৌঁছেছে রেসকিউ টিম। সেখান থেকে সজলের একটি ব্যাগ উদ্ধার করেছেন তারা। তবে গতকাল পর্যন্ত তার মরদেহের সন্ধান পাননি উদ্ধারকারীরা। ধারণা করা হচ্ছে বরফে ঢেকে গেছে খালেদের মরদেহ। খবর বিভিন্ন অনলাইন পত্রিকা সূত্রের।

khaled-24

শেরপারা ধারণা করছেন, হিমালয়ের প্রায় সাড়ে ৮ হাজার মিটার উচ্চতায় অবস্থিত সজলের মরদেহ বরফে ঢেকে গেছে। আজকের মধ্যে মরদেহের সন্ধান মিলতে পারে। নেপালে বাংলাদেশ দূতাবাসের ফার্স্ট সেক্রেটারি শামীমা চৌধুরী গতকাল টেলিফোনে সংবাদ মাধ্যমকে এ তথ্য জানান। তিনি বলেন, বৈরী আবহাওয়ার কারণে সাউথ সামিটে অবস্থান করতে না পারায় মরদেহ উদ্ধারে যাওয়া শেরপারা ওই ব্যাগ নিয়ে হিমালয়ের ৬৮০০ মিটারে অবস্থিত ক্যাম্প ৪-এ ফিরে এসেছে। শেরপা দল প্রায় ঘণ্টা দুয়েক ডেথ জোনে অবস্থান করে খালেদের ব্যাগ খুঁজে পেয়েছে। শামীমা চৌধুরী আরও বলেন, আজ সকালে দ্বিতীয় পদক্ষেপ নিতে শেরপাদল আবারও সাউথ সামিটে ফিরে যাবে। তাদের ধারণা, সজলের মরদেহ বরফে ঢেকে গেছে। এর আগে শনিবার খালেদের মরদেহ নামিয়ে আনতে হিমালয়ের বেস ক্যাম্প থেকে সাউথ সামিটের পথে রওনা দেয় একদল শেরপা।

এ অভিযানে ১২ জনের এই শেরপা দলের সঙ্গে একটি ব্যাকআপ দলও রয়েছে, যারা তাৎক্ষণিক সহযোগিতা দেবে। সজল খালেদের মৃতদেহ হিমালয়ের প্রায় ৮৭৫০ মিটার উচ্চতায় সাউথ সামিটে রয়েছে। তার মরদেহ উদ্ধারে ২৪ মে সেভেন সামিট ট্র্যাকিং লিমিটেডের সঙ্গে একটি ত্রিপক্ষীয় চুক্তি হয় নেপালের পর্যটন মন্ত্রণালয় ও বাংলাদেশ দূতাবাসের। চুক্তি অনুযায়ী, প্রতি আধা ঘণ্টা পরপর উদ্ধার তৎপরতার সর্বশেষ অবস্থা ও ভিডিওচিত্র সরবরাহের পাশাপাশি স্যাটেলাইট প্রযুক্তি ব্যবহার করবে সেভেন সামিট। শেরপারা সজল খালেদের মরদেহকে বেস ক্যাম্প-২ পর্যন্ত নিয়ে এলে সেখান থেকে তা হেলিকপ্টারে কাঠমান্ডুতে আনা হবে। প্রকৌশল ডিগ্রিধারী খালেদের গ্রামের বাড়ি মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগরে। ছয় ভাই বোনের মধ্যে তিনি সবার ছোট। হিমালয়ের মেরা পিক, চুলু ওয়েস্ট ও লান্সিসারি চূড়া জয় করেছিলেন তিনি। এদিকে খালেদের মরদেহের জন্য তার পরিবারের সদস্যরা অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন।

উল্লেখ্য, এভারেস্ট চূড়া থেকে ফেরার পথে গত ২০শে মে মারা যান চলচ্চিত্র নির্মাতা মোহাম্মদ খালেদ হোসেন। পরিবারের আবেদনের প্রেক্ষিতে তার মরদেহ দেশে ফিরিয়ে আনার জন্য প্রয়োজনীয় অর্থ যোগাচ্ছে সরকার।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...