দেশে তৈরি হওয়া হাঙ্ক পাওয়া যাবে কম দামে

স্পোর্টি লুক ও মাসকুলার বডির জন্য তরুণদের কাছে অত্যন্ত জনপ্রিয়তা পায় হাঙ্ক বাইক

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ এবার দেশেই তৈরি হচ্ছে হিরো হোন্ডার জনপ্রিয় হাঙ্ক বাইক। দেশে তৈরি এই বাইকটি বেশ কম দামে পাওয়া যাচ্ছে। স্পোর্টি লুক ও মাসকুলার বডির জন্য তরুণদের কাছে বাইকটি জনপ্রিয়তা পায়।

হিরো ও হোন্ডা পৃথক হওয়ার পরও হিরো হাঙ্কের উৎপাদন অব্যাহত রাখে। স্পোর্টি লুক ও মাসকুলার বডির জন্য তরুণদের কাছে অত্যন্ত জনপ্রিয়তা পায় হাঙ্ক বাইকটি। তবে ভারতে এই বাইকটির উৎপাদন সম্প্রতি বন্ধও হয়ে গেছে। এবার নতুন খবর হলো বাংলাদেশেই তৈরি যাচ্ছে হাঙ্ক।

সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, যশোরের একটি কারখানায় এই বাইকটি তৈরি হচ্ছে। নিলয় মোটরস লিমিটেড ও হিরো মোটর করপোরেশন যৌথভাবে এই কারখানাটি পরিচালনা করছে।

হিরো হোন্ডার হাঙ্কের সঙ্গে হিরো হাঙ্কের ডিজাইনগত কিছুটা পার্থক্য রয়েছে। তবে ইঞ্জিনের পারফরমেন্স থাকবে একই রকম। নতুন হাঙ্কে কাঠামোগত কোনো পরিবর্তন না এলেও এর গ্রাফিক্সে বেশ কিছু পরিবর্তন করা হয়েছে বলে জানানো হয়েছে। নতুন হাঙ্ক বাইকে ফিয়েরি পাইরোক্লাস্টিক গ্রাফিক্স ব্যবহার করা হয়েছে। যে কারণে দেখতে এটি আরও অনেক বেশি আকর্ষণীয় হয়েছে। এর নতুন কনসোলে রয়েছে সাইড স্ট্যান্ড ইন্ডিকেটর।

হিরো হাঙ্কে রয়েছে শক্তিশালী এটিএফটি ইঞ্জিন। এই বাইকে জিআরএস সাসপেনশন ব্যবহার করা হয়েছে। যে কারণে বাইকের আরোহী এবং চালক আরামদায়ক ভ্রমণ উপভোগ করবেন।

হিরোর দেশীয় পরিবেশক নিলয় মটরস লিমিটেডের তেজগাঁও শাখার বিক্রয় ও বিপণন বিভাগের নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ কামরুল হাসান সংবাদ মাধ্যমকে বলেছেন, ভারতে হাঙ্কের উৎপাদন বন্ধ হলেও বাংলাদেশে এর উৎপাদন অব্যাহত রয়েছে। ভারতে উৎপাদিত হাঙ্কের চেয়ে বাংলাদেশে উৎপাদিত হাঙ্কের দাম অনেক কম। নগদের পাশাপাশি কিস্তিতে হাঙ্কসহ হিরোর সকল মোটরসাইকেল কেনা সম্ভব।

৬টি রঙ ও লুকে হিরো হাঙ্ক পাওয়া যাচ্ছে। এগুলো হলো, প্যানথার ব্ল্যাক, পার্ল হারবার গ্রিন, ইবোনি গ্রে, হোয়াইট, বোল্ড ব্রাউন ও ব্লেজিং রেড।

হাঙ্কে রয়েছে ৪ স্ট্রোক সিঙ্গেল সিলিন্ডার ওএইচসি। ডিসপ্লেসমেন্ট ১৪৯.২ সিসি। সেলফ স্টার্টার সম্বলিত বাইকটিতে রয়েছে ৫ স্প্রিড গিয়ার ট্রান্সমিশন। মাল্টিপ্লেট ওয়েট ক্লাচের এই বাইকটির ফ্রন্টে টেলিস্কোপিক হাইড্রোলিক শক অ্যাবসর্ভারও রয়েছে। বাইকটির রিয়ারে রয়েছে ৫ ধাপের অ্যাডজাস্টেবল ইনভার্টেড গ্যাস রিজারভয়ার সাসপেনশন।

জানা গেছে, হাঙ্কের ফুয়েল ট্যাংক ক্যাপাসিটি হলো ১২.৮ লিটার। বাইকটির রিজার্ভের জ্বালানির ধারণ ক্ষমতা ২.২ লিটার।

বাংলাদেশে উৎপাদিত এই হাঙ্ক শুধুমাত্র ডাবল ডিস্ক ব্রেক ভার্সনে পাওয়া যাচ্ছে। হাঙ্কের মূল্য রাখা হয়েছে ১ লাখ ৫৯ হাজার টাকা।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...