এইডস প্রতিরোধে মোজাম্বিকে লাখো পুরুষের খতনা!

এইডস ও অন্যান্য যৌনবাহিত রোগ হতে বাঁচানোর জন্যই এমন উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ এইডস প্রতিরোধে আফ্রিকার দেশ মোজাম্বিকে লাখো পুরুষের খতনা করানো হচ্ছে বলে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম সূত্রে জানা গেছে!

সংবাদ মাধ্যম বিবিসির এক খবরে জানা যায়, আফ্রিকার দেশ মোজাম্বিকের জামবেজিয়া নামক একটি প্রদেশের এক লাখ পুরুষকে খতনা করানো হবে। খতনা করানোর কারণ হিসেবে জানা যায়, এইডস ও অন্যান্য যৌনবাহিত রোগ হতে বাঁচানোর জন্যই এমন উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

জানা গেছে যে, মোজাম্বিকের জামবেজিয়া প্রদেশের যেসব এলাকায় খতনা করার প্রচলন নেই, সেগুলোকেই প্রচারণার টার্গেট করা হয়েছে। জামবেজিয়ার অটো-মলোক, ইল ও গুরুয়ে জেলাগুলোতে এই মুসলমানির কার্যক্রম চালানো হবে বলে সংবাদ মাধ্যমকে জানানো হয়েছে।

শুধু এ বছরই নয়, গত বছরও এই কর্মসূচির আওতায় জামবেজিয়াতে ৮৪ হাজার পুরুষের খতনা করানো হয়েছিল। এবছর এই লক্ষ্যমাত্রা বাড়ানো হয়েছে। প্রদেশের গভর্নর আব্দুর রাজ্জাক, যিনি নিজেও পেশায় একজন চিকিৎসক, এই খতনা কর্মসূচিকে পূর্ণ সমর্থন করছেন। সংবাদ মাধ্যমকে তিনি বলেছেন, পুরুষের খতনা এইচআইভি/এইডস প্রতিরোধে যেমন সাহায্য করে, তেমনি যৌনবাহিত নানা রোগ থেকে রক্ষা করে। যদিও এইডস রোগ সারায় না।

এক তথ্যে জানা যায়, কাওকেই খতনা করতে জোর করা হচ্ছে না, স্বইচ্ছায় করানো হচ্ছে। স্বাস্থ্য কর্মীরা শুধু বোঝানোর চেষ্টা করছেন যে এতেকরে এইডস প্রতিরোধে সাহায্য হতে পারে।

জানা গেছে, দুই ধাপে এই খতনা প্রকল্পে খরচ হবে ৭ লাখ ২৮ হাজার মার্কিন ডলার। পুরো প্রকল্পের অর্থায়ন করছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ইমার্জেন্সি প্ল্যান ফর এইডস রিলিফ নামক সংস্থাটি। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট দপ্তরের অর্থায়নে পরিচালিত এই চ্যারিটি প্রতিষ্ঠানটি এইডস প্রতিরোধে কাজ করে আসছে।

উল্লেখ্য, মোজাম্বিকের অন্যান্য প্রদেশেও খতনা প্রচলন থাকলেও জামবেজিয়া একটু ব্যতিক্রম। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ধারণা মতে, পুরুষদের খতনা এইচআইভি সংক্রমণের ঝুঁকি ৬০ শতাংশ কমাতে সক্ষম হতে পারে।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...