ঘুম কম হওয়ার কারণে শিশুদের আচরণগত সমস্যা দেখা দেয়

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক॥ চার বছর বয়সী শিশুদের ঘুম কম হওয়ার কারণে তাঁদের আচরণগত নানান সমস্যা দেখা দিতে পারে। শিশুদের ঘুম বিষয়ক এক গবেষণায় দেখা যায় যেসকল শিশু স্বাভাবিকের চেয়ে কম ঘুমায় তাদের মাঝে আচরণগত নানান ত্রুটি দেখা দেয়, যেমন তাদের মেজাজ খিটখিটে হয়ে যায়, এসব শিশুর মাঝে এটা ওটা নিক্ষেপের প্রবনতাও তৈরি হয়।


sleeping-baby

ভার্জিনিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক ডক্টর রেবেকা তাঁর নতুন এক গবেষণায় দেখতে পান, “ স্কুলে যাওয়ার বয়সী শিশুদের ক্ষেত্রে যাদের রাতে ঘুমাতে সমস্যা হয় অথবা কম ঘুমায় ওই সব শিশুদের ক্ষেত্রে কিছু আচরণগত সমস্যা দেখা যায় যেমন বাড়াবাড়ি রকমের রাগ, আক্রমণাত্মক হয়ে যাওয়া, অধিক আবেগপ্রবণ, খেয়ালী ও বদমেজাজ দেখান এবং বিরক্তিকর আচরণ করা।“

এ গবেষণায় গবেষক ৯,০০০ স্কুলগামী বয়সের শিশুকে নিয়ে গবেষণা চালান। তিনি এসব শিশুদের তাদের জন্মের পর থেকে স্কুলে দেয়ার আগ পর্যন্ত অনুসরণ করেন।

শিশুরা যখন ৪ বছর বয়সী হয় তখন তাদের পিতা মাতাদের থেকে জেনে নেয়া হয় সন্তানরা সাপ্তাহিক বন্ধের দিনে এবং সাপ্তাহিক খোলা দিনে কত সময় ঘুমায়। এছাড়া এসময় তাদের আচরনের বিষয়টিও জেনে নেয়া হয়।

এ ক্ষেত্রে দেখা যায়, শিশুদের ঘুম ও আচরনের মাঝে একটা বিরাট সম্পর্ক রয়েছে, যে সকল শিশু কম ঘুমায় তাদের মাঝে রাগ ও ক্রোধ সহ ৬ ধরণের সমস্যা দেখা দেয়। যে সকল শিশু দৈনিক ৯ ঘন্টার কম ঘুমায় তাদের মাঝে ৮০% শিশুর ক্ষেত্রে দেখা যায় এদের আচরণগত সমস্যা তৈরি হয়েছে।

গবেষণায় দেখা যায় ১৬% শিশুর ক্ষেত্রে স্বল্প ঘুমের ফলে আচরণগত সমস্যা প্রকটভাবে দেখা গেছে এবং এ ক্ষেত্রে ছেলে শিশুদের আচরণগত সমস্যা বেশী।

যেসকল শিশু দিনে ২ ঘণ্টার বেশী টেলিভিশন দেখে তাদের পিতা মাতার ভাষ্যমতে এসব শিশু দিনের বেশীরভাগ সময় হতাশ থাকে।

গবেষক ডক্টর রেবেকার এ গবেষণা রিপোর্টটি প্রকাশিত হয় Journal of Developmental & Behavioral Pediatrics নামে।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...