The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

মহাকাশে রোবটের জন্য নির্মিত হলো হোটেল!

মহাকাশে রোবটের জন্য এই হোটেল নির্মাণ করেছে মার্কিন মহাকাশ সংস্থা নাসা

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ মহাকাশ নিয়ে আমাদের গবেষণার যেনো শেষ নেই। বিভিন্ন সময় নানা গবেষণার কথা উঠে আসে। এবার এসেছে তেমনই একটি খবর। আর তা হলো মহাকাশে রোবটের জন্য নির্মিত হলো হোটেল! ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম এনটিভির এক খবরে জানা যায়, মহাকাশে রোবটের জন্য এই হোটেল নির্মাণ করেছে মার্কিন মহাকাশ সংস্থা নাসা। এই হোটেলের সার্বিক তত্ত্বাবধান এবং সেবায়ও নিয়োজিত থাকবে রোবটই। ইতিমধ্যেই বিভিন্ন রোবটিক টুলস তৈরি করে ফেলেছে নাসা। এই বিষয়ে সংস্থাটি বলেছে যে, আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনের বাইরে অবস্থিত হোটেলটি শীঘ্রই উদ্বোধন করা হবে।

মহাকাশে রোবটের জন্য নির্মিত হলো হোটেল! 1

মহাকাশ নিয়ে আমাদের গবেষণার যেনো শেষ নেই। বিভিন্ন সময় নানা গবেষণার কথা উঠে আসে। এবার এসেছে তেমনই একটি খবর। আর তা হলো মহাকাশে রোবটের জন্য নির্মিত হলো হোটেল! ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম এনটিভির এক খবরে জানা যায়, মহাকাশে রোবটের জন্য এই হোটেল নির্মাণ করেছে মার্কিন মহাকাশ সংস্থা নাসা। এই হোটেলের সার্বিক তত্ত্বাবধান এবং সেবায়ও নিয়োজিত থাকবে রোবটই। ইতিমধ্যেই বিভিন্ন রোবটিক টুলস তৈরি করে ফেলেছে নাসা। এই বিষয়ে সংস্থাটি বলেছে যে, আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনের বাইরে অবস্থিত হোটেলটি শীঘ্রই উদ্বোধন করা হবে।

নতুন এই হোটেলের তাপমাত্রার ক্ষতিকর প্রভাব হতে সুরক্ষা এবং তেজস্ক্রিয়তামুক্ত রাখার কাজ করবে এই রোবট। নাসা আরও বলেছে যে, আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনের ঠিক বাইরে অবস্থিত এই হোটেলটি। হোটেলটির প্রথম বাসিন্দা হবে দুই ‘আরইএলএল’ (যাকে বলা হয়, রোবটিক এক্সাটার্নাল লিক লোকেটর)।

এই হোটেলটি সব কার্যক্রম পরিচালিত হবে বিভিন্ন রোবটিক টুলসের মাধ্যমে। তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ, থাকা-খাওয়াসহ অন্যান্য কার্যক্রমেও সহায়তা করবে এই রোবটই। এখানকার রোবটগুলো মহাকাশ গবেষণার নানা কাজে ব্যবহার করা হবে বলে জানানো হয়েছে।

এই প্রকল্পের দায়িত্বরত কর্মকর্তা মার্ক ন্যুমান এই বিষয়ে বলেছেন, ভবিষ্যতে সেখানে নভোযাত্রীরা গেলে তাদের সহায়তা এবং থাকার উপযুক্ত পরিবেশ তৈরি করবে এই রোবটগুলোই।

উল্লেখ্য, বিভিন্ন সময় মার্কিন মহাকাশ সংস্থা নাসা মহাকাশে নানা গবেষণা চালিয়ে আসছে। তারা মহাকাশের যাবতীয় তথ্য সংগ্রহের মাধ্যমে সেগুলো জনসমক্ষে প্রকাশ করে থাকে। তাদের গবেষণার ফলে বর্তমান প্রজন্ম অনেক কিছুই জানতে পারছেন। মার্কিন এই গবেষণা সংস্থার মাধ্যমে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে ছড়িয়ে পড়ছে গবেষণালব্ধ নানা অজানা তথ্য।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...