The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

টেলিটকের ইন্টারনেট নামমাত্র মূল্যে পাবে শিক্ষার্থীরা

করোনাকালে অনলাইন শিক্ষা কার্যক্রম এগিয়ে নিতে এই বিষয়ে ইউজিসির আহ্বানে টেলিটক সাড়া দিয়েছে বলে জানিয়েছে কমিশন

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ দেশের পাবলিক এবং প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অনলাইনে শিক্ষা কার্যক্রম চলমান রাখার জন্য নামমাত্র মূল্যে ইন্টারনেট ব্যান্ডউইথ দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে টেলিটক।

টেলিটকের ইন্টারনেট নামমাত্র মূল্যে পাবে শিক্ষার্থীরা 1

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) পরিচালিত বিডিরেন প্ল্যাটফর্ম ব্যবহারকারী দেশের সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাই এই সুবিধা পাবে।

করোনাকালে অনলাইন শিক্ষা কার্যক্রম এগিয়ে নিতে এই বিষয়ে ইউজিসির আহ্বানে টেলিটক সাড়া দিয়েছে বলে জানিয়েছে কমিশন।

ইউজিসি জানিয়েছে, বর্তমানে দেশের ৪২টি পাবলিক এবং ৬৮টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ই বিডিরেন প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করছে। শিক্ষার্থীরা জুম অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে অনলাইনেই ক্লাসে অংশ নিতে পারবেন। এজন্য শিক্ষার্থীদেরকে অবশ্যই টেলিটকের নেটওয়ার্কের আওতায় থাকতে হবে।

প্রতিমাসে ১০০ টাকা রিচার্জের বিনিময়ে এই সুবিধাটি পাওয়া যাবে। রিচার্জ করা অর্থ তার মূল অ্যাকাউন্টে জমা হবে। এই টাকা ভয়েস কল এবং ডাটার জন্য ব্যয়ও করা যাবে। অব্যবহৃত অর্থ পরবর্তী রিচার্জে যোগ হবে। তবে ১০০ টাকার নিচে রিচার্জ করলে এবং সিমে ন্যূনতম ডাটা না থাকলে এই সুবিধাটি ভোগ করা যাবে না।

শিক্ষার্থীরা যেনো বিনামূল্যে অনলাইন এডুকেশন রিসোর্স ব্যবহার করতে পারেন সে লক্ষ্যেই বিডিরেন ২১ জুলাই টেলিটকসহ দেশের সব মোবাইল অপারেটরকেই চিঠি দেয়। বিডিরেনের এই আহ্বানে সাড়া দিয়ে টেলিটক গত ২৮ আগস্ট সম্মতি দিয়ে একটি চিঠি পাঠিয়েছে।

চিঠিতে টেলিটক জানিয়েছে, জাতীয় এই সংকটে বিডিরেনের মহতী এ উদ্যোগে যুক্ত হতে পেরে নিজেকে ভাগ্যবান মনে করছে। টেলিটক মনে করে যে, এই উদ্যোগের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের বিশাল একটি অংশ অনলাইন ক্লাসের সময় তাদের নেটওয়ার্কের আওতায় চলে আসবে।

এ সম্পর্কে ইউজিসি চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. কাজী শহীদুল্লাহ বলেন, করোনা মহামারির সময় বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে শিক্ষার্থীদের অনলাইনে শিক্ষা কার্যক্রমকে চলমান রাখার এই উদ্যোগ অত্যন্ত সময়োপযোগী একটি পদক্ষেপ।

নামমাত্র মূল্যে ইন্টারনেট ব্যান্ডউইথ দেওয়ার এই উদ্যোগে সাড়া দিয়ে এগিয়ে আসার জন্য তিনি শিক্ষা মন্ত্রণালয়, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ ও টেলিটককে আন্তরিক ধন্যবাদও জানান।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...