The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

নির্মিত হলো ওয়েব ফিল্ম ‘ঠাণ্ডা’

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ বেশকিছু দর্শকপ্রিয় নাটক পরিচালনা করে সাম্প্রতিক তুমুলভাবে আলোচিত হয়েছেন কাজল আরেফিন অমি। ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’ সিরিয়াল দিয়ে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পান এই নির্মাতা। এবার বানালেন ওয়েব ফিল্ম ‘ঠাণ্ডা’।

নির্মিত হলো ওয়েব ফিল্ম ‘ঠাণ্ডা’ 1

যে ওয়েব ফিল্মটি পুরোপুরি সিনেমার মতো করেই নির্মিত হয়েছে বলে জানালেন কাজল আরেফিন অমি।

যেহেতু এটিই প্রথম ওয়েব ফিল্ম, মুক্তি পাবে গ্লোবালি তাই এর জন্য কিছুটা বাড়তি মনোযোগও দিতে হয়েছে নির্মাতাকে। অমি সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, শেষ দুই মাস ‘ঠাণ্ডা’র পিছনেই সময় দিয়েছি। সিনেমা বানাতে যে পরিমাণ মনযোগ দিতে হতো ‘ঠাণ্ডা’র জন্যও একেবারেই তাই করেছি। সিনেমা বানালে ১২০ মিনিট হতো তবে ঠাণ্ডার ডিউরেশন হচ্ছে ৪৫ মিনিট। পার্থক্য কেবল এটুকুই।

অমি আরও বলেন, ফিল্মের মতো করে ডাবিং, ভিএফএক্স, সাউন্ড মিক্সিং সবই করা হলো। পোস্ট প্রোডাকশনের কাজও হয়েছে ইন্ডিয়া থেকে।

ট্যাটু, ভাইরাল গার্লের মতো জনপ্রিয় নাটকের এই নির্মাতা বলেন, চিত্রনাট্য, লুক টেস্ট, ক্যামেরাসহ ঠাণ্ডার সবকিছুই সিনেমার মতো করে করা হয়েছে। চেষ্টা করেছি সেরা কাজ দেওয়ার বাকিটা মুক্তির পর দর্শকের ফিডব্যাক থেকে কতোটা পেরেছি সেটি বোঝা যাবে।

ভারতীয় ওটিটি প্লাটফর্ম জি ফাইভ-এ আগামী ১০ জুন মুক্তি পেতে চলেছে এই ওয়েব ফিল্মটি। এটি দেখা যাবে বিনামূল্যে। ঠাণ্ডায় অভিনয় করেছেন মারজুক রাসেল, চাষী আলম, মিশু সাব্বির ও জিয়াউল হক পলাশ। পরিচালক জানিয়েছেন, মার্চে ৬ দিন টানা শুটিং করেন। পুরো টিম এতে কাজ করেছে। বাড়তিভাবে যুক্ত হয়েছেন তামিম মৃধা, ঠাণ্ডা ডার্ক কমেডি, ফুল অব এন্টারটেন্টমেন্ট কনটেন্ট।

‘ঠাণ্ডা’ সম্পর্কে পরিচালক আরও বলেন, ‘ঠাণ্ডা পুরোপুরি একটি এন্টারটেইনিং প্রজেক্ট। আমি এতে আমার সিগনেচারটা রাখার চেষ্টা করেছি। যা দেখে মানুষ প্রচুর বিনোদিত হবে।’

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...