The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

দূর্বল সিদ্ধান্তে কারণে বড় যে পাঁচটি টেক কোম্পানীগুলোর সর্বনাশ ঘটেছে!

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ টেক কোম্পানীর যাত্রার শুরটা হয় সাধারণত খুব ধীর গতিতে কিন্তু তারা যখন পরিণত লাভ করে, খুব দ্রুতগতিতে বড় হয়ে ওঠে! বর্তমানে টেক কোম্পানীগুলোর প্রয়োজন এই দ্রুতগতিতে বড় হওয়া ধরে রাখা অথবা একদম তলিয়ে যাওয়া! আজকের প্রতিবেদনে আলোচনা করা হবে সেইসব দূর্বল সিদ্ধান্তে কথা যার কারণে বড় যে পাঁচটি টেক কোম্পানীগুলো নিজেদের সর্বনাশ ডেকে এনেছে।


windows-vista

The Osborne Computer Corporation:

বর্তমানে অনেক ব্যর্থ টেক কোম্পানীর উদাহরণই টেনে আনা যায়, তবে আমরা একটু পেছনে ফিরে যাই। ডঃ অ্যাডাম অসবর্নকে বলা হয় পোর্টেবল কম্পিউটারের জনক। ১৯৮০ এর দশকে তাঁর ছিলো বিশ্বের সবচেয়ে বড় কম্পিউটার বিক্রেতা প্রতিষ্ঠান। তবে দুঃখের বিষয় হচ্ছে তাঁর নিত্য নতুন পদ্ধতি কোম্পানীটিকে ধ্বংস করে দেয়!

osborne1

হঠাৎ করেই কোম্পানিটি নতুন মডেলের পোর্টেবল কম্পিউটার বাজারে আনার ঘোষণা দেয়, যখন তাদের নিত্য চলা মডেলটি বাজারে চলছিলো। মজার ব্যাপার হলো ক্রেতারা সেই নতুন মডেলের আশায় কোম্পানিটির বর্তমান মডেলের কম্পিউটার কেনা বন্ধ করে দিলো! ফলে প্রতিষ্ঠানটি ব্যাংকের কাছে ঋণী হয়ে দেউলিয়া হয়ে যায়!

Windows Vista:

ডেস্কটপ পিসির জগতে উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেম নিয়ে শুরু থেকেই মাইক্রোসফট একচ্ছত্র আধিপাত্য বিস্তার করে এসেছে। উইন্ডোজ এক্সপি কম্পিউটার ইতিহাসেই সবচেয়ে জনপ্রিয় অপারেটিং সিস্টেম। এই জনপ্রিয়তার ওপর ভিত্তি করেই মাইক্রোসফট ২০০১ সালে এক্সপি রিলিজ এর দীর্ঘদিন পর ২০০৭ সালে উন্মুক্ত করে উইন্ডোজ ভিস্তা।

windowsvista

যা মাইক্রোসফটের এতোদিনকার সুনাম ক্ষুণ্ণ করে তাদেরকে মাটিতে নামিয়ে আনে। প্রচন্ড স্লো, বাগে ভরপুর এবং বিপুল নিরাপত্তা ক্রুটি নিয়ে উইন্ডোজ ভিস্তাকে মাইক্রোসফট কি মনে করে রিলিজ দিয়েছিলো তা এখনও জনমনে কৌতুককর বিষয়! সঠিক জানা না গেলেও অন্তত বিলিয়ন ডলারের ক্ষতির মুখোমুখি পড়তে হয়েছিলো মাইক্রোসফটকে। উইন্ডোজ ভিস্তার ক্ষতির প্রভাব এতোই ছিলো যে আরও উন্নত অপারেটিং সিস্টেম উইন্ডোজ সেভেন বাজারে এলেও তার শক্ত অবস্থান দখল করতে অনেক সময় লেগে গিয়েছিলো!

BlackBerry:

যখন একটি কোম্পানী শীর্ষে থাকে তখন তাদের উচিত সুদূরপ্রসারী চিন্তা করা, এবং এই মুহুর্তে ক্রেতাদের চমকে দিয়ে নিজেদের আরও উচ্চতায় নিয়ে সবার ধরাছোঁয়ার বাইরে নিয়ে যাওয়া। একসময় স্মার্টফোনের জগতে রাজত্ব করা ব্ল্যাকবেরি কোম্পানীর সামনে সুযোগ ছিলো অনেক, ছিলো বিনিয়োগ করে নতুন প্রযুক্তি এগিয়ে নিয়ে আসা, কিন্তু কোম্পনীটি সেটি করেনি। তাদের কীবোর্ডের সমতূল্য স্মার্টফোন বাজারে ঝড় তুললেও সেটি মিইয়ে যেতে সময় লাগেনি।

blackberry-800x533

অ্যাপল আইফোন নিয়ে এসে পুরো পৃথিবীই কাঁপিয়ে দেয়! টাচস্ক্রীণের মাধ্যমেই সবকিছু করার মজাটা ক্রেতারা লুফে নেয় খুব সহজেই। কিন্তু এরপরেও ব্ল্যাকবেরি উপলব্ধি করতে পারেনি কি সর্বনাশটা ঘটতে যাচ্ছে! একসময় ব্ল্যাকবেরিও টাচস্ক্রীণ স্মার্টফোন বাজারে আনে, তবে তখন অনেক বেশীই দেরী হয়ে গেছে! ছিলো না পর্যাপ্ত পরিমাণের অ্যাপস, যেটা ক্রেতারা আইফোনেই চাহিদামতো পেয়ে যাচ্ছিলো। বর্তমানে ব্ল্যাকবেরির ভবিষ্যৎ কি হবে সেটি নিয়ে অনেকেই সন্দিহান!

Yahoo:

অনলাইনের প্রথম সবচেয়ে বড় কোম্পানীর নাম বললে ইয়াহুর কথাই সবার মুখে চলে আসবে। ইন্টারনেটের সেই যুগে ইয়াহুর মতো আইডিয়া নিয়ে আর কেউই এগিয়ে আসেনি। ফলে ইয়াহু রাতারাতি বিপুল অর্থের মালিক বনে গেলো। তবে সেই অনুযায়ী কোম্পানীটির দূরদৃষ্টির অভাব ছিলো।

1385611363-five-poor-decisions-by-giant-tech-companies-which-ruined-them-4

ঘন ঘন CEO পরিবর্তন কোম্পানীটিকে তাঁর মূল লক্ষ্য থেকে সরিয়ে দেয়, ফলে গ্রাহকেরাও আস্থা হারিয়ে ফেলে। অন্যদিকে এই সুযোগকে পরিপূর্ণ কাজে লাগিয়ে তরতর করে এগিয়ে যায় GOOGLE.com! দীর্ঘদিন পরে কোম্পানীটি গুগলের প্রাক্তন এক্সিকিউটিভ মারিসা মেয়ারকে CEO পদ প্রদান করে, মারিসা মেয়ারের সাম্প্রতিক কিছু কার্যকলাপ ইয়াহুকে আবারও আশার আলো দেখাচ্ছে, তবে বিশ্লেষকরা বলছেন, বড্ড দেরী হয়ে গেছে!

AOL:

ব্রডব্যান্ড কানেকশনের দিক দিয়ে AOL ছিলো অপ্রতিদ্বন্দী! সেই পর্যন্ত থাকলেই ভালো ছিলো, তবে কোম্পানীটি চাইলো ব্যবসার আরও প্রসার ঘটাতে, তাই অনলাইনে সার্চ ইঞ্জিন খুলে বসলো তারা, ১৬৪ মিলিয়ন ডলার দিয়ে কিনে নিলো Time Warner কোম্পানীকে।

aol-800x393

এসব করতে গিয়ে তাদের মূল ব্রডব্যান্ড ব্যবসায় ঠিকমতো মনোযোগ না দেয়াতে ৩০ মিলিয়নের বিশাল সাবস্ক্রাইবার হারিয়ে ২০০৭ সালে মাত্র ৫ মিলিয়ন সাবস্ক্রাইবার থেকে যায় তাদের! ২৪০ বিলিয়ন ডলারের মালিক কোম্পানীটি ২০১১ সালে পরিণত হয় মাত্র ১.৬৬ বিলিয়ন ডলারের কোম্পানীতে! বর্তমানে AOLকে কিনে নেয়ার অফার করছে অন্যান্য বড় কোম্পানীগুলো!

তথ্যসূত্রঃ TheTechJournal

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...