চলমান অবরোধ-হরতাল: শুধুমাত্র পর্যটনশিল্পে ক্ষতি ২ হাজার কোটি টাকা!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ চলমান অবরোধ-হরতালসহ রাজনৈতিক আন্দোলনে দেশজুড়ে এক অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। গত এক মাসের বেশি সময় ধরে চলা এই আন্দোলনে দেশের অর্থনীতিতে ধ্বস নেমে এসেছে। শুধুমাত্র পর্যটনশিল্পে ক্ষতি ২ হাজার কোটি টাকা!

Coxbazar

দেশজুড়ে চলমান রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে দেশের অর্থনীতিতে ব্যাপক প্রভাব পড়ছে। শুধুমাত্র পর্যটনশিল্পে চলতি মৌসুমে প্রায় ২ হাজার কোটি টাকা ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছে ট্যুর অপারেটস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (টোয়াব)। গতকাল বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনটি এসব তথ্য দিয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে টোয়াবের সভাপতি প্রফেসর ড. আকবর উদ্দিন আহমাদ বলেছেন, ‘শীতকালকে আমরা পর্যটনের প্রধান মৌসুম ধরে থাকি। বিগত ৩ বছর ধরেই রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে আমরা এক বড় ক্ষতির মুখে পড়েছি। শুধুমাত্র বর্তমান মৌসুমে প্রায় ২ হাজার কোটি টাকা ক্ষতি হয়েছে আমাদের।’

প্রফেসর ড. আকবর উদ্দিন আহমাদ আরও বলেন, ‘আমাদের সংগঠনে ৩শ’ সদস্য রয়েছে। সবাই আজ এক অপূরণীয় ক্ষতির সম্মুখীন। আর যারা ব্যাংক হতে ঋণ নিয়েছে তাদেরকে ঋণ পরিশোধেও তাড়া দেওয়া হচ্ছে। সব মিলিয়ে এক কঠিন অবস্থা চলছে আমাদের এই পর্যটন শিল্পে।’

পর্যটনশিল্পকে সবকিছুর ঊর্ধ্বে রেখে যে কোন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে এই শিল্পকে রক্ষা করতে সংবাদ সম্মেলনে সরকারের প্রতি উদাত্ত আহ্‌বান জানান সংগঠনটির নেতৃবৃন্দ। নেতৃবৃন্দ মনে করেন, ‘ট্যুরিজম যে একটা শিল্প ও এর উজ্জ্বল সম্ভাবনা রয়েছে এটা এখনও সরকার বুঝতেই পারছে না। রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে আমরা শুধু বৈদেশিক মুদ্রা হারাচ্ছি না, বহির্বিশ্বের কাছেও আমাদের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হচ্ছে।

পর্যটনশিল্পকে রক্ষায় ট্যুরিস্ট জোনগুলো ও পর্যটন পরিবহণ হরতাল অবরোধের আওতামুক্তসহ সকল রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে বাইরে রাখা, ট্যুরিস্ট এলাকাগুলো নিরাপত্তা বাহিনীর আওতায় আনা, পার্বত্য চট্টগ্রামসহ অন্যান্য এলাকা ভ্রমণের জন্য আগের নিয়মানুসারে ডিসি হতে অনুমতি বহাল রাখাসহ মোট ১১দফা দাবি তুলে ধরা হয় এক লিখিত বক্তব্যে।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...