The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

মিরপুর ডিওএইচএস এর মধ্যে পাচ্ছেন জোবাইক বাইসাইকেল সার্ভিস

বাংলাদেশে এই প্রথম যোগাযোগ আরো সহজ করতে এসেছে জোবাইক বাইসাইকেল সার্ভিস

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥  কক্সবাজার, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় এবং চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের পরে ঢাকায় মিরপুর ডিওএইচএস এর মধ্যেই প্রথম যাত্রা শুরু করল বাইসাইকেল শেয়ারিং সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান জোবাইক (JOBIKE)।

গত শনিবার (৫ জানুয়ারি) হতে প্রতিষ্ঠানটি ঢাকার ডিওএইচএস-এ আনুষ্ঠানিক সেবা প্রদানের মাধ্যমে নিজেদের যাত্রা শুরু করে। এই বাইকটি খুবই কম খরচে ব্যবহার করতে পারবেন। আর এই সেবা আপনি রাত-দিন ২৪ ঘন্টা পাবেন।

জোবাইক(JOBIKE) সেবা ব্যবহারের পদ্ধতিঃ

১। জোবাইক ব্যবহারের জন্য-

  • প্রথমে প্লে স্টোর থেকে Jobike অ্যাপসটি ইন্সটল করতে এই লিঙ্কে ক্লিক করুন 
  • ইন্সটল করার পর অ্যাপসটিতে প্রবেশ করে আপনাকে একটি ফোন নাম্বার দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে।
  • এখন ফোন নাম্বার দিয়ে SEND CODE বাটনে ক্লিক করুন।
  • এখন আপনার ওই নাম্বারে একটি কোড সহ এসএমএস আসবে।
  • এসএমএস এর ওই কোডটি টাইপ করে VERIFY বাটনে ক্লিক করুন।
  • এখন আপনার অ্যাপসের নিচে বাম পাশে একটি বাটন দেখতে পাবেন, সেখানে ক্লিক করে আপনার প্রোফাইলে ইনফরমেশন সেট করুন।
  • তারপর সেভ বাটনে ক্লিক করুন।

২। এখন আপনাকে নির্দিষ্ট সেলস পয়েন্ট হতে আপনার জোবাইক অ্যাকাউন্টে টাকা রিচার্জ করতে হবে।

মিরপুর ডিওএইচএস এর মধ্যে টাকা রিচার্জের জন্য সেলস পয়েন্টগুলো হলঃ
  • সরকার বাড়ি (দক্ষিণ)
  • সরকার বাড়ি (উত্তর)
  • ডিওএইচএস পরিষদ অফিস (কেন্দ্রীয় মসজিদের কাছে)
  • মিরপুর ডিওএইচএস শপিং কমপ্লেক্সের সামনে
৩। জোবাইকগুলো প্রাপ্তি স্থানঃ
সাধারণত জোবাইকগুলো নিম্নের পার্কিং পয়েন্টগুলোতে পাওয়া যাবেঃ
  • মিরপুর ডিওএইচএস কেন্দ্রীয় মসজিদের সামনে
  •  ডিওএইচএস পরিষদে
  •  তিন নম্বর মসজিদের (বৃন্দাবন) মহিলা প্রবেশদ্বারের সামনে
  •  সরকার বাড়ি গার্ডেন সেন্টারে
  •  বৈকালী লেকের প্রবেশদ্বারে
  •  জ্যোৎস্না সরবরের প্রবেশদ্বারে
  •  মিরপুর ডিওএইচএস শপিং কমপ্লেক্সের বিপরীতে

এই জায়গাগুলো ছাড়াও ডিওএইচএস এর মধ্যে যেখানে পার্কিং অবস্থায় দেখবেন, সেখান থেকেই এই বাইক ব্যবহার করতে পারবেন। সাধারণত মিরপুর ডিওএইচএস পরিষদ বা কেন্দ্রীয় মসজিদের সামনে সর্বদা এই বাইক পাওয়া যায়।

৪। এখন জোবাইক অ্যাপসে প্রবেশ করে নিচের দিকে SLIDE TO UNLOCK লেখার উপর JO লেখাকে বামে টান দিন। তাহলে স্ক্যানার অন হয়ে যাবে। ক্যানারের মাধ্যমে বাইকের লকের উপরে থাকা কিউ আর কোড স্ক্যান করে বাইক আনলক করুন।

৫। বাইক আনলক করে আপনি ইচ্ছে মত মিরপুর ডিওএইচএস এলাকার মধ্যে বাইকটি চালাতে পারবেন। আপনার বাইক চালানো শেষ হলে ডিওএইচএস এর মধ্যে যেকোন নিরাপদ এবং সবার দৃষ্টিগোচর হয় এমন জায়গায় এমনকি আপনার বাসার সামনে হাত দিয়ে লক করে রেখে দিন। (লক করার সময় অ্যাপস ব্যবহার করার প্রয়োজন হয় না)

এই বাইক চালাতে খরচ কেমন হবে?

বাইকটি আনলক করার পর থেকে শুরু করে যতক্ষণ আপনি বাইকটি পুনরায় লক না করবেন, ততক্ষণ আপনার জোবাইক অ্যাকাউন্ট হতে প্রতি মিনিট ১ টাকা হিসেবে চার্জ কাটা হবে। অর্থাৎ আপনি যদি বাইকটি আনলক অবস্থায় না চালিয়েও রেখে দেন, তখনও আপনার অ্যাকাউন্ট থেকে চার্জ কাটতে থাকবে। তাই নির্দিষ্ট স্থানে পৌঁছে বাইকটি হাত দিয়ে লক করে দিন।
মনে রাখবেন বাইকটি কেবল আনলক করার জন্যই ডাটা অন থাকা অবস্থায় অ্যাপস ব্যবহার করতে হবে। অথচ লক করার সময় কেবল হাত দিয়েই লক করতে হবে এই সময় আপনার ডাটা অন থাকা বা অ্যাপস ব্যবহার করার প্রয়োজন হবে না।

জোবাইকে কর্মরত কর্মীরা সারাক্ষণ ট্র্যাকিং করে বাইকের খোঁজ খবর রাখছেন। সেই সাথে ডিওএইচএস এর নিরাপত্তা কর্মীরা সারাক্ষণ এই সমস্ত বাইকের উপর নজরদারি রাখছেন। তাই বাইক চুরি হওয়া বা হারিয়ে যাওয়ার কোন অবকাশ নেই।

সর্বপরি বলা যায়, জোবাইক আমাদের সময় এবং অর্থ দুটোকেই  অনেকটা বাঁচিয়ে দিবে। কারণ যেখানে রিক্সায় যেতে আপনার ২০-৩০ টাকা ভাড়া দিতে হত, সেখানে মাত্র ৫-৭ টাকায় নিজে বাইক চালিয়ে পৌছে যেতে পারছেন। একদিকে যেমন অর্থ ও সময় বাঁচবে, অন্যদিকে আমাদের শারীরিক ব্যায়ামের চাহিদাও পুরণ হয়ে যাবে। এই সার্ভিস আমরা যদি আন্তরিকতার সাথে গ্রহণ করি, তাহলে অল্পদিনের মধ্যে এই সেবা সারা বাংলাদেশে ছড়িয়ে পড়বে। ফলে বাংলাদেশের মানুষের সময় এবং অর্থ সাশ্রয় হবে সেই সাথে নিয়মিত বাইসাইকেল চালানোর কারণে নানা ধরণের শারীরিক সমস্যা থেকে রক্ষা পাবে।

তাহলে আর দেরি কেনো আজ থেকে আপনিও হয়ে যান জোবাইকের একজন সদস্য এবং উপভোগ করুন জোবাইক বাইসাইকেল সেবা।

এছাড়া জোবাইক সম্পর্কে কোন ধরণের তথ্য বা পরামর্শের জন্য যোগাযোগ করুন মি. রাসেল মাহমুদ মোবাইলঃ ০১৭৩০৬৯২৬৯৯ নম্বরে।
Loading...