The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

বয়স বাড়লেও যেভাবে নিজেকে সুস্থ রাখবেন

আমরা যখনি বার্ধক্যের কথা চিন্তা করি, তখনি নিজের অজান্তেই মানসিকভাবে দুর্বল হয়ে পরি

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ বয়সের সাথে আমাদের শরীর এবং মনের এক নিবিড় সম্পর্ক রয়েছে। বয়স বাড়ার সাথে সাথে আমাদের শরীরে নানা সমস্যা দেখা দেয়। সেই সাথে আমরা মানসিক ভাবেও দুর্বল হয়ে পড়ি। এর কিছু কারণ রয়েছে। সাধারণত বয়স বৃদ্ধি পেলে স্মৃতিশক্তি কমে যায়, শরীরের রেচন প্রক্রিয়ায় সমস্যা সৃষ্টি হয়, চোখের দৃষ্টি শক্তি হ্রাস পায় ইত্যাদি।

এছাড়া আমরা যখনি বার্ধক্যের কথা চিন্তা করি, তখনি নিজের অজান্তেই মানসিকভাবে দুর্বল হয়ে পরি। আজ আমরা জানব বয়স বাড়লেও কিভাবে নিজেকে সুস্থ রাখবেন।

১। বার্ধক্যের কথা ভুলে যানঃ

সাধারণত আমরা তখনি মানসিকভাবে বেশি দুর্বল হয়ে পরি, যখন আমরা নিজের বার্ধক্যের কথা চিন্তা করি। তখন আমরা ভাবি জীবনের অনেকটা পথ পেরিয়ে এসেছি। তাই এখন ক্লান্ত হয়ে পড়েছি। এমনটা চিন্তা করেছেন তো নিজের অনেক বড় ক্ষতি করে ফেললেন। আপনার আশেপাশে যারা বয়স বাড়লেও নিজেকে যুবক মনে করে, তারা কিন্তু বৃদ্ধ বয়সেও অনেকটা সুস্থ থাকে। কারণ তারা মন থেকে নিজের বয়স বৃদ্ধির কথা চিন্তা করে না। আর এই জন্যই তারা অনেকদিন মানসিকভাবে সুস্থ থাকে। তাই আজ থেকে বয়সের কথা ভুলে যান। নিজেকে এখনো যুবক মনে করুন।

২। অসুস্থতার সাথে বয়সের তুলনা করবেন নাঃ

অনেকের ধারণা বয়স বৃদ্ধি পেলে যদি শরীরে কোন সমস্যা দেখা দেয়, তবে তা সহজে সারতে চাই না। আর এমন ধারণার কারণেই মুলত তাদের শারীরিক সমস্যাগুলো সহজে ভাল হয় না। আপনার শরীরে যত বড় ধরণের সমস্যায় দেখা দিক না কেন, কখনো বয়সের দোহায় দিবেন না। বয়সের কথা ভুলে গিয়ে ঠিক মত চিকিৎসা করালেই দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠবেন।

৩। বন্ধুদের সাথে সময় কাটানঃ

নিজেকে সর্বদা সুস্থ রাখার জন্য দিনের কিছু সময় বন্ধুদের সাথে আড্ডা দিন। কারণ বন্ধুদের সাথে কাটানো সময়টুকু আপনাকে সারাদিন হাসিখুশি থাকতে সাহায্য করবে। একাকিত্ব সময় আমাদের নানা দুশ্চিন্তায় নিজেকে ভাবিয়ে তোলে। বন্ধুদের সাথে নিজের ভাল মন্দ বিষয়গুলো শেয়ার করুন। দেখবেন আপনি শারীরিক এবং মানসিকভাবে নিজেকে সুস্থ মনে করবেন।

৪। জীবন সঙ্গীর সাথে সময় কাটানঃ

গবেষণায় দেখা গেছে বয়স বৃদ্ধির সাথে সাথে কেবল তারায় শারীরিক এবং মানসিকভাবে বেশি অসুস্থ বোধ করে, যারা জীবন সঙ্গীর সাথে সময় কাটান না। কারণ আপনার সবচেয়ে কাছের মানুষটি হচ্ছে জীবন সঙ্গী। আপনার বার্ধক্যে নিজেকে সুস্থ রাখার জন্য প্রায় ৮০% ভূমিকা রাখেন জীবন সঙ্গী বা অর্ধাঙ্গী। তবে বিভিন্ন কারনে দেখা যায় কারোর স্বামী বা স্ত্রী হয়ত অনেক আগেই মারা গেছে বা দুজনের মধ্যে কোন কারণ বশত অনেকদিন যাবত দুরুত্ব বজায় রয়েছে। তাই গবেষকদের পরামর্শ এই বয়সে প্রয়োজনে আবার বিয়ে করুন। তাহলে সুখ দুঃখ ভাগাভাগি করার জন্য এবং আনন্দে বাকি সময়টা কাটাতে পারবেন। এর ফলে আপনি মানসিকভাবে নিজেকে সুস্থ ভোধ করবেন।

৫। নিয়মিত ব্যায়াম করুনঃ

বয়স বৃদ্ধি পেলেও ব্যায়াম করা বন্ধ করবেন না। কারণ ব্যায়াম আপনার মন এবং শরীর উভয়কে ভাল রাখে। তাই প্রতিদিন যতটুকু সময় সম্ভব ব্যায়াম করুন। আপনার এই ব্যায়ামের মধ্যে দৌড় এবং সাইকেল চালানোকে গুরুত্ব দিতে পারেন। এই দুটিই শরীরকে ফিট রাখতে  বেশি সাহায্য করে।

তাহলে আজ থেকে বয়সের কথা ভুলে যান এবং সুন্দর ও সুস্থ জীবন উপভোগ করুন।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...